Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯, ০১ শ্রাবণ ১৪২৬, ১২ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

মৌলভীবাজারে শিশু অপহরণের পর ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী

পুলিশ ৫ ঘণ্টার মধ্যে শিশুকে উদ্ধার করে

মৌলভীবাজার জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ জুন, ২০১৯, ৬:৩৯ পিএম

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া থেকে অপহৃত অঙ্কুর কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী মাহাদি অমিকে পুলিশ উদ্ধার করেছে। পরিবারের সদস্যরা সাথে সাথে অপহরণের বিষয়টি পুলিশকে জানান এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দ্রত অপহরণের বিষয়টি ছড়িয়ে দেন।
শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় মৌলভীবাজার মডেল থানায় সংবাদ সম্মেলন করে মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রাশেদুল ইসলাম জানান। ‘শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কুলাউড়া থানা মসজিদে নামাজ শেষে বের হওয়ার পর অমিকে একটি মাইক্রোবাস করে অপহরণ করা হয়। অপহরণকারীরা পরিবাবের কাছে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শ্রীমঙ্গল উপজেলার হাওর এলাকার একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে অভিযান চালিয়ে অপহৃত শিশু অমিকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় তিন অপহরণকারীকেও আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন কুলাউড়া পৌর শহরের জয়পাশা আবাসিক এলাকার শাহজাহান মিয়ার ছেলে হৃদয় আহমেদ (২৭), সিলেট জেলার বিয়ানী বাজার মোল্লারপুর গ্রামের নিজাম আহমদের ছেলে রেদোয়ান আহমেদ (২৭) ও কুলাউড়া উপজেলার দানাপুর গ্রামের মৃত তবারক আহমদের ছেলে কামরুল ইসলাম (১৭। অপহৃত মাহাদি অমি উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিয়নের মো. আব্দুল হাসিমের ছেলে। বর্তমানে তারা পৌর শহরের মাগুরায় বসবাস করছেন। অমি অঙ্কুর কিন্ডার গার্ডেন স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

প্রতিকূল আবহাওয়ার মধ্যেই শ্রীমঙ্গল উপজেলার হাওর এলাকার একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে অভিযান চালিয়ে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার করা হয়। তার নেতৃত্বে এই অভিযানে অংশ নেন কুলাউড়া থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান ও ওসি (তদন্ত) সঞ্জয় চক্রবর্তী।’ তিনি আরও জানান অপহৃত ওই শিশুকে উদ্ধার করে তার বাবার কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। আটকদের বিরুদ্ধে থানায় মামলার দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। সংবাদ উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আলমগীর হোসেনসহ সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্তকর্তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অপহরণ


আরও
আরও পড়ুন