Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

প্রাণের বিরুদ্ধে মামলা

চট্টগ্রাম ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

জালিয়াতির মাধ্যমে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে প্লাস্টিকের দানার পরিবর্তে সিমেন্ট আমদানি করায় প্রাণ গ্রুপের বিরুদ্ধে মামলা করেছে চট্টগ্রাম কাস্টমস। গতকাল বুধবার কাস্টম হাউসের কর্মকর্তারা জানান, আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান প্রাণের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া শুরু হয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দরে জব্দ ৩০টি কন্টেইনারে থাকা পণ্য আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে। এসব কন্টেইনার খালাস স্থগিত করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। প্লাস্টিকের দানা ঘোষণা দিয়ে সউদি আরবের একটি বিখ্যাত ব্র্যান্ডের সিমেন্ট আমদানির মাধ্যমে প্রাণ গ্রুপ প্রায় তিন কোটি টাকার শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করেছিল। আমদানিকৃত সিমেন্ট আসলেই সিমেন্ট কিনা তা রাসায়নিক পরীক্ষা করা হবে। এ আমদানির আড়ালে অর্থ পাচারের কোন ঘটনা ঘটেছে কিনা তাও খতিয়ে দেখছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার চট্টগ্রাম বন্দরের একটি ইয়ার্ডে কন্টেইনারগুলোর কায়িক পরীক্ষা হয়। চট্টগ্রাম কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার সাধন কুমার কুণ্ডু জানান, দুবাই থেকে প্রাণ ডেইরি লিমিটেডের নামে ৩০টি কন্টেইনারের চালান গত ২৬ মে চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। ওইদিনই চালান খালাসের জন্য নথিপত্র জমা দেয় আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান। চালানে পাঁচ লাখ ৬৬ হাজার ডলার মূল্যের ৫১০ মেট্রিক টন প্লাস্টিক দানা আনার ঘোষণা দেওয়া হয়। বাংলাদেশি টাকায় এর দাম প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা।

সাধন কুমার কুণ্ডু বলেন, ঈদের সরকারি বন্ধের সময় ৬ জুন রাতে তারা কন্টেইনার খালাসের চেষ্টা করে। এ সময় আমরা গিয়ে দুটি কন্টেইনার খুলে সিমেন্টের বস্তা দেখতে পাই। আমরা ৩০টি কন্টেইনার লক করে সেগুলোর খালাস বন্ধ রাখার নির্দেশ দিই। ঈদের ছুটি শেষে সোমবার ও মঙ্গলবার দুইদিনে কায়িক পরীক্ষা সম্পন্ন করি।

কাস্টমসের কর্মকর্তা জানান, ৩০টি কন্টেইনার খুলে দেখা যায়, চালানটিতে রয়েছে সউদি আরবের জেবেল আলী ব্র্যান্ডের সিমেন্টের বস্তা। প্রতিটি বস্তায় আছে ৫০ কেজি সিমেন্ট।

একটি কন্টেইনারে এসেছে ৩৪০টি করে বস্তা। ৩০টি কন্টেইনারে ১০ হাজার ২৫০টি বস্তায় মোট সিমেন্ট এসেছে ৫১০ মেট্রিক টন। প্লাস্টিক দানার শুল্ককর ৩২ শতাংশ। আর সিমেন্টের শুল্ককর ৯১ শতাংশ। আমদানিকারক প্লাস্টিকের দানা হিসেবে ১ কোটি ৪২ লাখ টাকা শুল্ক দিয়েছিল। সিমেন্টের হিসেবে শুল্ক আসে প্রায় ৪ কোটি ৬৫ লাখ টাকা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ