Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ০৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

বগুড়া বিএনপিতে বিদ্রোহের অবসান, তালা খুলেছে অফিসের

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৬ জুন, ২০১৯, ৭:২২ পিএম

দীর্ঘ তিন সপ্তাহ ধরে তালাবদ্ধ বিএনপি অফিসের তালা খোলা হয়েছে । ঈদের পরদিন বৃহষ্পতিবার বগুড়া জেলা বিএনপির নব গঠিত আহ্বায়ক কমিটির বিরুদ্ধে যে তরুণ নেতারা রীতিমত বিদ্রোহ করে অফিস তালাবদ্ধ করে রেখেছিল তারা নিজেরাই অফিসের তালা খুলে দিয়ে কোলাকুলির মাধ্যমে নিজেরা ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছে। সেই সাথে ঐক্যবদ্ধভাবে বগুড়া সদরের আসন্ন সংসদ উপনির্বাচনে দলের প্রার্থী এবং বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক জিএম সিরাজের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার ঘোষনাও দিয়েছেন ।
উল্লেখ্য, মে মাসের ১৫ তারিখে বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষনার পর থেকেই বগুড়া বিএনপির তরুণ তুর্কি হিসেবে পরিচিত নেতাদের মধ্যে শাহ মেহেদী হাসান হিমু, পরিমল চন্দ্র দাস, দেলওয়ার হোসেন পশারী হিরু, তৌহিদুল ইসলাম বিটু ও যুবদল নেতা মাসুদের নেতৃত্বে বিদ্রোহী নেতা কর্মিরা দলীয় অফিস তালাবদ্ধ করে রাখে । গত তিন সপ্তাহে নব গঠিত আহ্বায়ক কমিটি ও বিদ্রোহী বিএনপি মিলে মোট ১৬টি তালা লাগানো হয় বিএনপি অফিসে ।
বিএনপির এই আভ্যন্তরীণ দ্বন্দের জেরে ৪ মে বগুড়া শহরের প্রাণকেন্দ্র সাত মাথায় ধানের শীষের প্রচারণা মিছিলে ছাত্রলীগের লাঠি পেটায় জেলা ছাত্রদল সভাপতি আবু হাসান রক্তাক্ত জখম হন। প্রভাবশালী বিএনপি নেতা ও সাবেক এমপি হেলালুজ্জামান লালু এমপি সহ বিএনপির সিনিয়র নেতারাও এই ঘটনায় লজ্জাজনকভাবে নাজেহাল হন ।
মিডিয়ায় এই সংবাদ ও ছবি প্রচারের পর সবকিছু জানার লন্ডন প্রবাসী তারেক রহমান জিএম সিরাজ ও বিদ্রোহী নেতাদের কাছে সব কিছু মিটিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ নির্দেশনা দিলে বিদ্রোহের অবসান ঘটে। ঘটনার নিষ্পত্তির পেছনে জিএম সিরাজের ‘ লিডারশীপ ম্যাজিক‘ ও কাজ করেছে বলে একটি সুত্র জানিয়েছে।
অফিসের তালা খোলার পর সদ্য বিলুপ্ত জেলা যুবদলের সভাপতি শিপার আল বখতিয়ার , শাহ মেহেদী হাসান হিমু, পরিমল চন্দ্র দাস, দেলওয়ার হোসেন পশারী হিরু , তৌহিদুল ইসলাম বিটু প্রমুখ দল ও দলের পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার ঘোষনা দেওয়ায় বিএনপির সর্বস্তরে বিশেষ স্বস্তির ভাব লক্ষ্য করা গেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি


আরও
আরও পড়ুন