Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

স্বামী হত্যাকারী বাস চালক ও হেলপারের ফাঁসি চায় ফুলপুরের পারুল

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১২ জুন, ২০১৯, ২:১৯ পিএম

স্ত্রীর চোখের সামনে তুচ্ছ ঘটনায় নিষ্ঠুরভাবে স্বামী সালাহ উদ্দিনকে লাথি দিয়ে বাস থেকে ফেলে চাকায় পিষে হত্যাকারীদের ফাঁসি চায় ময়মনসিংহের ফুলপুরের পারুল আক্তার। পারুল উপজেলার শিলপুর গ্রামের আব্দুল জব্বারের মেয়ে।
ঈদের ছুটিতে স্বামীকে নিয়ে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল পারুল আক্তার। ছুটি শেষে রোববার গাজীপুরে নিজ কর্মস্থলে ফেরার সময় আলম এশিয়া পরিবহণে বাস ভাড়া নিয়ে বাগবিতন্ডার জেরে বাসে তার স্বামীকে হেনস্থা ও লাঞ্ছিত করা হয় এবং গাজীপুর বাঘের বাজার এলাকায় স্ত্রী ও স্বজনদের সামনে বাস থেকে লাথি দিয়ে সালাহ উদ্দিনকে ফেলে দেয় আলম এশিয়া পরিবহণের হেলপার। তারপর স্ত্রীকে না নামিয়ে বাসটি দ্রুত ছেড়ে যেতে চাইলে সালাহ উদ্দিন উঠে তার ছোট ভাই জামালকে নিয়ে বাসের সামনে গিয়ে দাঁড়ায়। এ সময় চালক রোকন উদ্দিন তাদের উপর দিয়ে বাস চালিয়ে গেলে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সালাহ উদ্দিন (৪৫)। সে ঢাকার আলু বাজারের মৃত শাহান উদ্দিনের পুত্র। সে বাঘের বাজার এলাকায় একটি কারখানার গাড়ি চালক । তাদের দুজনের ভাড়া ৩০০ টাকার স্থলে আদায় করা হয় ৬০০ টাকা। সে নিজেও একজন চালক হিসেবে ৫০ টাকা কম দিতে চাইলে অশালীন ব্যবহার করা হয় সালাহ উদ্দিনের সাথে। এক পর্যায়ে এ ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার ফুলপুর উপজেলার শিলপুর গ্রামে পারুল আক্তারের বাবার বাড়িতে গেলে সেখানে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে কেঁদে কেঁদে পারুল আক্তার বলেন আমার কোনো সন্তান নাই, আমার স্বামী ছিল আমার আশা ভরসা। আমি এখন কিভাবে বাঁচব। আমাকে ওরা মেরে ফেলতে চেয়েছিল কিন্তু একটি মাইক্রোর জন্য ওরা আমাকে মারতে পারেনি। একটি মাইক্রো বাসটিকে ধাওয়া করলে আমাকে বাস থেকে ধাক্কা মেরে নিচে ফেলে দেওয়া হয়। এতে আমি আহত হই। আমি এ ঘটনার বিচার চাই ।খুনিদের ফাঁসি চাই। আর যাতে কারো জীবনে এরকম দুর্ঘটনা নেমে না আসে। আমার স্বামীও একজন বাস চালক ছিলেন। মানুষ হয়ে মানুষকে এ ভাবে হত্যা করতে পারে তা , আমার কল্পনাতেও আসে না। আমি সচেতন দেশবাসী ও সরকারের কাছে উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু বিচার ও ক্ষতিপূরণ চাই এবং নিষ্ঠুর বাস চালক রোকন উদ্দিন ও হেলপারের ফাঁসি চাই। চালক রোকন উদ্দিন (৩৫) ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার লতিফপুর নোয়াপাড়া এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ময়মনসিংহ

৪ মে, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন