Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ময়মনসিংহে ইমাম হেনস্থার অভিযোগে মানববন্ধন স্থগিত, পুলিশের দু:খ প্রকাশ

ময়মনসিংহ ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৪ জুন, ২০১৯, ৫:৩৭ পিএম

ময়মনসিংহে ইমামকে হেনস্থার ঘটনায় পুলিশের দু:খ প্রকাশের মধ্যদিয়ে তাবলীগের মুরুব্বী মাওলানা জুবায়ের পন্থীদের মানববন্ধন স্থগিত হয়েছে। শহরের সাহেব কোয়ার্টার মসজিদের ইমাম মুফতি সাদিককে থানায় ডেকে এনে হেনস্থার প্রতিবাদে শুক্রবার বাদ জুম্মা এ মানববন্ধন কর্মসূচীর ঘোষণা দেয় ইত্তেফাকুল ওলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী। 

বৃহস্পতিবার দুপুর বারটায় সাহেব কোয়ার্টার মসজিদের ইমাম মুফতি সাদিককে মসজিদ থেকে ডেকে এনে কোতুয়ালি থানায় তিন ঘন্টা আটকে রেখে হেনস্থা করা হয় বলে অভিযোগ উঠে পুলিশের বিরুদ্ধে। তবে পুলিশ এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
ইত্তেফাকুল ওলামা সুত্রে জানা যায়, মাওলানা সাদ কান্দলবীপন্থী একটি জামাত দুপুর বারটায় সাহেব কোয়ার্টার মসজিদে প্রবেশ করতে চাইলে মাওলানা জুবায়ের হোসেন পন্থী স্থাণীয় মুসুলি­রা বাধা দেন । পরে পুলিশ গিয়ে মসজিদের ঈমাম মুফতি সাদিককে থানায় ডেকে এনে তিন ঘন্টা আটকে রাখেন। এর প্রতিবাদে মানববন্ধনের কর্মসুচী ঘোষনা করেন আলেমরা।
মানববন্ধন কর্মসুচীর খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে আকুয়া বাইপাস মার্কাজ মসজিদে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল আমিন, কোতুয়ালী থানার ওসি তদন্ত মুনসুর আহামেদসহ পুলিশের একটি দল। সেখানে তাবলীগের মুরুব্বীদের সাথে প্রায় দুই ঘন্টা বৈঠক শেষে ঈমামকে হেন্থার করার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে দু:খ প্রকাশ করা হয়। পরে মানববন্ধন স্থগিতে রাজী হন তাবলীগের মুরুব্বীরা। ইত্তেফাকুল ওলামার জেলা সভাপতি মুফতি মুহিব্বুল্লাহ এবং সাংগাঠনিক সম্পাদক মুফতী শরীফুর রহমান পুলিশের দু:খ প্রকাশের সত্যতা নিশ্চিত করেন।
তবে কর্মসুচী স্থগিতের খবর সবার কাছে না পৌছায় বাদ জুম্মা হাজারো মুসুল্লী শহরের গাঙ্গীরাড়পাড় মোড়ে জমায়েত হন। জমায়েতে আসেন ইত্তেফাকুল ওলামার উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আব্দুর রহমান হাফেজ্জী হুজুর, সভাপতি মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী, জেলা শাখার সভাপতি মুফতি মুহিবুল­াহসহ নেতৃবৃন্দ। এ সময় পুলিশ কর্মককর্তাদের সাথে বৈঠকে মানববন্ধন স্থগিতের ঘোষনা দেওয়া হয়। এ সময় মাওলানা আব্দুর রহমান হাফেজ্জী হুজুর সকলকে শান্ত থাকার আহŸান জানিয়ে দোয়া মোনাজাত করেন।
এ বিষয়ে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল্ আমীন বলেন, সাহেব কোয়ার্টার মসজিদের ঈমাম মুফতি সাদিককে থানায় ডেকে এনে সাদপন্থীদের মসজিদে প্রবেশে বাধাঁদানের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। পরে তিনি তাদেরকে মসজিদে ঢুকতে দিতে রাজি হলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে এ ঘটনায় পুলিশের দু:খ প্রকাশের কথা সত্য নয়।
প্রসঙ্গত, চলতি মাসের তিন দিনব্যাপী মার্কাজ মসজিদে নতুন করে ইজতেমা করার ঘোষনা দেয় সাদপন্থিরা। এ বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে মাওলানা জুবায়ের পন্থীরা।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মানববন্ধন


আরও
আরও পড়ুন