Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

সুপ্রিম কোর্টের ভর্ৎসনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জুন, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সরকারকে ভৎর্সনা করে জেল বন্দি সাংবাদিক প্রশান্ত কানোজিয়াকে দ্রুত মুক্তি দিতে নির্দেশ দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। গতকাল মঙ্গলবার এই নির্দেশ দিয়ে কি কারণে এবং কোন ধারায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে সেটাও রাজ্য সরকারের কাছে জানতে চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

ভাবমূর্তি ‘কালিমালিপ্ত’ করার অভিযোগে উত্তরপ্রদেশ সরকার গত ১১ দিন ধরে সাংবাদিক প্রশান্তকে বন্দি করে রেখেছে। তার গ্রেফতারি অবৈধ এবং অগণতান্ত্রিক, এই অভিযোগ তুলে জরুরি ভিত্তিতে তার মুক্তির আবেদন নিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তার স্ত্রী জাগিশা অরোরা। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিচারপতি অজয় রস্তোগির অবকাশকালীন বেঞ্চ মামলাটি উঠলে উত্তরপ্রদেশ সরকারকে রীতিমতো ভৎর্সনা করে বলেন, এমন একটা মামলার জন্য ১১ দিন ধরে কাউকে রিমান্ডে রাখা হয়েছে, এ রকম কখনো শুনেছেন? দিনের পর দিন জেলে বসে থাকবে আর নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে যাবে? এটা ঠিক পদ্ধতি নয়। এর পাশাপাশি আদালত এটাও জানিয়েছে, টুইটে যেটা পোস্ট করা হয়েছে সেটাও কাম্য নয়। তবে, কাউকে গ্রেফতারের কারণ এটা হতে পারে না!

আদালতে প্রশান্তের জামিনের বিরোধিতা করে যোগীর সরকার। আদালতকে তারা জানায়, প্রশান্তের টুইটার প্রোফাইল পরীক্ষা করার পর দেখা গিয়েছে ধর্ম এবং দেব-দেবী নিয়ে নানা উস্কানিমূলক কথা পোস্ট করেছেন। প্রশান্তের গ্রেফতারির পর থেকেই যোগী সরকারের বিরুদ্ধে তুমুল সামলোচনার ঝড় ওঠে। প্রশান্তসহ পাঁচ সাংবাদিককে মুক্তি দেয়ার দাবিতে সোমবার ভারতের রাজধানী দিল্লিতে বিক্ষোভ হয়। বাকি চার সাংবাদিকের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। সূত্র: এনডিটিভি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন