Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ০৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

সানডের হ্যাটট্রিকে আবাহনীর বড় জয়

জামালকে হারিয়ে বিজেএমসির চমক

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ জুন, ২০১৯, ৮:৪৯ পিএম | আপডেট : ১২:১৩ এএম, ১৬ জুন, ২০১৯

দীর্ঘ তিন সপ্তাহ পরে ফের মাঠে গড়িয়েছে ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। সর্বশেষ ২৩ মে অনুষ্ঠিত হওয়ার পরে ঈদুল ফিতরের ছুটি ও কাতার বিশ্বকাপের প্রাক-বাছাই পর্বের জন্য বিপিএলের খেলা ১৪ জুন পর্যন্ত বন্ধ ছিল। শনিবার শুরু হওয়া লিগের দ্বিতীয় লেগে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী লিমিটেড নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে চিজোবার হ্যাটট্রিকে বড় জয় তুলে নিয়েছে। এদিন বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আবাহনী নিজেদের ষোলতম ম্যাচে ৫-২ গোলে বিধ্বস্ত করে পুরনো ঢাকার দল রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটিকে। বিজয়ী দলের হয়ে সানডে হ্যাটট্রিকসহ তিনটি এবং স্থানীয় মিডফিল্ডার জুয়েল রানা ও ফরোয়ার্ড নাবীব নেওয়াজ জীবন একটি করে গোল করেন। রহমতগঞ্জের হয়ে দু’গোল শোধ দেন কঙ্গোর ফরোয়ার্ড সিও জুনাপিও এবং মিডফিল্ডার দিদারুল আলম। এই জয়ে আবাহনী ১৬ ম্যাচে ১৩ জয় ও তিন হারে ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার দ্বিতীয়স্থান ধরে রাখলো। সমান ম্যাচে তিন জয়, ছয় ড্র ও সাত হারে ১৫ পয়েন্ট পেয়ে নবমস্থানেই রইল রহমতগঞ্জ। প্রথম লেগের খেলায় আবাহনী ৫-১ গোলের জয় পেয়েছিল। একই ভেন্যুতে শনিবার রাতে অনুষ্ঠিত লিগের আরেক ম্যাচে শক্তিশালী শেখ জামালকে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে অবনমনের অপেক্ষায় থাকা টিম বিজেএমসি।

শনিবার আবাহনী-রহমতগঞ্জ ম্যাচের শুরু থেকেই ছন্দময় ফুটবল উপহার দেয় বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। গোল পেতে একের পর এক আক্রমণে তারা ব্যতিব্যস্ত রাখে রহমতগঞ্জের রক্ষণভাগকে। ফলে সফলতাও পায় আবাহনী খুব তাড়াতাড়ি। ম্যাচের ৯ মিনিটে রায়হান হাসানের লম্বা থ্রো থেকে আবাহনীর আফগান ফরোয়ার্ড মাসিহ সাইঘানি হেড রিলে বল যায় সানডের কাছে। তিনি তড়িৎ টোকায় গোল করে দলকে এগিয়ে নেন (১-০)। ম্যাচের ৩৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এই নাইজেরিয়ানই। এসময় সানডে’র কোনাকুনি শট রহমতগঞ্জের জালে আশ্রয় নেয় (২-০)। তিন মিনিট পর সানডে’র বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শটে দলের পক্ষে তৃতীয় গোল করেন জুয়েল রানা (৩-০)। ধারাবাহিক আক্রমণের মুখে ম্যাচের ৪৫ মিনিটে রহমতগঞ্জের দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ডি-বক্সের ভিতর থেকে জোরালো শটে গোল করেন জীবন (৪-০)। এই ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে গেলেও দ্বিতীয়ার্ধে আরেকটি গোল পায় আবাহনী। তবে উল্টো দু’গোল হজমও করে তারা। ম্যাচের ৬৫ মিনিটে রহমতগঞ্জের কঙ্গোর ফরোয়ার্ড সিও জুনাপিও গোল করে ব্যবধান কমান (১-৪)। পাঁচ মিনিট পর প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে দিদারুল বুলেট শটে গোল করলে ম্যাচের ফেরার আভাস দেয় রহমতগঞ্জ (২-৪)। কিন্তু ম্যাচের যোগকরা সময়ে (৯০+৩ মিনিট) বেলফোর্টের বাড়ানো বল ধরে বাঁ পায়ের নিখুঁত শটে গোল করে সানডে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করায় শেষ পর্যন্ত আর ম্যাচে ফেরা হয়না রহমতগঞ্জের (৫-২)।

একই ভেন্যুতে রাতে অনুষ্ঠিত দিনের অন্য ম্যাচে তলানীর দল টিম বিজেএমসি ২-১ গোলে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে হারিয়ে চমক দেখায়। লিগে এটাই বিজেএমসির প্রথম জয়। এই জয়ে তারা ১৬ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় সবার শেষে রয়েছে। সমান ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট পাওয়া শেখ জামাল নেমে গেছে সপ্তমস্থানে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফুটবল

১৭ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন