Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ০৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

নবান্নে মমতার সঙ্গে জুনিয়র ডাক্তারদের বৈঠক নিয়ে অনিশ্চয়তা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০১৯, ৩:২৫ পিএম

আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক সোমবার দুপুর ৩:৩০ মিনিটে হওয়ার কথা থাকলেও সেটি হবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটল না। মিডিয়ার উপস্থিতি নিয়ে আন্দোলনকারীদের শর্ত না মানায়, এখনও টানাপড়েন চলছে দু-তরফে। এই মুহূর্তে আন্দোলনকারীদের সিদ্ধান্ত, টিভি মাধ্যমে লাইভ কভারেজের ব্যবস্থা হলে তবেই তারা নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে যাবেন। স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা প্রদীপ মিত্র জানিয়েছেন, তারা চেষ্টা করছেন লাইভ স্ট্রিমিংয়ের। তবে এখনও পর্যন্ত সরকারি তরফে এ বিষয়ে নিশ্চিত কিছু জানানো হয়নি।

সোমবার সকালে আন্দোলনকারীদের তরফ থেকে জানানো হয়, মৌখিক ভাবে বিভিন্ন সূত্র থেকে নবান্নে বৈঠকের কথা জানতে পারলেও সরকারি ভাবে কোনও আমন্ত্রণপত্র তারা হাতে পাননি। সরকারি আমন্ত্রণপত্র ছাড়া তারা কোনও ভাবেই বৈঠকে যোগ দিকে পারবেন না। সাংবাদিকদের এ কথা জানানোর কিছু পরই স্বাস্থ্য ভবন থেকে একটি আমন্ত্রণপত্র তাদের কাছে পৌঁছেছে।

ওই আমন্ত্রণপত্রে অবশ্য মিডিয়ায় উপস্থিতি নিয়ে জুনিয়র ডাক্তারদের শর্তের উল্লেখ নেই। লেখা রয়েছে, প্রতিটা মেডিক্যাল কলেজ থেকে অন্তত ২ জন প্রতিনিধি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এই বৈঠকে যোগ দিতে পারবেন। বেলা আড়াইটার মধ্যেই পরিচয়পত্র-সহ তাদের নবান্নে পৌঁছে যেতে হবে। এবং পুরো বৈঠকটা রেকর্ড করা হবে।

রোববার রাত পর্যন্ত স্বাস্থ্য দফতরের প্রস্তাব অনুয়ায়ী, নবান্ন সভাগৃহে আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের ২৮ জনের প্রতিনিধি দল মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে সম্মত হয়েছিল। রাতেই নবান্ন থেকে স্বাস্থ্যশিক্ষা কর্মকর্তার মাধ্যমে আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের জানানো হয়, মুখ্যমন্ত্রী সোমবার স্থানীয় সময় বেলা ৩টায় (বাংলাদেশ সময় ৩:৩০মি) আন্দোলনকারীদের বৈঠকে ডেকেছেন। কিন্তু সোমবার সকালে আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের একটি অংশ দাবি করেন, যতক্ষণ না সরকারি ভাবে চিঠি দিয়ে তাদের বৈঠকের স্থান, কার সঙ্গে বৈঠক এবং কখন বৈঠক, এই তিনটি বিষয় স্পষ্ট করা হচ্ছে ততক্ষণ তারা বৈঠকে অংশ নেবেন না। জটিলতা তৈরি হয় বৈঠকের সময় সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতির প্রশ্ন নিয়েও।

স্বাস্থ্য কর্তাদের দাবি, রোববারই আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছিল, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী এ ধরনের বৈঠকের সরাসরি সম্প্রচারের জন্য কোনও সংবাদমাধ্যমকে উপস্থিত থাকার অনুমতি দেওয়া সম্ভব নয়। স্বাস্থ্য কর্তাদের দাবি, সেই শর্ত মেনেই বৈঠকে রাজি হয়েছিলেন আন্দোলনকারীরা। কিন্তু এ দিন সকালে আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের একটি অংশ ফের দাবি করেন, সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতিতেই বৈঠক হতে হবে। তারা বলেন, রোববারের জিবি বৈঠকের পর তারা যে দাবিগুলো রেখেছিলেন, তার মধ্যে অন্যতম ছিল মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের সময় সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতি। সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতি প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য দফতর যে সরকারি নিয়মকে তুলে ধরছেন, সেটা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন আন্দোলনকারীরা। তাদের প্রশ্ন, মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠক যদি সরাসরি সম্প্রচারিত হতে পারে, তা হলে এই বৈঠকে সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতি নিয়ে সরকারের আপত্তি কেন?

সূত্রের খবর, আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকরা ফের এই ইস্যুতে নিজেদের মধ্যে বৈঠক করতে পারেন সোমবার। এই জটিলতা কাটাতে উদ্যোগী স্বাস্থ্য কর্তারা। তারা যোগাযোগ করছেন আন্দোলনকারী জুনিয়র চিকিৎসকদের সঙ্গে। স্বাস্থ্য কর্তাদের আশা, দ্রুত এই বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে এবং বৈঠক হবে। সূত্র: টিওআই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন