Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

ডায়াবেটিস ঠেকাতে নতুন ওষুধ!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০১৯, ৪:৪২ পিএম

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো, বিজ্ঞানীরা এমন একটি প্রতিষেধক খুঁজে পেয়েছেন যার মাধ্যমে টাইপ ১ ডায়াবেটিস দীর্ঘ দিন ঠেকিয়ে রাখা যাবে। ডায়াবেটিস গবেষণায় এই আবিষ্কারকে যুগান্তকারী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সান ফ্রান্সিসকোতে আমেরিকান ডায়াবেটিস অ্যাসোসিয়েশনের সভায় রোববার উপস্থাপিত এক গবেষণায় বলা হয়েছে, উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদেরকে, ১৪ দিনের থেরাপিতে পরীক্ষামূলকভাবে ‘টেপলিজুম্যাব’ নামের এই এন্টিবডি প্রয়োগ করে দেখা গেছে, রোগের বিকাশ এক বছরেরও বেশি সময় বিলম্বিত হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে, অপেক্ষাকৃত অল্প সংখ্যক মানুষের উপরে এর কার্যকারিতা পরীক্ষা করে দেখা গেছে, এটি উত্তরাধিকারসূত্রে প্রাপ্ত রোগের ক্ষেত্রেও সফল হয়েছে। এই গবেষণা ফলাফল নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অফ মেডিসিনেও প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রধান গবেষক ও ইয়েল ইউনিভার্সিটির ইমিউনোলজি ও এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের প্রোফেসর ডা কিভান হেরল্ড জানান, এটি একটি বিশাল মাইলফলক। দশক ধরে গবেষণা করেও, ডায়াবেটিস প্রতিরোধে সক্ষম কোন প্রতিষেধক পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, ‘এটি প্রথম সফল পরীক্ষা যা দেখিয়েছে টাইপ ১ ডায়াবেটিস বিলম্বিত করা যায় এবং সম্ভবত প্রতিরোধও করা যায়।’

এই প্রজেক্টের সঙ্গে যুক্ত বিজ্ঞানী লিজা স্পেন জানিয়েছেন, যাদের বংশগত ভাবে ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা রয়েছে, তাদের আগে থেকে নজরদারিতে থাকতে হবে। তার দাবি, ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা দেখা গেলেই তারা যদি এই ওষুধ খান, তবে তাদের ডায়াবেটিস দু’বছর, এমনকি কোনও কোনও ক্ষেত্রে তারও বেশি সময় পিছিয়ে দেওয়া বা বলতে পারেন ঠেকিয়ে রাখা যেতে পারে। নতুন এই ওষুধের সাফল্য সংক্রান্ত গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনে।

বংশগত কারণে ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা রয়েছে, এমন ৮ থেকে ৪৯ বয়সি ৭৬ জনের উপর একটি পরীক্ষা চালানো হয়। সেখানে এই নতুন ওষুধটির সাফল্য মিলেছে বলে জানিয়েছেন লিজা।

আমাদের শরীরের টি সেল যখন ইনসুলিন উৎপাদনকারী বিটা সেলকে নষ্ট করে দেয়, তখন টাইপ-১ ডায়াবেটিস দেখা দেয়। রক্তে সুগার বা শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে ইনসুলিন। সূত্র: এনবিসি নিউজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চিকিৎসা


আরও
আরও পড়ুন