Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

তাপদাহে অস্বস্তি বৃষ্টির দেখা নেই

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

গ্রীষ্মের জ্যৈষ্ঠ মাস বিদায়ের আগে তাপদাহে মানুষের কাহিল অবস্থা। ঘরে-বাইরে কোথাও স্বস্তি মিলছে না। অথচ নেই মেঘের ছায়া। স্বস্তির বৃষ্টির দেখা নেই। ভ্যাপসা গরমের সাথে বিদ্যুৎ বিভ্রাট ও পানির সঙ্কটে জনদুর্ভোগ আরো বেড়ে গেছে। অসহ্য গরমে বিভিন্ন ধরনের মৌসুমী রোগ-ব্যাধিতে ভুগছে অনেকেই।
গতকাল (বুধবার) যশোরে ৩৭.৮, রাজশাহীতে ৩৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। ঢাকায়ও পারদ ৩৬.১ ডিগ্রিতে উঠে গেছে। অধিকাংশ জেলায় তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রি ছাড়িয়ে গেছে। অথচ ময়মনসিংহ ও রংপুরে ছিটেফোঁটা ছাড়া সমগ্র দেশ বৃষ্টিহীন।

আজ (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে জানা গেছে, রাজশাহী, রংপুর, চট্টগ্রাম, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের কিছু জায়গায় এবং ময়মনসিংহ, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে।

ঢাকা, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, নোয়াখালী, ফেনী, দিনাজপুর ও নীলফামারী অঞ্চলসহ রাজশাহী, খুলনা ও সিলেট বিভাগের উপর দিয়ে তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তবে তাপপ্রবাহ কিছু জায়গায় কমে আসতে পারে। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টায় বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি বৃদ্ধি পেতে পারে। এর পরের ৫ দিনে অর্থাৎ আগামী সপ্তাহে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু (বর্ষা) সারাদেশে বিস্তার লাভ করতে পারে। আবহাওয়া বিভাগ জানায়, লঘুচাপের একটি বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু চট্টগ্রাম অঞ্চল পর্যন্ত অগ্রসর হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন