Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬, ১৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

ভারতে জঙ্গি হামলার শঙ্কা, কেরালায় সতর্কতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ মে, ২০১৯, ৩:৪০ পিএম

ব্যাপক নাশকতা ঘটাতে এবার শ্রীলঙ্কার পর ভারতে ঢুকছে মধ্যপ্রাচ্য-ভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)! সাম্প্রতিক গোয়েন্দা রিপোর্টগুলোতে এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়, ভারতের উপকুল সংলগ্ন লক্ষদ্বীপ ও এর আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় ভয়াবহ সিরিজ বোমা বিস্ফোরণের ছক এঁকেছে আইএস জঙ্গিরা। আর সে লক্ষ্যে এবার সংগঠনটির ১৫ সদস্য একটি সাদা নৌকায় চেপে শ্রীলঙ্কা থেকে লক্ষদ্বীপে আসার জন্য রওনা দিয়েছে।

কলম্বো থেকে সরকারি ভারতীয় গোয়েন্দাদের কাছে পাঠানো এই বার্তার পরই অনেকটা নড়েচড়ে বসেছে কেরালা সরকার। যে কারণে কেরালা উপকূলে জারি করা হয়েছে হাই অ্যালার্ট।

আইএস সদস্যদের বহনকারী সেই নৌকাটি যেকোনো সময় কেরল উপকূলে এসে ভিড়তে পারে। মূলত এমন খবরের ওপর ভিত্তি করে উপকূলের সকল মাছ ধরার নৌকা ও জাহাজের উপর চালানো হচ্ছে কড়া নজরদারি। একইসঙ্গে মৎস্যজীবী ও জাহাজগুলোতেও জারি করা হয়েছে ব্যাপক সতর্কতা।

এ দিকে উপকূলে দায়িত্বরত পুলিশের একটি সূত্র জানায়, গত ২৩ মে লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার দিন কলম্বো থেকে গোপন সেই বার্তাটি ভারতে এসে পৌঁছেছে। সেখানে স্পষ্টভাবে জানানো ছিল, সাদা রঙের সেই নৌকাটিতে রয়েছে আইএসের ১৫ জন জঙ্গি।

উপকূল পুলিশের পক্ষ থেকে এও বলা হয়, ‘গত এপ্রিলে শ্রীলঙ্কায় জঙ্গিদের ঘটানো সিরিজ বোমা হামলার পর এমন একটা কিছু ঘটতে পারে বলে আগে থেকেই ধারণা করা হচ্ছিল। যা গত ২৩ মে কলম্বো থেকে পাঠানো সেই গোপন বার্তার মাধ্যমে তা আরও জোরদার হয়ে যায়।’

অপর দিকে গোয়েন্দাদের এই সন্দেহের পেছনে আরও কারণ রয়েছে। তা হলো চলতি মাসের শুরুর দিকে প্রথমবারের জন্য জঙ্গি সংগঠন আইএসের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয় যে, ভারতের একটি ‘প্রভিন্স’ (রাজ্যে) তাদের শক্ত ঘাঁটি রয়েছে।

পরবর্তীতে গত শুক্রবার সেই ‘প্রভিন্স’-এর নামও প্রকাশ করেছে আইএস নিয়ন্ত্রিত বার্তা সংস্থা ‘আমাক’। সেই নামটি হলো, ‘ভিলাইয়া অফ হিন্দ’। সূত্র: আনন্দ বাজার।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন