Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

তালিবানের হামলায় আফগান পুলিশের ৫৫ সদস্য নিহত

প্রকাশের সময় : ১ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলীয় হেলমান্দ প্রদেশে তালিবানের হামলায় অর্ধশতাধিক পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৪০ জন। দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত দুই দিনে হেলমান্দের প্রাদেশিক রাজধানীতে তালিবানের সঙ্গে পুলিশের তুমুল লড়াইয়ে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। তবে সংঘর্ষে কোনও তালিবান সদস্যের হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। মোল্লা হাবিবুল্লাহ আখুনজাদা আফগান তালিবানের নতুন প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর এটাই দেশটিতে তালিবানের প্রথম বড় ধরনের হামলা। আঞ্চলিক পুলিশ কমান্ডার ইসমাতুল্লাহ দৌলতজাই বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, গত সোমবার তালিবানের হামলায় ২৪ পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন। এর আগে রোববার তাদের হামলায় নিহত হন ৩৩ জন। হেলমান্দকে আফগানিস্তানের রাজনীতিতে কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ একটি স্থান হিসেবে বিবেচনা করা হয়। গত এক বছরে এখানে একাধিকবার হামলা চালিয়েছে তালিবানরা। গত দুইদিনের লড়াইয়ের পর এরইমধ্যে সরকারি বাহিনীকে হটিয়ে হেলমান্দের প্রাদেশিক লস্করগাঁ শহরের উপকণ্ঠে প্রবেশ করেছেন তালিবান সদস্যরা। রাতভর সেখানে ভারী অস্ত্রের আওয়াজ শোনা গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। শহরে তালিবানের অগ্রসর হওয়ার বিষয়ে আল-জাজিরার সঙ্গে কথা বলেন হেলমান্দের প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য মোহাম্মদ কারিম আতাল। তিনি বলেন, পরিস্থিতি ভালো না। আমরা শহরের বাইরে অস্ত্রের ঝনঝনানি শুনতে পাচ্ছি। তালিবানরা শহরের দুই কিলোমিটারের মধ্যেই রয়েছে। পাকিস্তানের পশ্চিমাঞ্চলে মার্কিন বাহিনীর ড্রোন হামলায় তালিবান নেতা মোল্লা আখতার মানসুর নিহত হওয়ার পর হেলমান্দ প্রদেশে এসব হামলার ঘটনা ঘটল। তালিবানের পক্ষ থেকে এরইমধ্যে মোল্লা মানসুর হত্যার প্রতিশোধ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করা হয়েছে। গত ২৫ মে মোল্লা হাবিবুল্লাহ আখুনজাদাকে আফগান তালিবানের নতুন নেতা ঘোষণা করা হয়। এরপরই দেশটির সরকারের সঙ্গে যে কোনও ধরনের শান্তি আলোচনা প্রত্যাখ্যান করেন তালিবানে নতুন এই শীর্ষ নেতা। একইসঙ্গে তিনি তার ভাষায় শত্রুদের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার করেন। দায়িত্ব গ্রহণের পর এক অডিও বার্তায় হাবিবুল্লাহ আখন্দজাদা ঘোষণা দেন, তিনি সাধারণ জীবনযাপন করবেন। নিয়মিত শত্রুদের ওপর আক্রমণ চালাবেন। সাংগঠনিকভাবে নিজের দুই পূর্বসূরি মোল্লা মানসুর ও মোল্লা মোহাম্মদ ওমরের নীতির অনুসরণ করবেন। আফগান তালিবানের শীর্ষ নেতা মোল্লা আখতার মনসুরের মৃত্যুর পর তার ঘনিষ্ঠ সহযোগী মোল্লা হাবিবুল্লাহ আখুনজাদাকে প্রধান নেতা নির্বাচন করা হয়। ২৫ মে তালিবানের পক্ষ থেকে সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, কেন্দ্রীয় নেতারা এক বৈঠকে মিলিত হয়ে মোল্লা হাবিবুল্লাহ আখুনজাদাকে নতুন নেতা নির্বাচন করেন। উচ্চ পর্যায়ের কমান্ডারদেরকে নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন নবনির্বাচিত তালিবান প্রধান। তিনি স্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছেন আফগান সরকারের সঙ্গে কোন রকম শান্তি আলোচনায় যাওয়া হবে না। আখুনজাদা অঙ্গীকার করেছেন, তিনি তালিবানদের মধ্যে মোল্লা মোহাম্মদ ওমরের যুগ ফিরিয়ে আনবেন এবং নিবেদিতপ্রাণ নেতার মত সাধারণ জীবনযাপন করে শত্রুদের ওপর আক্রমণ অব্যাহত রাখবেন। এর আগে বিনা অনুমতিতে নিজ ভূখ-ে ড্রোন হামলা চালানোয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে পাকিস্তান। এক সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খান বলেছেন, আফগান তালিবানের সাবেক শীর্ষ নেতা মোল্লা আখতার মনসুর আলোচনার বিরোধী ছিলেন না। প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক সময়ে সরকারের বিরুদ্ধে শক্ত ক্ষেত্র তৈরি করেছে তালিবানরা। আফগান সেনাবাহিনীকে তাদের অবস্থান থেকে পিছু হটতে বাধ্য করেছে তালিবান। আল-জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন