Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

যানজটে অচল ঢাকা

সায়ীদ আবদুল মালিক : | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০১৯, ১২:৫৫ এএম

রমজানের শুরু থেকেই তীব্র দাবদাহ আর মাত্রাতিরিক্ত যানজটে রাজধানীবাসীর নাভিশ্বাস উঠেছে। যানজটের কারণে মাত্র দশ মিনিটের পথ অতিক্রম করতেই দেড় দুই ঘণ্টা রাস্তায় বসে থাকতে হচ্ছে। এছাড়া একযোগে চলমান বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের চলমান কাজের কারণে সরু হয়ে যাওয়া রাস্তা, যানবাহনের আধিক্য ও আগে পৌঁছানোর তাড়াই এই অসহনীয় যানজটের কারণ। সেই সঙ্গে যোগ হয়েছে ঈদের কেনাকাটা করতে মার্কেটমুখী মানুষের আধিক্য।

গতকাল বৃহস্পতিবার থেকেই ঈদে ঘরে ফেরা মানুষের যাত্রা শুরু হয়ে যায়। সকাল থেকেই ঢাকা শহরে প্রধান প্রধান সড়কগুলোসহ অলিগলির রাস্তাগুলোতেও সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। অফিস আদালতগামী মানুষের শ্রোতের সাথে যোগ হয় ঘরে ফেরা ও ঈদের কেনাকাটা করতে বের হওয়া মানুষের শ্রোত। যানজটে কারণে গাড়ি রাস্তায় আটকে যাওয়ায় একদিকে রাস্তায় যানজট অন্যদিকে পরিবহন সঙ্কটে পড়ে নগরবাসী।
রাজধানীর বিপনী বিতান, মার্কেট ও ফুটপাতে এখন চলছে ঈদ কেনাকাটা। যে কারণে বিপনী বিতান ও মাকেট কেন্দ্রীক এলাকাতে সকাল থেকেই সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজটের। আর ফুটপাতসহ রাস্তার বেশিরভাগ অংশ এখন হকারদের দখলে। এতে রাস্তায় গাড়িতো দুরের কাথা পায়েও হাঁটা যাচ্ছে না।

এদিকে রাজধানীতে প্রবেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের পথ যাত্রাবাড়ী-সায়েদাবাদে যেমন চরম দুর্ভোগ নিত্যদিনের ঘটনা তেমনি গতকাল নগরের অন্যান্য সড়কগুলোতেও তীব্র যানজটে পড়ে হাজার হাজার যানবাহন। এছাড়া পশ্চিমে গাবতলী, উত্তরে এয়ারপোর্ট রোড দিয়ে ঢাকায় প্রবেশের সময় তীব্র যানজটে পড়ে হাজার হাজার যানবাহন। মহাখালী, মগবাজার, মালিবাগ এলাকায়ও একই অবস্থা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশান, বনানী, উত্তরা এলাকা ও পান্থপথের বসুন্ধরা সিটিতে প্রচন্ড যানজটের সৃষ্টি হয়। এ ছাড়াও নিউমার্কেট এলাকার রাস্তায় যানজটে মানুষের দুর্ভোগ ছিল চরমে। ফার্মগেট, মহাখালী, গুলিস্তানের রাস্তার ওপরে দোকানপাট থাকায় যানজট চরমে ছিল। সকালে দুর্ভোগের পর বিকেলে অফিস ছুটির পর তা আবার ভয়াবহ আকার ধারণ করে। শাহবাগ, ফার্মগেট, এলিফ্যান্ট রোড, মহাখালী, খিলক্ষেত, কাকলী এলাকায় রাস্তার পাশে শত শত মানুষ ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও যানবাহন পাননি।

সচিবালয় থেকে মতিঝিল, এবং সচিবালয় হয়ে পুরান ঢাকা এলাকায় যেতে চাইলে রাস্তা যেন আর ফুরাতে চায় না। একই চিত্র মীরপুর ১ নম্বর, মালিবাগ, মগবাজার, শাহজাহানপুর, কাকরাইল, নজিমউদ্দিন রোড, সদরঘাট, চকবাজার, নিউমার্কেট, শাহবাগ, কাঁটাবন, মিটফোর্ড এলাকার। যেখানে রায়সাহেব বাজার মোড় থেকে নয়াবাজার মোড় পর্যন্ত হেঁটে যেতে সময় লাগে দুই থেকে তিন মিনিট সেখানে গাড়িতে যেতে সময় লাগে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক মোজাম্মেল বলেন, ঢাকার বেশিরভাগ মার্কেটে গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা নেই। যেগুলোতে আছে সেখানেও জায়গাও অনেক কম। ফলে ফুটপাথে গাড়ি রাখছেন সবাই, তৈরি হচ্ছে যানজট। লোকজনের সচেতনতার অভাবে এই সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করছে।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যানজট

৮ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন