Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

আন্দোলনে ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির নেতারা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০১৯, ১২:৪৮ পিএম

বয়সসীমা তুলে দিয়ে ধারাবাহিক কমিটির দাবি পূরণের আশ্বাসে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতারা কর্মসূচি সাময়িকভাবে স্থগিত করলেও ফের আন্দোলনে নেমেছে তারা। বিএনপির আশ্বাসের কোনো অগ্রগতি না হওয়ায় নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির একাংশের বিক্ষুব্ধরা।

রোববার (১৬ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির একাংশের নেতাকর্মীরা। কয়েকশত নেতাকর্মী দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিলেও কার্যালয়ে তালা ঝুলানো বা কোনো ধরনের শ্লোগান দিচ্ছেন না তারা।

শনিবার (১৫ জুন) রাতে নিজেদের মধ্যে বৈঠক করে অবস্থান ধর্মঘটের এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। সেই সঙ্গে দলের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাবার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলসহ অন্য অঙ্গ-সংগঠনের নেতারাও সকাল থেকে কার্যালয়ের ভেতর অবস্থান করছেন। ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধ নেতারা কোনো নেতিবাচক পরিস্থিতি তৈরির চেষ্টা করলে সংঘর্ষ-সংঘাত দেখা দিতে পারে বলে আশংকা করা হচ্ছে। তবে অবস্থান কর্মসূচি শান্তিপূর্ণ হবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধদের আন্দোলনের পর থেকে হাইকমান্ডের নির্দেশে বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতারা নিয়মিত দলীয় কার্যালয়ে যাচ্ছেন।

বয়সের সীমা না রাখা, স্বল্পমেয়াদী কমিটি গঠনসহ তিন দফা প্রস্তাবনার ভিত্তিতে ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনের দাবিতে গত ১২ জুন নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দিনব্যাপী বিক্ষোভ করেন সংগঠনের বিলুপ্ত কমিটির একাংশের নেতারা। পরে ওইদিন রাতে দাবি পূরণে সাবেক ছাত্রনেতার (ছাত্রদলের কমিটি গঠনে বিএনপি গঠিত সার্চ কমিটির সদস্যরা) আশ্বাসের প্রেক্ষিতে সাময়িকভাবে আন্দোলন স্থগিত করেন আন্দোলনরতরা। পরবর্তীতে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরতে সার্চ কমিটির সদস্যরা ছাড়াও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্যের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন আন্দোলনকারীরা। দাবি পূরণে তারাও পুনরায় আশ্বাস দেন আন্দোলনকারীদের। কিন্তু দাবি পূরণে কার্যত এখনো কোনো অগ্রগতিই হয়নি।

জানতে চাইলে ছাত্রদলের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সিনিয়র সহ- সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট বলেন, প্রথমে সার্চ কমিটি ও পরে সিনিয়র নেতাদের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে এবং তাদের সম্মানার্থে আমরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত করি। কিন্তু আমাদের দাবি পূরণে এখন পর্যন্ত কোনো অগ্রগতি নেই। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, শান্তিপূর্ণভাবে দলীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয়ার। আমাদের দাবি নতুন কমিটি দিতে হবে। বয়সের সীমারেখা তুলে নিতে হবে। ২০০০ সালের আগে যাদের এসএসসি তাদের সহ একটি স্বল্পকালীন কমিটি দিতে হবে। আমাদের দাবি আদায়ে শতভাগ আশাবাদী। তবে আদায় না হলে আন্দোলন চালিয়ে যাব।

জানা গেছে, ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠন নিয়ে হাইকমান্ডের সিদ্ধান্তে কোনো পরিবর্তন না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। এজন্য বিএনপির বিভিন্ন উপ-কমিটি ও দুই অঙ্গ সংগঠন যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলে ছাত্রদলের সদ্য সাবেক নেতাদের অন্তর্ভুক্তি নিয়ে চিন্তা-ভাবনা চলছে। পাশাপাশি ছাত্রদলের কাউন্সিলের যাবতীয় প্রস্তুতিও নিচ্ছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা।

গত ৩ জুন ছাত্রদলের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি ভেঙে দেয়ার পাশাপাশি কাউন্সিলের মাধ্যমে সংগঠনটির নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। আর কাউন্সিলে প্রার্থী হতে ২০০০ সাল থেকে পরবর্তী যেকোনো বছরে এসএসসি/সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং অবশ্যই বাংলাদেশের কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী হওয়াসহ তিনটি শর্ত নির্ধারণ করে দেয়া হয়।



 

Show all comments
  • মো জাহাঙ্গীর আলম ১৬ জুন, ২০১৯, ১:০৬ পিএম says : 0
    আমি জানতে চাই বিলুপ্ত ঘোষণা করার পরে যেভাবে তারা জেগে উঠেছে এতো দিন ছাত্রদলের এতো নেতা কর্মী কেনো সমাবেশে দেখতে পাইনি কেনো তারা কি শুধু পদের রাজনীতি করে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাত্রদল


আরও
আরও পড়ুন