Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

ক্রমেই উত্তপ্ত নির্বাচনের মাঠ বগুড়া সদর আসনে উপনির্বাচন

মহসিন রাজু | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

বগুড়ায় ক্রমেই সংঘাতমুখর হয়ে উঠছে ভোটের মাঠ। ধানের শীষের প্রচারণায় হামলা, রাতের আঁধারে ছিড়ে ফেলা হচ্ছে পোস্টার। ফলে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় সাধারণ ভোটারগণ। গতকাল সোমবার দুপুরে বগুড়ার শাখারিয়া ইউপির পাঁচবাড়িয়া হাট এলাকায় ধানের শীষের প্রচারণা বহরে হামলা করেছে এই আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনহাজ্ব মন্ডলের আপেল মার্কার কর্মী ও সমর্থকরা।
হামলার বর্ণনা দিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার দুপুরে বিএনপি প্রার্থী জি এম সিরাজ দলের সিনিয়র নেতা রেজাউল করিম বাদশা, আলী আজগর তালুকদার হেণা, মাফতুন আহম্মেদ খান রুবেল প্রমুখের নেতৃত্বে গণসংযোগ করতে যান শাখারিয়ার পাঁচবাড়িয়া হাট এলাকায়। ওই এলাকায় স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য প্রার্থী মিনহাজ¦ মন্ডলের বাড়ি হওয়ায় আগে থেকেই সেখানে ধানের শীষের প্রচারণা চালাতে নিষেধ করা হয়।
এ নিয়ে দু’পক্ষের নেতাকর্মীদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এক পর্যায়ে আপেল মার্কার সংঘবদ্ধভাবে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে।
হামলায় বিএনপির সিনিয়র নেতাকর্মীরা সেখান থেকে চলে আসলেও লাঠিপেটায় আহত হন বগুড়া সদর ছাত্রদলের সভাপতি সিফাত সরকারসহ ১০ /১৫ জন নেতাকর্মী। আহতদের মধ্যে সিফাত সরকারের অবস্থা আশঙ্কাজনক। চিকিৎসার সময় তার মাথায় ক্ষতস্থানে ১৬টি সেলাই দিতে হয়েছে। হামলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের ১০ টি মোটর সাইকেল ভাঙচুর করা হয়েছে।
বিএনপির নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেছেন, দৃশ্যত স্বতন্ত্র প্রার্থীর ব্যানারে হামলা হলেও এর নেপথ্যে রয়েছে আওয়ামী লীগ। তবে আওয়ামী লীগ বলেছে, বিএনপির অভিযোগ বা অনুমান সম্পূর্ণ ভুল। এই হামলায় বিএনপির চরম সাংগঠনিক দুর্বলতায় ফুটে উঠেছে। এর আগেও বগুড়া শহরের প্রানকেন্দ্র সাতমাথায় বিএনপির প্রচারণা বহরে হামলা করে ছাত্রলীগ। ওই হামলায় ছাত্রদল জেলা শাখার সভাপতি আবু হাসান মারাত্মকভাবে আহত হন। এছাড়া সাবেক এমপি হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু ব্যাপকভাবে নাজেহাল হন ।
বিএনপি প্রার্থী ও বগুড়া জেলা বিএনপির আহŸায়ক সাবেক এমপি জিএম সিরাজ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বিভিন্ন স্থানে ধানের শীষের পোস্টার ছিড়ে ফেলা হচ্ছে, যা সুষ্ঠু নির্বাচন প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে চরম এক অন্তরায়।
এদিকে আসন্ন উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী টি জামান নিকেতার পক্ষে ইতোমধ্যেই কেন্দ্রর অনেক নেতাই সক্রিয় হলেও বিএনপির পক্ষে এখন পর্যন্ত কোনো নেতাই গণসংযোগ করতে আসেননি বলে লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এছাড়াও বিগত দিনের আন্দোলন সংগ্রামের মতোই বিএনপির নির্বাচনী প্রচারণাও হয়ে উঠেছে ফেসবুক সর্বস্ব।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উপনির্বাচন

৬ অক্টোবর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ