Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

ট্রাম্প ইরানে সরকার পরিবর্তন করতে চান না : জন বোল্টন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

বলপ্রয়োগ করে হলেও ইরানের ইসলামি শাসনব্যবস্থা উল্টে দেয়ার দাবিদার মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অতীতে ইরানের সরকার পরিবর্তন করতে চাননি এবং এখনো চান না। ট্রাম্পের আসন্ন ব্রিটেন সফরের প্রস্তুতি পরিদর্শনে লন্ডনে গিয়ে বৃহস্পতিবার একথা বলেন বোল্টন। তিনি স্কাই নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে দাবি করেন, ট্রাম্প শুধু এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে চান যে, ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরি করছে না। বোল্টন এমন সময় এ দাবি করলেন যখন ২০১৫ সালে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের পরমাণু সমঝোতা স্বাক্ষরের প্রধান লক্ষ্য ছিল এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যে, ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরির চেষ্টা করছে না। ইরানের পক্ষ থেকে এ ধরনের অভিযোগ নাকচ করে দেয়া সত্তে¡ও পাশ্চাত্য বারবার একই অভিযোগ করার পর দীর্ঘদিনের আলোচনা শেষে পরমাণু সমঝোতা সই হয়। অপরদিকে, ইরানের পক্ষ থেকে মার্কিন অবস্থানগুলোতে হামলার আশঙ্কা এখনও শেষ হয়ে যায়নি বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন। তার দাবি, মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক উপস্থিতি বৃদ্ধি করার ফলে সে আশঙ্কা অনেকাংশে কমে গেলেও শেষ হয়ে যায়নি। যুক্তরাজ্য সফররত জন বোল্টন বৃহস্পতিবার স্কাই নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন। ইরানের সরকার পরিবর্তনের কোনো ইচ্ছা যুক্তরাষ্ট্রের নেই জানিয়ে বোল্টন বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অতীতে ইরানের সরকার পরিবর্তন করতে চাননি এবং এখনও চান না। ট্রাম্প শুধু এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে চান যে, ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরি করছে না। চলতি সপ্তাহেই ইরানের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত সোমবার টোকিওতে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ইরান-যুক্তরাষ্ট্রের চলমান সংকট প্রসঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, ইরানে শাসনব্যবস্থায় পরিবর্তন চায় না যুক্তরাষ্ট্র। তবে ইরান পরমাণু অস্ত্র তৈরির চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এর প্রতিক্রিয়ায় ইরান কোনো ধরনের পরমাণু অস্ত্র তৈরি করছে না দাবি করে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেছেন, ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি বহু বছর আগেই পরমাণু অস্ত্র তৈরি, সংরক্ষণ ও ব্যবহার ‘হারাম’ বা ধর্মীয়ভাবে নিষিদ্ধ বলে ফতোয়া দিয়েছেন। ইরান সরকার সর্বোচ্চ নেতার এ ফতোয়া মান্য করছে। জন বোল্টন লন্ডনে দেয়া তার সাক্ষাৎকারে আরো দাবি করেন, ইরানের পক্ষ থেকে মার্কিন অবস্থানগুলোতে হামলা চালানোর আশঙ্কা এখনো একেবারে শেষ হয়ে যায়নি। তবে মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সামরিক উপস্থিতি শক্তিশালী করার ফলে সে আশঙ্কা অনেকাংশে কমে গেছে। বোল্টন এমন সময় এ দাবি করলেন যখন ইরান বারবার বলেছে, আমেরিকার সঙ্গে যুদ্ধে জড়ানোর কোনো ইচ্ছা তেহরানের নেই। একইসঙ্গে ইরান হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছে, আক্রান্ত হলে আগ্রাসী বাহিনীকে কঠোর জবাব দেয়া হবে। পার্সটুডে।



 

Show all comments
  • Md. Ibrahim ১০ জুন, ২০১৯, ৯:৪৯ পিএম says : 0
    যুদ্ধ এড়াতে যুদ্ধের প্রস্তুতির কোন বিকল্প নেই। উঃ কোরিয়াই সঠিক।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ