Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

বগুড়া বিএনপির কোন্দল বাড়ছেই

প্রভাব পড়তে পারে উপনির্বাচনে.

মহসিন রাজু | প্রকাশের সময় : ২৬ মে, ২০১৯, ৬:৩২ পিএম

সদ্য ঘোষিত বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ অব্যাহত রয়েছে। ২ সপ্তাহ আগে ঘোষিত এই কমিটির বিরুদ্ধে চলমান বিক্ষোভ সমাবেশ কিছুদিনের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে এমন ধরনের বাৎচিৎ শোনা গেলেও দেখা যাচ্ছে সমাবেশে কর্মি সমাবেশের সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে । এর ফলে আগামী জুনের ২৪ তারিখে বগুড়া সদরের সংসদীয় উপনির্বাচনে বিএনপি কতটা সফল হবে তা’ নিয়ে দলটির সাধারণ নেতা কর্মিদের মধ্যে প্রবল শংকা তৈরী হচ্ছে । 

বিএনপির নেতা কর্মিদের মনে এখন যে প্রশ্নগুলো ঘুরপাক খাচ্ছে সেগুলো হল প্রবলভাবে একাদশ জাতীয় সংসদের নির্বাচনী ফলাফল প্রত্যাক্ষানের পর কেন বিএনপির ৫ সংসদ সদস্য শপথ নিল, কেন বগুড়া সদরে বিএনপি মহাসচিব মীর্জা ফখরুল শপথ নিলেননা ? কেনই বা বগুড়া সদরের উপনির্বাচনে বেগম খালেদা জিয়ার নামে মনোনয়ন তুলে তার স্বাক্ষর নিতে সংশ্লিষ্টরা ব্যর্থ হল ? কিন্তু কারো কাছে এসব প্রশ্নের জবাব তারা পাচ্ছেনা।
রোববার বিকেলেও বগুড়া জেলা বিএনপির অবরুদ্ধ দলীয় কার্যারয়ের সামনে নব গঠিত বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন বিলুপ্ত বিএনপি কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক পরিমল চন্দ্র দাস। সভায় প্রধাণ বক্তা ছিলেন সিনিয়র বিএনপি নেতা ও শ্রমিক দল সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদ । অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শাহ মেহেদী হাসান হিমু , দেলওয়ার হোসেন পশারী হিরু, যুবদল শহর কমিটির সভাপতি মাসুদ রানা মাসুদ সহ ছাত্র , যুব ও শ্রমিকদলের নেতৃবৃন্দ । সিনিয়র বিএনপি নেতা ও বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ মওদুদ হোসেন আলমগীর পাভেল ও এই সমাবেশে এসে সংহতি প্রকাশ করায় প্রতিবাদি নেতা কর্মিরা উজ্জিবিত হয়ে ওঠেন ।
এদিকে বগুড়া জেলা বিএনপির সাম্প্রতিক অস্থিতিশীল অবস্থার চিত্র বর্ণনা করে স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মাহমুদ শরীফ মিটু বলেন , যারা আহ্বায়ক কমিটির পক্ষে তারা বলছেন এই কমিটি করে দিয়েছেন তারেক রহমান । আর যারা তার বিরোধি তারা বলেছেন , বেগম খালেদা জিয়াকে অন্ধকারে রেখেই কমিটি করা হয়েছে , তাকে না জানিয়েই জিএম সিরাজকে এমপি পদে প্রার্থী করা হয়েছে । যার ফলে অনেকেই বলাবলি করছেন , বগুড়া বিএনপির বর্তমান বিরোধ খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরোধ হিসেবেই চিত্রিত হচ্ছে ।’
এদিকে বগুড়া বিএনপির এই আভ্যন্তরীন কোন্দলে দারুণ উজ্জিবিত হয়ে আওয়ামীলীগের নেতা কর্মিরা আশা করছে এবারের উপনির্বাচনে তারা সহজেই নির্বাচনী ফসল ঘরে তুলতে পারবেন । এই আসনে স্বতন্দ্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করা সৈয়দ কবীর আহম্মেদ মিঠুর সমর্থকরাও মনে করছেন বিগত নির্বাচনে গাবতলীর মতো বগুড়া সদরেও হয়তো বিএনপি সমর্থকদের ভোট তাদের প্রার্থীর পক্ষেই যাবে ।



 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ