Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৯, ০২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

আন্দোলনের ডাক দিয়ে বিএনপি ঘরে বসে হিন্দি সিরিয়াল দেখে

সচিবালয়ে ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

আন্দোলনের ডাক দিয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীরা ঘরে বসে হিন্দি সিরিয়াল দেখতে থাকেন বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

গতকাল সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক নানা ইস্যুতে গণমাধ্যমের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এমন মন্তব্য করেন। ‘বিএনপি দাবি করেছে রাজনৈতিক পরিবেশ ছিল না তাই তাদের নেতারা এলাকায় যেতে পারেনি’- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এসব ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি অভিযোগ করেন করেন মওদুদ আহমেদ। তিনি তো এবার এলাকায় ছিলেন। তিনি কি কোনো অভিযোগ করেছেন? এবার এ রকম কোনো পরিবেশগত সমস্যা কোথাও ছিল না দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা বিরোধী দলের একটা সুবিধা। ইচ্ছা হলেই তারা এলাকায় যান না। আর পরিবেশের অভিযোগ তোলেন।

গতকাল একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে বিএনপির সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়ে ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেছেন এ সংসদ অবৈধ- এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সংসদ যদি অবৈধ হয়, তিনি অবৈধ সংসদের অবৈধ সদস্য কি-না। যে সংসদ অবৈধ, সে সংসদের সদস্য হওয়ার জন্য তিনি এত সিরিয়াস হলেন কেন? সংসদ অবৈধ হলে তিনি কি বৈধ? কোন বৈধতার সূত্রে তিনি সংসদে গেলেন?
তিনি আরও বলেন, সংসদ নিয়ে বিএনপির স্ব-বিরোধিতা পরিষ্কার। পার্টির মহাসচিব নির্বাচিত হয়েও শপথ নিলেন না। তার জায়গায় আবার বিএনপির জেলা সভাপতি উপ-নির্বাচন করছেন। এই নীতি নিয়ে যারা চলেন, তারা অতীতেও আন্দোলনে ব্যর্থ হয়েছেন, আগামীতে ব্যর্থ হবেন।
এ রকম স্ব-বিরোধিতা যাদের, তারা যে আন্দোলন বা নির্বাচনে সফল হবেন, এটা তারা আশা করেন কীভাবে? তারা গণতন্ত্রের কথা বলে, এটা কোন গণতন্ত্র। আমার ইচ্ছা, সাহেব হয়ে যায় বিবি, বিবি হয়ে যায় সাহেব। এটা কোন গণতন্ত্র।

অপর এক প্রশ্নে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের নেতারা তৃণমূলে যাচ্ছেন কি-না বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।
পরিবহন খাতে জনস্বার্থ যেন জিম্মি না হয় সে বিষয়ে সবার সহযোগিতা চেয়ে ওবায়দুল কাদের। বলেন, পরিবহন খাতে জনস্বার্থ যাতে জিম্মি না হয় সে চেষ্টা করছি। এ জন্য জনমত গড়ে তুলতে হবে। সড়কে শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, রাস্তায় শৃঙ্খলার সঙ্কট রয়েছে। সড়কে শৃঙ্খলা আনতে না পারলে কোনো পরিকল্পনা কাজে আসবে না। আমরা সে লক্ষ্যে কাজ করছি। আশা করছি আমরা পরিকল্পনা অনুযায়ী শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে পারব।

তিনি বলেন, মালিক-শ্রমিকের অসন্তোষের কারণেই সড়ক ও পরিবহন আইন করা যাচ্ছে না। মালিক-শ্রমিকের প্রতিবাদ বা আন্দোলন বাজে রকমের হয়েছে। এতে সাধারণ মানুষ অনেক অপমানিত হয়েছে। তারা এ অন্দোলনটি চরম জায়গায় নিয়ে গেছে। পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের আন্দোলন রাতারাতি ডান্ডা মেরে ঠান্ডা করা যায় না। এ বিষয়ে কাজ করা হচ্ছে। আইনে নতুন কোনো কিছু যোগ করা যায় কি না তা নিয়ে স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।
গতবারের তুলনায় এবার ঈদে দুর্ঘটনা কম, কিন্তু মৃত্যুর হার বেশি বলেও জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, লং রুটে ড্রাইভিং ও রাস্তার পাশে যানবাহন রাখায় দুর্ঘটনা ও দুর্ভোগ বেশি হয়।

সেতুমন্ত্রী বলেন, সড়ক ও পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা বড় চ্যালেঞ্জ। সেখানে রাজধানীর সড়ক ও পরিবহন খাতে শৃঙ্খলায় করণীয় বের করা হবে। রাইড শেয়ারিংয়ে জালিয়াতির অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান মন্ত্রী।
গ্রেফতারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে পালিয়ে যাওয়া সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের বিষয়ে কাদের বলেন, একটা লোক পলাতক হলে তাকে অ্যারেস্ট করা কষ্টকরই হয়। তবে তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টার কোনো ত্রুটি নেই। শিগগিরই হয়তো ধরা পড়বে এবং তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।#



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওবায়দুল কাদের


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ