Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯, ০৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

ঘুরে দাঁড়ানোর আশায় বাংলাদেশ

ইমরান মাহমুদ | প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

‘এবারের বিশ্বকাপে নিয়ামক হতে পারে বৃষ্টি’- বাক্যটিকে তুড়ি মেড়ে ছুড়ে ফেলার সুযোগতো দিলনা ইংল্যান্ডের আবহাওয়া।
এরই মধ্যে চার ম্যাচ বাতিল হয়ে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ পরিত্যক্ত হবার রেকর্ড গড়ে নিয়েছে এবারের আসর। তাতে কারো কপাল পুড়েছে তো কেউ দেখেছে আশার আলো। সেই কপাল পোড়াদের দলে বাংলাদেশ। দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে বিশ্বকাপে কি দূর্দান্ত শুরুটাই না করেছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল! পরের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে জিততে জিততেও হেরে যাওয়ার পর শ্রীলঙ্কার ম্যাচটি ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। গ্রæপ রাউন্ডের ৯ ম্যাচের তিন ম্যাচ শেষেই কঠিন সমীকরণ মেলাতে আজ বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

পূর্বাভাস বলছে, আকাশে উজ্জ্বল রোদ থাকবে বেশিরভাগ সময়, মাঝে-মধ্যে মেঘাচ্ছন্ন হতে পারে। তার ওপর টন্টনের মাঠ ছোট, তাই রানের বৃষ্টি আশা করা যেতেই পারে। আবহাওয়ার সুবিধে অবশ্যই পাবেন ক্যারিবিয়ন বোলাররা, কিন্তু বাংলাদেশকে আত্মবিশ্বাস জোগাবে বিশ্বকাপ খেলতে আসার আগে ত্রিদেশীয় সিরিজে জেসন হোল্ডরের দলের বিরুদ্ধে তাদের জয়। দু’দলেরই সংগ্রহে তিন পয়েন্ট, তাই আত্মতুষ্টির জায়গায় নেই কেউই।
দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে এখনও বেশ এগিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৩৭ ওয়ানডেতে ক্যারিবিয়ানরা জিতেছে ২১টি। বাংলাদেশের জয় ১৪টি। ফলের মুখ দেখেনি দুই ম্যাচ। তবে গত এক বছরের চিত্র আবার একদমই একপেশে। এই সময়ে ৯ ম্যাচের ৭টিই জিতেছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের ঠিক আগেই আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে ক্যারিবিয়ানদের তিন ম্যাচেই জয়েল হাসি হেসেছে মাশরাফির দল। তবে তাতেও কি স্বস্তির শ্বাস নেবার সুযোগ আছে টাইগারদের? চোটজর্জর ব্যাটিং লাইন আপের বীপরিতে বাংলাদেশ দলের ভাবনার কালো মেঘ আরো ঘনীভূত হচ্ছে প্রতিপক্ষ শিবিরের বোলিংয়েও!

দু’দলই দুর্দান্ত জয় দিয়ে যাত্রা শুরু করলেও জয়ের ধারা বজায় রাখতে ব্যর্থ হয়েছে। টন্টনে এবার তাই ঘুরে দঁড়ানোর পরীক্ষা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের আক্রমণাত্মক পেস বোলিং এবারের বিশ্বকাপে নজর কেড়েছে। কিন্তু তাদের দুর্ভাগ্য, ব্যাটসম্যানরা আজেবাজে শট মেরে আউট হওয়ার বোলিংয়ের প্রকৃত ফায়দা তারা তুলতে পারে নি, ম্যাচও হেরেছে। গত শুক্রবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১৪৪/৩ থেকে ২১২ রানে অলআউট হয়ে যায় ক্যারিবিয়নরা, ৪৫ ওভারেই। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে আন্দ্রে রাসেল আর শেল্ডন কট্রেলের চোট। ইংল্যান্ড ম্যাচের দিন দুজনে মিলে মোটে পাঁচ ওভার বল করতে পারেন।

বাংলাদেশের যা সাফল্য এসেছে এই বিশ্বকাপে, তা মোটামুটি সাকিব আল হাসানের কাঁধে ভর করেই। ইংল্যান্ডের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারেন নি বাংলাদেশী বোলাররা, ৩৮৬/৬ তুলে দেয় ইংল্যান্ড। অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা চাইবেন তার দল, এবং তিনি নিজে, এবার কিছু করে দেখাবেন।

তবে সাকিব আল হাসান এখন পর্যন্ত যা করেছেন সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলেও মিডল অর্ডারে মুশফিকুর রহিমের ফিরে আসাটা খুব জরুরী। একদিন আগে যদিও নেটে ব্যাটিং করার সময় মুস্তাফিজুর রহমানের একটি বাউন্সার আঘাত হানে তার হাতে। চিড় ধরা না পড়লেও কিছুটা বেগ পেতে পারেন সাবলীয় ব্যাটিং করতে। তাঁর ৭৮ রান এবং সাকিবের সঙ্গে শক্ত জুটির দৌলতেই দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারায় বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের শেষ দশটা ম্যাচে পাঁচটা অর্ধশতরান করেছেন মুশফিকুর, ৬৩.৭১ গড়ে। আজ সেই তালিকাটা আরেকটু লম্বা করার আশা দেখতেই পারে বাংলাদেশ।

নিউজিল্যান্ড সফরের ক্যারিবিয়ান দলটির সঙ্গে বিশ্বকাপে একটি নামই বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে- ক্রিস গেইল। নিজের দিনে তার তাÐব বিশ্ব ক্রিকেটে বেশ সমাদৃত। ঘোষনা দিয়েছেন, এই আসরের পরই অবসরের। চাইবেন শেষটা রাঙাতে। এখন পর্যন্ত সেরকম কিছু না হলেও বাংলাদেশই হতে পারে তার টার্গেট। সেই সঙ্গে আন্দ্রে রাসেলরা তো আছেনই। তবে আলাদা করে বলতে হয় শেই হোপের নাম। অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই উইকেটকীপার-ব্যাটসম্যানের গড় ৯৪.৫৭, তাঁর সামগ্রিক ওয়ানডে গড়ের প্রায় দ্বিগুণ!

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিশ্বকাপ ক্রিকেট

১৬ জুলাই, ২০১৯
১৫ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ