Inqilab Logo

মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৪ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
শিরোনাম

এক মুইট ভাত দে জানডা বাঁচাই

খোলা আকাশে ৮০ বছরের বৃদ্ধার আকুতি

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ২৮ মে, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

 ‘বাবারে ক্ষিদা যে সইজ্য অয় না, জানডা বারইয়া যাইতাছে। এক মুইট ভাত দে জানডা বাঁচাই। কত দিন ভাত চোখে দেহি না’। ক্ষুধার্ত ৮০ বছরের বৃদ্ধা হাজেরা বেগমের এই বুক ফাটা কাকুতি-মিনতিও পাষণ্ড ছেলে সাইফুলের মন গলাতে পারেনি। উল্টো সকালে চলৎশক্তিহীন মাকে মারধর করে রাস্তার পাশে ফেলে রাখে। এ অবস্থায় খোলা আকাশের নিচে তিনদিন পড়ে থেকে হাজেরা বেগম আরো অসুস্থ হয়ে পড়েন।
গত শনিবার রাতে স্থানীয় ইউপি সদস্যের উদ্যোগে হাজেরা বেগমকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। হৃদয় বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার উথুরী গ্রামে। এ ঘটনায় হাজেরা বেগম শনিবার রাতে ছেলেদের বিরুদ্ধে গফরগাঁও থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। পুলিশ গত রোববার সন্ধ্যায় বৃদ্ধা হাজেরা খাতুনের বড় ছেলে আব্দুস সাত্তার ও নাতি তাফাজ্জল হোসেনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
স্থানীয়রা জানায়, কৌশলে বৃদ্ধা মায়ের কাছ থেকে ১২ কাঠা জমি লিখে নিয়েছে ছোট ছেলে। এ কারণে বড় দুই ছেলে মায়ের প্রতি অসন্তুষ্ট। খোঁজ-খবর নেয়াও বন্ধ করে দিয়েছে। এ নিয়ে সালিশ বৈঠকও হয়েছে। অনিচ্ছা সত্তে¡ও ছোট ছেলে কৌশলে জমি লিখে নেয়ার কারণে মায়ের ভরণপোষণের ভারও তার ওপর বর্তায়। তবে ছোট ছেলেও তাকে আর জায়গা দেননি। গত বৃহস্পতিবার তাকে মারধর করে বাড়ির সামনের সড়কের পাশে খোলা আকাশের নিচে ফেলে রেখে আসে সাইফুল। পরে গত শনিবার রাতে স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুস সোবহান ও কালা মিয়া প্রতিবেশীদের সহায়তায় বৃদ্ধা হাজেরা বেগমকে উদ্ধার করে গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ ব্যাপারে ওই ইউপি সদস্য বৃদ্ধার ছেলে ও নাতিদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।
থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ, পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার উথুরী গ্রামের মৃত রেসমত আলীর স্ত্রী হাজেরা বেগমের তিন ছেলে-সাইফুল ইসলাম (৪০), সোহরাব উদ্দিন (৪৫) ও আব্দুস সাত্তার (৫০)। প্রায় ১৬ বছর আগে স্বামী মারা যাওয়ার সময় হাজেরা বেগমের নামে ১২ কাঠা জমি লিখে দেন। স্বামী মৃত্যুর পর ছেলেরা হাজেরা বেগমকে কিছুদিন ভরণপোষণ দেন। এক পর্যায়ে ছোট ছেলে সাইফুল ইসলাম গোপনে বৃদ্ধ মায়ের কাছ থেকে ১২ কাঠা জমি নিজের নামে লিখে নেন। এ খবর পাওয়ার পর অন্য ছেলেরা মায়ের ভরণপোষণ ও খোঁজখবর নেয়া বন্ধ করে দেন।
এই পরিস্থিতিতে ছোট ছেলে সাইফুলের সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া করতেন হাজেরা বেগম। তবে কিছুদিন পর সাইফুলও তার মাকে ভাত কাপড়ের কষ্ট দিতে থাকেন। তিনবেলার মধ্যে কখনো একবেলা, আবার কোনো কোনোদিন খাবারই দেয়া হতো না। খাবার চাইলে উল্টো মাকে মারধর করতো সাইফুল।
এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিকবার বিচার সালিশও হয়েছে। কিন্তু মায়ের জমি লিখে নেয়ায় বিচার সালিশে সাইফুলকেই তার মা হাজেরা বেগমের ভরণপোষণের দায়িত্ব দেন সালিশকারীরা। তবে সাইফুল বিচার সালিশ না মেনে গত বৃহস্পতিবার সকালে মাকে মারধর করে বাড়ির সামনে সড়কের পাশে ফেলে আসেন।
গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি ) আবদুল আহাদ খান বলেন, ছেলেদের হাতে বৃদ্ধা মা এমন নির্যাতিত হবেন বিষয়টি ভাবতেও কষ্ট হয়। হাসপাতালে গিয়ে ওই বৃদ্ধার খোঁজ নিয়েছি। পাশাপাশি বৃদ্ধার এক ছেলেসহ দু’জনকে আটক করা হয়েছে। আইনী ব্যাপারে পুলিশ যা যা করার দরকার তাই করবে।



 

Show all comments
  • Mohammad Harunur Rashid ২৮ মে, ২০১৯, ২:২৬ এএম says : 0
    এমন সন্তানগো গুলি করে মারা হউক
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ আশরাফুল কবির ২৮ মে, ২০১৯, ২:২৭ এএম says : 0
    ইয়া আল্লাহ ঐসব সন্তানদের উপর তোমার গজব নাজিল করো
    Total Reply(0) Reply
  • Samshad Mustari ২৮ মে, ২০১৯, ২:২৭ এএম says : 0
    May Allah help u..
    Total Reply(0) Reply
  • Momin Ullah ২৮ মে, ২০১৯, ২:২৭ এএম says : 0
    মানুষ নামের পশু গুলার বিচার চাই। মানবতা কি হারিয়ে গিয়াছে। মা বাবা কে সন্তান দেখবে না দেখবে কে। আল্লাহ অমানুষ কে হেদায়েত দান করুন। আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • M.D. Nurul Huda Manik ২৮ মে, ২০১৯, ২:২৭ এএম says : 0
    দেশ কানাডার চেয়ে অনেক এগিয়ে গেছে ।
    Total Reply(0) Reply
  • Sana Ullah Khan Sanaullah ২৮ মে, ২০১৯, ২:২৮ এএম says : 0
    মানবতা কি হারিয়ে গিয়াছে। মা বাবা কে সন্তান দেখবে না দেখবে কে। আল্লাহ অমানুষ কে হেদায়েত দান করুন। আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী আনছারী ২৮ মে, ২০১৯, ৬:২৯ এএম says : 0
    এই ছেলেদের জন্য জান্নাত হারাম হয়ে গেছে । অবশ্যই জাহান্নাম তাদের জন্য অপেক্ষা করতেছে । ইনকিলাব প্রতিনিধি অথবা পাঠক ভাইদের মধ্য থেকে কেউ সেই অসহায় মহিলার সাথে যোগাযোগ করার ব্যাবস্তা করে দিলে ধন্যবাদ জানাব । আমি সেই মহিলার জন্য সাধ্যমত সাহায্য পাঠানোর চেষ্টা করব ইনশাল্লাহ । ধন্যবাদ সবাইকে ।
    Total Reply(0) Reply
  • মাহমুদ ২৮ মে, ২০১৯, ৭:৩৮ এএম says : 0
    আমরা এই খবর পত্রিকায় দেখলাম। এখন কি পারিনা এই বৃদ্ধা মা'র প্রতি যে যত টুকু পারি সাহায্যের হাত বাড়াতে। আর কিছু না হোউক, কমপক্ষে পবিত্র রমজান উপলক্ষে কিছু সদকা অথবা ফিতরার দ্বারাওতো সাহায্য করা যায়। আসুন না, একটু এগিয়ে আসি এই মুমূর্ষু মা'এর দিকে।
    Total Reply(0) Reply
  • sheikh abdul mukthadir siyam ২৮ মে, ২০১৯, ১১:৪৫ পিএম says : 0
    Ya-Allah, destroy them who doesn't take care them parents
    Total Reply(0) Reply
  • Jaman ১ জুন, ২০১৯, ১২:৫৬ এএম says : 0
    HSC Result 2019
    Total Reply(0) Reply
  • Ahamad Asif ১ জুন, ২০১৯, ১:০৫ এএম says : 0
    Unake kivabe help kortee parii. Kono Bkash number achee financial help korar ? Jeno at least vaat line khete pare !!
    Total Reply(0) Reply
  • Nazmul islam ২ জুন, ২০১৯, ৯:৫৬ পিএম says : 0
    সথ্যিই ভাবতে অনেক কস্ট লাগে।।মা বাবাকে সন্তানে দেখবে না তাহলে কে দেখবে? হে আল্লাহ ওদের কে হয় কঠিন শাস্তি প্রয়োগ করো না হয় হেফাযত করো,,
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ সিরাজুল ইসলাম ১৪ জুলাই, ২০১৯, ৮:৪৭ এএম says : 0
    ইয়া আল্লাহ ঐসব সন্তানদের উপর তোমার গজব নাজিল করো
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ সিরাজুল ইসলাম ১৪ জুলাই, ২০১৯, ৮:৪৭ এএম says : 0
    ইয়া আল্লাহ ঐসব সন্তানদের উপর তোমার গজব নাজিল করো
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বৃদ্ধার আকুতি
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ