Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

৪৫ হাজার গ্রাহকের জন্য নেই জোনাল অফিস

বামনা পল্লী বিদ্যুত

বামনা(বরগুনা)উপজেলা সংবাদাতা : | প্রকাশের সময় : ১১ জুন, ২০১৯, ১১:৩৭ পিএম

বরগুনার বামনা উপজেলা বিদ্যুত বিতরন অভিযোগ কেন্দ্রের আওতায় ৪৫ হাজার বিদ্যুত গ্রাহক থাকলেও অদ্যবধি এ উপজেলায় পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিস গড়ে উঠেনি। ফলে এ উপজেলায় ৪৫ হাজার গ্রাহকের জন্য বিদ্যুত বিতরন সেবা কার্যক্রমে নানা সংকট বিরাজ করে আসছে। একদিকে জনবল সংকট অন্যদিকে বিদ্যুত সেবা নিতে পাশ্ববর্তী মঠবাড়িয়া উপজেলার জোনাল অফিসে ধর্না দিতে বামনা উপজেলার জনসাধারন চরম ভোগান্তির শিকার হয়ে থাকেন।

জানাগেছে, বামনা উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে ৪৫ হাজার গ্রাহক ও পাশ্ববর্তী মঠবাড়িয়ার ৮টি গ্রাম দাউদখালী, দেবত্র, টিকিকাটা, খায়েরঘটিচোরা, গিলাবাদ, দধিভাঙ্গা, বড় আরজী ও ছোট আরজীর আরও ১০হাজার বিদ্যুত গ্রাহক বামনা উপজেলা বিদ্যুত সেবা অভিযোগ কেন্দ্রের আওতায় পরিচালিত হয়। এ অভিযোগ কেন্দ্রের ৪ জন কর্মচারী দিয়ে গ্রাহক সেবা দিয়ে থাকে। বামনা উপজেলায় সদ্য নির্মিত ১০ মেঘাওয়াট বৈদ্যুতিক সাব ষ্টেশনে ১জন টেকনিশিয়ান কর্মরত রয়েছে। বামনা অভিযোগ কেন্দ্রে গ্রাহক সেবায় কর্মচারীদের জন্য ২ টি মটর সাইকেল থাকলেও তার ১টি বিকল। এ অভিযোগ কেন্দ্রের আওতায় ১২০০কিলোমিটার এসটি/এলটি লাইন ও ১৭ কিলোমিটার ৩৩ কেভি বিদ্যুত লাইন। সামান্য ঝড় বৃষ্টি হলে বামনা উপজেলার বিদ্যুত লাইন চালু করতে ২ থেকে ৩ তিন দিন সময় লাগে। বামনা বিদ্যুৎ বিতরন অভিযোগ কেন্দ্রের ৪ জন কর্মচারী দিয়ে ৪৫ হাজার বিদ্যুত গ্রাহক সেবা দেওয়া কোন মতেই সম্ভব না। এ উপজেলায় জোনাল অফিস না থাকায় এলাকার জনসাধারণ চরম সমস্যার সম্মুক্ষীণ হচ্ছে। সমস্যা প্রকট আকার ধারন করছে।
পল্লী বিদ্যুত বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ৮ হাজার গ্রাহকের বিপরীতে অভিযোগ কেন্দ্র জনবল সংখ্যা ৪জন, ১২ হাজার গ্রাহকের জন্য এরিয়া অফিস জনবল সংখ্যা ৭জন, ১৮ হাজার গ্রাহকের জন্য সাব জোনাল অফিস জনবল সংখ্যা ১২ জন, ৩০ হাজার গ্রাহকের জন্য জোনাল অফিস জনবল সংখ্যা ১৮ জন। কিন্তু বামনা উপজেলায় ৪৫ হাজার গ্রাহক থাকলেও বিদ্যুৎ বিতরন সেবা পাচ্ছে শুধু মাত্র অভিযোগ কেন্দ্র দিয়ে। অথচ ৪৫ হাজার গ্রাহকের জন্য এ উপজেলায় জোনাল অফিস চালু থাকার কথা। যেখানে ১৮ জন কর্মকর্তা কর্মচারী থাকবে।
ফলে এ উপজেলায় বিদ্যুৎ গ্রাহকরা কার্যকর সেবা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পিরোজপুর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির জিএম মফিজুর রহমান বলেন আমরা এব্যাপারে এরিয়া অফিসের জন্য প্রস্তাবনা পাঠিয়েছি আশা করি অচিরেই এর সমাধান পেয়ে যাবো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ