Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ সফর ১৪৪১ হিজরী

পশ্চিম তীরের ওপর ইসরাইলের অধিকার রয়েছে -ফ্রিডম্যান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ জুন, ২০১৯, ৭:৫৭ পিএম

পশ্চিম তীরের কিছু অংশ দখলের অধিকার ইসরাইলের রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জেরুজালেমে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ডেভিড ফ্রিডম্যান। তার এ মন্তব্যের পর ফিলিস্তিনিদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র অসন্তোষ। শনিবার নিউ ইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত তার এক সাক্ষাৎকারে ইসরাইলের পক্ষে এমন সাফাই গেয়েছেন ফ্রিডম্যান। সূত্র ঃ আল-জাজিরা।
ফিলিস্তিনকে নিয়ে কথিত শতাব্দীর সেরা চুক্তি প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে এ নিয়ে এ অঞ্চলের রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। ধারণা করা হচ্ছে, ফ্রিডম্যানের এমন মন্তব্যের পর এই উত্তেজনা আরো বৃদ্ধি পাবে। এর আগে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ এই শান্তি প্রক্রিয়া প্রত্যাখ্যান করে। একইসঙ্গে এমন চুক্তি চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করায় ট্রাম্প প্রশাসনকে ভয়াবহ রকমের পক্ষপাতদুষ্ট হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। ইসরাইলে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতের এই মন্তব্যের পর ফিলিস্তিনিরা একে শান্তি প্রক্রিয়ার কফিনে আরেকটি পেরেক হিসেবে দেখছেন।
আল-জাজিরা জানিয়েছে, এখনই বেশিরভাগ ফিলিস্তিনি মনে করেন শান্তি প্রক্রিয়া লাইফ সাপর্টে আছে। ওই সাক্ষাৎকারে ফ্রিডম্যান বলেন, বর্তমানে যে পরিস্থিতি বিরাজ করছে আমার ধারণা ইসরাইল পুরোটা না হলেও পশ্চিম তীরের কিছু অংশ দখলের অধিকার রাখে। এর জবাবে ফিলিস্তিনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা সাইব ইরিকাত বলেন, এ ধরনের মন্তব্য ইসরাইলের ঔপনিবেশিক পরিকল্পনাকেই সমর্থন করে। ফ্রিডম্যানের মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের (পিএলও) কার্যনির্বাহী সদস্য হানান আশরায়ি। তিনি আল জাজিরাকে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ইসরাইলের দস্যুতাকে সমর্থন করছে। উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরাইল যুদ্ধে আরবদের পরাজিত করে পশ্চিম তীর দখল করে নেয় ইসরাইল। এরপর থেকে মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়ার কেন্দ্রে ছিল পশ্চিম তীর ইস্যু। সূত্র ঃ আল-জাজিরা ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরাইল


আরও
আরও পড়ুন