Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬, ২১ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

মেয়েদের কর্মসংস্থানে কারিগরি শিক্ষায় জোর দিতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ মে, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

সরকার দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে কাজ করছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মেয়েদের কর্মসংস্থানের জন্য কারিগরি শিক্ষার ওপর জোর দিতে হবে। এ সময় নারী উদ্যোক্তা ও কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে আরও দক্ষ ও যুগোপযোগী করতে হবে।
গতকাল গণভবনে জয়িতা ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নসের বিশেষ সভায় সূচনা বক্তব্যে এই আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী জয়িতা ফাউন্ডেশনকে বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, সরকার নারী-পুরুষের সুষম উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করছে। নারীদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই এ প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে সরকার। বহুমুখী ব্যবসা উদ্যোগের জন্য নারীদের সমান ও দক্ষ করে গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে একটি বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান হিসেবে জয়িতা ফাউন্ডেশনের সক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি এর আওতায় কর্মরত তৃণমূল পর্যায়ে যে উদ্যোক্তা রয়েছেন তাদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি করে প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে।
নারীর উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর অবদান স্মরণ করেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, বীরাঙ্গণাদের সামাজিক মর্যাদা দিয়ে তাদের পুনর্বাসন করেন জাতির পিতা। নারীশিক্ষা এবং তাদের মর্যাদা ও অধিকার নিশ্চিতে বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথ ধরেই কাজ করছেন তিনি। এ সময় তিনি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পুনর্গঠনের পাশাপাশি নারীর কর্মসংস্থান ও ক্ষমতায়নের জন্য বঙ্গবন্ধুর উদ্যোগ তুলে ধরেন।
শেখ হাসিনা বলেন, নারী-পুরুষের সুষম উন্নয়ন না হলে সমাজ পঙ্গুই থেকে যাবে। আওয়ামী লীগ ভোগের রাজনীতি করে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, নারীদের কর্মসংস্থানের কথা মাথায় রেখে সরকার তাদের কারিগরি শিক্ষায় উদ্বুদ্ধ করতে কাজ করছে।
জয়িতা ফাউন্ডেশন সৃষ্টির মূল লক্ষ্য দারিদ্র্য বিমোচন উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, মেয়েরা যাতে আত্মসম্মানের সাথে বেঁচে থাকতে পারে, স্বাবলম্বী হতে পারে এবং সংসারে যেন তাকে মর্যাদা দেয়া হয়। তিনি বলেন, অর্থাৎ সেও একটি ক্ষেত্রে জয়ী হলো। যাতে নিজেকে আর অবহেলিত ভাবতে না পারে।
শেখ হাসিনা নারীর কল্যাণে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, স্বামী পরিত্যক্তা ভাতা, বিভিন্ন ধরনের বৃত্তি এবং উপবৃত্তি প্রদানসহ সরকারের সামাজিক নিরাপত্তাবলয়ের বিভিন্ন কর্মসূচির প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন। তিনি এ সময় মেয়েদের উৎপাদিত পণ্য বাজারজাত করার সুযোগ করে দেয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, না হলে তারা নিরুৎসাহিত হয়ে পড়বে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই সংগঠনটিকে এমনভাবে গড়ে তুলতে হবে যাতে সেখানে কর্মরত সব নারীই বলে উঠতে পারে আমিই জয়িতা।



 

Show all comments
  • MD Jamal ২৭ মে, ২০১৯, ২:৪৩ এএম says : 0
    আমি ৪ বছর ডেন্টাল ডিপ্লোমা করে বসে আছি কিন্তু সরকারের কোন সদইচ্ছা নাই এই কোঠায় নিয়োগের জন্য এই কোঠায় নিয়োগ দিলে হয় তো হাজারও বেকার সমস্যা সমাধান হতো
    Total Reply(0) Reply
  • Akash Khan ২৭ মে, ২০১৯, ২:৪৩ এএম says : 0
    মেয়েদের কর্মসস্থানে মেয়েদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেন
    Total Reply(0) Reply
  • Al Mansur ২৭ মে, ২০১৯, ২:৪৩ এএম says : 0
    সকল পিতা মাতা ভাই বোনদের বলবো আপনার ছেলে মেয়ে ভাই বোন কাউকে ডিপ্লোমা ইন ইন্জিনিয়ারিং এ ভর্তি করবেন না তার জীবনটা নস্ট করবেন। এই সরকার শুধু মুখের বুলিতেই কলা দেখাচ্ছে বাস্তবে কর্ম সংস্থানের ভিত্তি এতই দূর্বল যে এর চাইতে আপনার এস এস সি মানে ভালো জব করা যায়। অনুরোধ ক্রমে একজন ডিপ্লোমা ইন্জিনিয়ার
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rafi Alam ২৭ মে, ২০১৯, ২:৪৩ এএম says : 0
    একটা মেয়ের ভবিষ্যতে ভরসার জন্য তার স্বামী থাকে | কিন্তু ছেলেদের মাথায় ঠাই নেয়ার মতো কেউ থাকে না নিজেদেরকেই করতে হয় | তাই বেকার ছেলেদের সমস্যা আগে সমাধান করেন....
    Total Reply(0) Reply
  • Амена Хан ২৭ মে, ২০১৯, ২:৪৪ এএম says : 0
    সরকারে কর্মক্ষেত্র তৈরি তেমন কর্মসুচি দেখা যায় না,সেই দিক দিয়ে সবাইকে ব্যপকহারে কারিগরী ট্রেনিং দেওয়া দরকার যাতে নিজেরাই কাজ যোগার করতে পারে,প্রকল্পের নামে অর্থ অপচয় না করে এইখানে ইনভেস্ট করলে দ্রুত অর্থ ব্যক করবে বলে মনে হয়,চীন এত বোকা নয় বলেই ব্যপক কারিগরী ট্রেনিং দেয়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী


আরও
আরও পড়ুন