Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

এসএসকেএমের ডাক্তারদের ৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম মমতার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০১৯, ২:৪৬ পিএম

কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়ে আন্দোলনকারী জুনিয়র ডাক্তারদের কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। ৪ ঘণ্টার মধ্যে কাজ যোগ দিতে হবে জুনিয়র ডাক্তারদের। না হলে কঠোর পদক্ষেপ করা হবে। যারা কাজে যোগ দেবেন, তাদের সঙ্গে সরকার থাকবে। আর যারা যোগ দেবেন না, তাদের সরকার কোনও ভাবেই সাহায্য করবে না বলেও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তারদের মারধরের প্রতিবাদে আন্দোলনে নামে হবু চিকিৎসকরা। বৃহষ্পতিবার দুপুরেও নিজেদের অবস্থানে অনড় ছিলেন হবু চিকিৎসকরা। বন্ধ আউটডোর। এই অচলাবস্থা কাটাতে এসএসকেএম হাসপাতালে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ দিন হাসপাতালে গিয়ে প্রথমে জরুরি বিভাগের সামনে এবং গোটা চত্বরের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন মুখ্যমন্ত্রী। তার পর জরুরি বিভাগের সামনে এক রোগীর সঙ্গেও কথা বলেন। তার পরই কড়া বার্তা দিতে শুরু করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আজকের মধ্যে কাজে যোগ দিতে হবে জুনিয়র ডাক্তারদের। এনাফ ইজ এনাফ। মানুষকে পরিষেবা দিতে হবে। দমকল যদি বলে আগুন নেভাব না, পুলিশ যদি বলে কাজ করব না—সেটা হতে পারে না।’

এর পর আরও কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দিতে শুরু করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ৪ ঘণ্টার মধ্যে কাজে যোগ দিতে হবে চিকিৎসকদের। না হলে সরকার পাশে থাকবে না। যারা কাজে যোগ দেবেন, তাদের সব রকম সাহায্য করা হবে। কিন্তু যারা যোগ দেবেন না, তাদের পাশে সরকার থাকবে না।’ একই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘এরা জুনিয়র ডাক্তার নন, সব আউটসাইডার।’ হবু চিকিৎসকরা কাজে যোগ না দিলে হস্টেল ছাড়তে হবে বলেও স্পষ্ট বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী।

এর মধ্যেই অবশ্য মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে স্লোগান দিতে থাকেন আন্দোলনকারী চিকিৎসকরা। শোনা গিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী ‘হায় হায়’ স্লোগানও। এক সময় কার্যত জুনিয়র চিকিৎসকরা তাকে ঘেরাও করেও রাখেন। সূত্র: টিওআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মমতা


আরও
আরও পড়ুন