Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

রোহিতের সেঞ্চুরিতে ভারতের জয়

আইসিসি বিশ্বকাপ ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ জুন, ২০১৯, ১১:২৫ এএম | আপডেট : ২:৫৫ এএম, ৬ জুন, ২০১৯

রোহিত শর্মার হার না মানা ১২২ রানে ভর করে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে ভারত। বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচেই জয় তুলে নিল ভারত। অন্যদিকে টানা তৃতীয় হারে সেমির দৌড় থেকে অনেকটা ছিটকে পড়লো দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাটে-বলে আধিপত্য বিস্তার করে শুরু থেকেই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে আড়াল করে রেখেছে ভারত। ভারতের পরের ম্যাচ অস্টেলিয়ার বিপক্ষে, জুনের ৯ তারিখে। আর দক্ষিণ আফ্রিকার পরের ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১০ জুন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

দক্ষিণ আফ্রিকা: ২২৭/৯ (৫০ ওভার) (আমলা ৬, ডি কক ১০, ডু প্লেসিস ৩৮, ডুসেন ২২, মিলার ৩১, ডুমিনি ৩, ফেলকায়ো ৩৪, মরিস ৪২, রাবাদা ৩১* তাহির ০; ভুবেনেশ্বর ৪৪/২, বুমরাহ ৩৫/২, পান্ডিয়া ৩১/০, কুলদীপ ৪৬/১, চাহাল ৫১/৪, যাদব ১৬/০)

ভারত: ২৩০/৪ (৪৭.৩ ওভার) (ধাওয়ান ৮, রোহিত ১২২*, কোহলি ১৮, রাহুল ২৬, ধোনি ৩৪, পান্ডিয়া ১৫*; তাহির ৫৮/০, রাবাদা ৩৯/২, মরিস ৩৬/১, ফেলকায়ো ৪০/১, শামসি ৫৪/০)

ফল : ভারত ৬ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরা: রোহিত শর্মা

ধোনিকে ফেরালেন মরিস

মরিসের বলে তারই হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন ধোনি (৩৪)। অবশ্য দলকে জয়ের একদম দ্বারপ্রান্তে এনে দিয়েই তিনি প্যাভিলিয়নের পথ ধরলেন। রোহিত শর্মা ১২২ ও পান্ডিয়া ৯ রানে অপরাজিত আছেন। জয়ের জন্য প্রয়োজন আর মাত্র ৫ রান।

স্কোর-৪৭ ওভারে ২২৩/৪।

রোহিতের সেঞ্চুরিতে জয়ের পথে ভারত

বিশ্বকাপে ব্যাক্তিগত দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিলেন রোহিত শর্মা। এবারের বিশ্বকাপে সবমিলিয়ে এটি তৃতীয় সেঞ্চুরি। তিনি ১০০ রানে অপরাজিত আছেন। তার সঙ্গে ধোনি অপরাজিত আছেন ১৯ রানে। জয়ের জন্য ৫৪ বলে ৫২ রান প্রয়োজন ভারতের। হাতে আছে ৭টি উইকেট।

স্কোর-৪১ ওভারে ৩ উইকেটে ১৭৬ রান।

রাহুলকে ফেরালেন রাবাদা

রোহিত-রাহুলের ৮৫ রানের জুটি ভাঙেন রাবাদা। ব্যক্তিগত ২৬ রানে ডু প্লেসিসের তালুবন্দী করে রাহুলকে মাঠছাড়া করেন রাবাদা। রোহিত ৮৩ রানে এবং ধোনি ১ রানে অপরাজিত আছেন। জয়ের জন্য আরও প্রয়োজন ৮৫ রান।

স্কোর-৩২ ওভারে ৩ উইকেটে ১৩৯ রান।

রোহিত-রাহুলে ঠিকপথে হাঁটছে ভারত

দলীয় ৫৪ রানে অধিনায়ক কোহলির বিদায়ের পর ভারতকে শক্ত অবস্থানে নিয়ে যাচ্ছেন রোহিত ও রাহুল। রোহিত ৬৯ রানে এবং রাহুল ২৪ রানে অপরাজিত আছেন। জয়ের জন্য আরও প্রয়োজন ১০৫ রান। হাতে আছে ৮টি উইকেট।

দলীয় সংগ্রহ ২৯ ওভারে ২ উইকেটে ১২৩ রান।

কোহলির বিদায়ে চাপ ভারত

ছোট রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতে ধাওয়ানের পর এবার অধিনায়ক কোহলিও ফিরে গেলেন। ফেলকায়োর বলে আউট হওয়ার আগে ১৮ রান করেন তিনি। রোহিতের (৩৩*) সঙ্গে ক্রিজে আচে কে এল রাহুল (২*)।

স্কোর-১৭ ওভার শেষে ৬২/২।

ধাওয়ানকে ফিরিয়ে দিলেন রাবাদা

ছোট রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে সুরবধা করতে পারছে না ভারত। ৫.১ ওভারে ১৩ রান তুলতেই নেই ধাওয়ানের উইকেট। এই ওপেনার ৮ রান করে রাবাদার বলে ক্যাচ আউট হয়ে ফেরত যান। রোহিতের সঙ্গে ব্যাট করতে নেমেছেন কোহলি।

স্কোর-৫.১ ওভারে ১ উইকেটে ১৩ রান।

ভারতের লক্ষ্য ২২৮ রান

শেষদিকে মরিস, রাবাদা ও ফেলকায়োর ত্রিশোর্ধ্ব সংগ্রহে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২২৭ রান করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম সারির ব্যাটসম্যানরা কার্যকর ভূমিকা পালন করতে না পারায় ছোট সংগ্রহেই আটকে যেতে হেয় তাদের।

হাল ধরেছেন মরিস-রাবাদা

দ্রুত রান তুলছেন মরিস (৩৩*)। তাকে সঙ্গ দিয়ে নিজেও রান তুলছেন রাবাদা (১৩*)। এই দুই ব্যাটসম্যান যোগ করেছে ৪২ রান।

স্কোর-৪৬ ওভারে ২০০/৭।

চাহাল ম্যাজিকে ফিরলেন ফেলকায়ো

দলের প্রয়োজন বুঝে খেলছিলেন ফেলকায়ো। কিন্তু যখন রান বাড়ানোর দরকার, তখন আর পারলেন না। চাহালের বলে স্ট্যাম্পিং হয়ে ফিলে গেলেন তিনি। তিনি আউট হওয়ার আগে ৩৪ রান করেন।

স্কোর-৩৯.৩ ওভারে ১৫৮/৭।

মিলারকে ফিরিয়ে দিলেন চাহাল

মিলার-ফেলকায়ো জুটিতে ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ডুমিনির বিদায়ের পর এই দুই ব্যাটসম্যান ৪৬ রান যোগ করে। ঠিক তখনই জ্বলে উঠলেন চাহাল। মিলারকে ব্যক্তিগত ৩১ রানে আউট করেন এই লেগ স্পিনার। বলে করে ফলোথ্রুতে নিজেই ক্যাচ ধরেন চাহাল। এরসঙ্গে ভেঙে গেল মিলারের প্রতিরোধ। ১৩৫ রানে ছয় নম্বর উইকেটটি হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা। ফেলকায়ো (২২*) ও মরিস (৩*) রানে ব্যাট করছেন।

স্কোর-৩৬ ওভারে ১৩৮/৬।

দলকে আরও বিপদে ফেললেন ডুমিনি

দলের বিপর্যয়ের সময় খুব বেশি প্রয়োজন ছিলো ডুমিনির (৩) একটি বড় সংগ্রহ। কিন্তু ২৩তম ওভারে কুলদীপের বলে ঠিকমতো ব্যাটে বলে মেলাতে পারছিলেন না তিনি। তারপর ওভারের শেষ বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরত যান এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। অবশ্য নিজের উইকেট বাঁচাতে একটি রিভিউও ব্যয় করেন তিনি। তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি। দলীয় ৮৯ রানে আউট হন ডুমিনি। ক্রিজে মিলারের (১৪*) সঙ্গে ব্যাট করছেন ফেলকায়ো (৭*)।

দলীয় সংগ্রহ ২৫ ওভারে ৫ উইকেটে ১০৩ রান।

চাহালের জোড়া আঘাতে ধুঁকছে দক্ষিণ আফ্রিকা

ভারতের বিপক্ষে ভালো খেলার সুখ্যাতি আছে আমলা ও ডিককের। কিন্তু তাদের কেউই আজ কিছু করতে পারলেন না। দলীয় ২৪ রান দুই ওপেনার কে হারিয়ে ধুঁকতে থাকা প্রোটিয়া দলকে আশা দেখাচ্ছিলেন অধিনায় ডুপ্লেসিস ও ডুসেন জুটি। কিন্তু চাহালের ঘুর্ণি বল মোকাবেলা করতে গিয়ে এক ওভারের ব্যবধানে আউট হয়ে যান এই দুই ব্যাটসম্যান। ২০তম ওভারের প্রথম বলে বোল্ড হয়ে যান ডুসেন (২২)। একই ওভারের শেষ বলে ক্লিন বোল্ড হয়ে ফিরে যান ডু প্লেসিস (৩৮)। এই দুই উইকেট পতণের ফলে ম্যাচ থেকে অনেকটা ছিটকে পড়লো দক্ষিণ আফ্রিকা। ডেভিড মিলার ১ রানে ও ডুমিনি ০ রানে অপরাজিত আছেন।

২০ ওভার শেষে স্কোর ৪ উইকেটে ৮০ রান।

আমলা-ডি কককে ফিরিয়ে দিলেন বুমরাহ

ইনিংসের চতুর্থ ওভারেই জসপ্রিত বুমরার বলে দ্বিতীয় স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফিরে গেলেন আমলা। তিনি মাত্র ৬ রানই সংগ্রহ করতে পেরেছেন। দলীয় ১১ রানে ১ম উইকেটের পতণ ঘটলো প্রোটিয়াদের। কুইন্টন ডি ককও টিকতে পারলেন না বেশিক্ষণ। বুমরার স্পেলের পরের ওভারেই মাত্র ১০ রান করে ফিরে যান তিনি। ২৪ রানের মাথায় দুই উইকেট হারালেঅ দক্ষিণ আফ্রিকা। অধিনায়ক ডু প্লেসিসের (৭*) সঙ্গে ব্যাটিং করতে নেমেছেন ডুসেন (২*)।

৬ ওভার শেষে দলীয় সংগ্রহ ২ উইকেটে ২৬ রান।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা

দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ডু প্লেসিস টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। প্রোটিয়া দলে আজ ফিরেছেন হাশিম আমলা এবং তাবরাইজ শামসি। অন্যদিকে মরিস এবং ফেলকায়ো দুজনকেই খেলাচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা। মারক্রাম দলের মূল একাদশ থেকে বাদ পড়েছেন। টস হারা বিরাট কোহলি ভুবেনেশ্বর কুমার ও জসপ্রিত বুমরাকে রাখছেন পেস আক্রমনে। বাদ পড়েছেন মোহাম্মদ শামি। স্পিন আক্রমনে তার ভরসা কুলদীপ ও চাহালে। বিরাট কোহলি বলেছেন, ‘দর্শক সমর্থনই আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় সাহস।’

দক্ষিন আফ্রিকা স্কোয়াড: হাশিম আমলা, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), ফাফ ডু ফ্লেসিস (অধিনায়ক), র‌্যাসি ভ্যান দার ডুসেন, ডেভিড মিলার, জেপি ডুমিনি, আন্দিলে ফেলকায়ো, ক্রিস মরিস, কাগিসু রাবাদা, ইমরান তাহির, তাবরাইজ শামসি।

ভারত স্কোয়াড: রোহিত শর্মা, শেখর ধাওয়ান, বিরাট কোহলি, কে এল রাহুল, কেদার জাদব, মহেন্দ্র সিং ধোনি (উইকেটরক্ষক), হার্ডিক পান্ডিয়া, ভুবেনেশ্বর কুমার, কুলদীপ যাদব, যুগবেন্দ্র চাহাল, জসপ্রিত বুমরা।

ফেভারিট হয়েই মাঠে নামছে ভারত

বাংলাদেশী ক্রিকেট ভক্তদের কাছে সবচেয়ে অপছন্দের দল কোনটি? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে খুব বেশি বেগ পেতে হবে না। উত্তর একেবারেই সহজ। তা হলো-ভারত। আজ সেই ভারতের মুখোমুখি দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্বকাপে এই ম্যাচ দিয়ে ভারতের যাত্রা শুরু হলেও দক্ষিণ আফ্রিকার তৃতীয় ম্যাচ। প্রথম দুই ম্যাচে হারে জয়ের জন্য মরিয়া প্রোটিয়ারা। অন্যদিকে আত্মবিশ্বাসে টগবগে ভারত। টানা দুটো ম্যাচ হেরে দিশাহারা দক্ষিণ আফ্রিকা দলে চোট সমস্যাটাও প্রকট আকার ধারন করেছে। স্টেইন, এনগিডির মতো খেলোয়াড়রা থাকবেন মাঠের বাইরে। চলতি বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে তাই খেলতে নামার আগেই বিরাট কোহালির দলকে ফেভারিট মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

পরিসংখ্যানে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা:

বিশ্বকাপের ৮ম ম্যাচে সাউদহ্যাম্পটনে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে দুপুর সাড়ে তিনটায়। দু’দলের সবশেষ পাঁচ দেখায় ভারত জিতেছে ৪টি ম্যাচে এবং দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছে ১টি ম্যাচে। সাম্প্রতিক ফর্মে যোজন যোজন দূরত্বে এগিয়ে আছে ভারত। অথচ পরিসংখ্যানের আরেকটি পাল্লা এগিয়ে রাখছে প্রোটিয়াদের।

ওয়ানডেতে:

ম্যাচ: ৮৩

দক্ষিণ আফ্রিকা জয়ী: ৪৬

ভারত জয়ী: ৩৪

পরিত্যক্ত: ৩

বিশ্বকাপে:

দক্ষিণ আফ্রিকা জয়ী: ৩

ভারত জয়ী: ১



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আইসিসি বিশ্বকাপ ২০১৯


আরও
আরও পড়ুন