Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

২নম্বর সতর্ক সংকেত নদী বন্দরে

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২ জুন, ২০১৯, ৬:১০ পিএম

বহু প্রতিক্ষিত স্বস্তির বৃষ্টিতে রবিবার বরিশালে ছুটির দিনের ঈদ বাজারে কিছুটা বিঘœ ঘটলেও প্রশান্তি নেমে এসেছে ক্রেতা-বিক্রেতা সহ সবার মাঝে। তবে আবহাওয়অ বভাগ থেকে বরিশাল সহ দক্ষিনের সব নদী বন্দরগুলোতে দুই নম্বর সতর্ক সংকেত জারী করায় অনধীক ৬৫ ফুট দৈর্ঘের সব যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। রাত ১টা পর্যন্ত এ হুশিয়ারী জারী হয়েছে। গত তিনমাস ধরে স্বাভাবিকের কম বৃষ্টিপাতের পড়ে রবিবারের এ বর্ষন আউশ সহ মাঠে থাকা বিভিন্ন ফসলের জন্যও যথেষ্ঠ অনুকুল বলে মনে করছেন কৃষিবীদগন। গোটা পরিবেশকেও শিক্ত করেছে রবিবারের এ বৃষ্টি।
আবহাওয়া বিভাগ থেকে লঘুচাপের বর্ধিতাংশ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানের কথা জানিয়ে বরিশাল সহ উপক’লীয় এলাকায় বজ্র সহ বৃষ্টিপাতের সম্ভবনার জানান দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি মাদারীপুর সহ দক্ষিণাঞ্চলে চলমান তাপ প্রবাহ হৃাসের সুসংবাদ দিয়ে রাতের তাপমাত্রা হৃাস ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকার কথাও জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ।
ঈদকে সামনে রেখে আবহাওয়া পরস্থিতির ওপর নজর রাখছে নৌ-পরিবহন মন্ত্রনালয় ও বিআইডব্লিউটিএ। গত ৩০মে থেকেই রাজধানী ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রাম অঞ্চল থেকে চাঁদপুর ও লক্ষ্মীপুর হয়ে দক্ষিণাঞ্চলের ঘরমুখি মানুষের শ্রোত শুরু হয়েছে। এবারের ঈদের আগে পড়ে প্রায় দশলাখ মানুষ ঢাকা ও চট্টগ্রাম অঞ্চল থেকে বরিশাল সহ দক্ষিণাঞ্চলে যাতায়াত করবে। আর এ কারনেই যেকোন বৈরী আবহাওয়া নিয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ আবহাওয়া বিভাগেরও।
এদিকে লাগাতর মৃদু থেকে মাঝারী তাপ প্রবাহের পরে গত দিন তিনেক ধরেই বরিশাল সহ দক্ষিনাঞ্চলের আবহাওয়ায় কিছুটা পরিবর্তন লক্ষনীয় ছিল। সকালের দিকে হালকা ঠান্ডা বাতাসের সাথে কিছুটা মেঘলা আকাশ পরিবেশকে শীতল করলেও বৃষ্টির দেখা মিলছিলনা। তবে দীর্ঘ প্রতিক্ষার পরে রবিবার একইভাবে শীতল হাওয়ার সাথে উত্তর-পূবের ঘনকালো মেঘ এসে বরিশাল মহানগরী সহ জেলার বিভিন্নস্থানে বৃষ্টি ঝড়িয়েছে। সকাল সাড়ে ১১টার পরে হালকা এ বৃষ্টিপাত দুপুর ১২টা পর্যন্ত দশমিক ৫০ মিলিমিটারে সীমাবদ্ধ ছিল। তবে এরপর থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত বরিশালে আরো প্রায় ১৮ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।
জৈষ্ঠে মাঝের এ বৃষ্টিপাতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পারদ আগের দিনের ৩৪.৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস থেকে রবিবার দুপুর ৩টায় ৩৩.৮ ডিগ্রী সেলসিয়াসে হৃাস পায়। বিকেল থেকে সন্ধার দিকে তাপমাত্রার পারদ আরো নামছিল। রবিবার ঘন্টা দেড়েকের এ হালকা থেকে মাঝারী বর্ষনে বরিশাল মহানগরীতে ঈদের বাজারে সাময়িক ক্রেতা সমাগম হৃাস পেলেও দুপুর ২টা থেকে আবার ভীড় বাড়তে থাকে। হালকা শীতল অবহাওয়ায় নারী ও শিশু সহ সবাই অনেকটা প্রান খুলে ঘুরে বেড়াচ্ছেন মহানগরীর ঈদ বাজারে। খুশি ক্রেতা-বিক্রেতা সবাই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন