Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০১৯, ০১ শ্রাবণ ১৪২৬, ১২ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

ফেনীর পরশুরামে স্কুলছাত্র শুভ বৈদ্য হত্যার রায় দিয়েছে আদালত

৪ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

ফেনী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০১৯, ৮:২৯ পিএম

ফেনীর পরশুরাম উপজেলার পরশুরাম পাইলট হাইস্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থী শুভ বৈদ্য হত্যা মামলার রায়ে চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন ফেনীর আদালত। একই সঙ্গে তাদেরকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। আজ সোমবার ফেনীর জেলা ও দায়রা জজ সাঈদ আহমেদ এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা পরশুরাম উপজেলার পূর্ব অলকা গ্রামের চানমিয়ার ছেলে আব্দুর রহিম (১৯), মো. মোস্তফা ছেলে ওমর ফারুক (২২), বেলাল উদ্দিন ভুঁইয়ার ছেলে নুর আলম ভুঁইয়া সমীর (২০) ও আব্দুল মোমিনের ছেলে মো. স্বপন ভুঁইয়া (২১)।
এদের মধ্যে আব্দুর রহিম জামিন নিয়ে পলাতক রয়েছেন। বাকিরা জেলহাজতে রয়েছে।

আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) হাফেজ আহাম্মদ বলেন, পরশুরাম উপজেলার পশ্চিম অনন্তপুর গ্রামের সাধন বৈদ্যের ছেলে শুভ বৈদ্য (১৬) পরশুরাম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। ২০১৫ সালের ২৯ জুন রাতে শুভকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান একই উপজেলার রহিম, ফারুক, সমীর ও স্বপন গাছের সঙ্গে বেধে হত্যা করে। দন্ডপ্রাপ্ত রমেশ বৈদ্যের পুকুর পাড়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে গলায় ফাঁস লাগিয়ে শুভ’র বাবার কাছে মোবাইলে এক লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে অপারগতা জানালে শুভ বদ্যকে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরদিন হাত পা বাধা লাশ উদ্বার করে স্থানীয়রা। শুভ বৈদ্যের বাবা পরশুরাম উপজেলার দক্ষিন বাজারের লিটন বাদার্সে কর্মরত ছিলেন।

এ ঘটনায় শুভর বাবা সাধন বৈদ্য পরশুরাম থানায় মামলা করলে চারজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) খান মো. রহমত উল্যাহ চারজনকে অভিযুক্ত করে একই বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেন। ১৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আজ সোমবার বিচারক এ রায় দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আদালত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ