Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

বেগম খালেদা জিয়ার গ্যাটকো দুর্নীতি মামলার পরবর্তী শুনানীর তারিখ ১৫ জুলাই

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০১৯, ৫:৩৪ পিএম

ঢাকার কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগারের পাশে একটি ভবনে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গ্যাটকো দূর্নীতি মামলার পরবর্তী শুনানীর তারিখ আগামী ১৫জুলাই ধার্য়করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার(১৮জুন) সকাল সোয়া এগাররোটায় এই মামলার বিচার কার্যক্রম শুরু করা হয়। উভয়পক্ষের আইনজীবিদের যুক্তিতর্ক শেষে আসমীপক্ষের আইনজীবিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে মহামান্য আদালত এই মামলার পরবর্তী শুনানীর তারিখ আগামী মাসের ১৫ তারিখে ধার্যকরেন। আতদালতচলাকলীন সময়ে আদালতে আসামীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড.খন্দকার মোশারফ হোসেন, লুৎফুল কবীর, কমডোর জুলফিকার আলী, এস এম শাহাদাৎ হোসেন, এ এম সানোয়ার হোসেন,সৈয়দ গালিব আহমেদ,সৈয়দ তানভির আহমেদ, একে এম মুসা কাজল, মিসেস জাহানারা আনসার, ,একেএম রশিদ উদ্দিন আহমেদ, ও জুলফিকার হায়দার চৌধুরীসহ ১১জন আদালতে উপস্থিত ছিলেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ, এহসান ইউসুফ, ইসমাইল হোসেন সায়মন, একেএম মোশারফ হোসেন ও শাজাহান এম হাসিবসহ ৫জন আসামী আদালতে অনুপস্থিত ছিলেন। মামলার প্রধান আসামী বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন থাকার কারনে তিনি আদালতে হাজির হতে পারেননি। আসামীপক্ষের আইনজীবিদের নেতৃত্ব দেন এ্যাডভোকেট মাসুদ রানা এবং রাষ্ট্রপক্ষের দুদুকের আইনজীবি ছিলেন মোশারফ হোসেন কাজল। আজ মামলার চার্জ গঠনের তারিখ ছিল। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া অসুস্থ্য থাকায় তিনি আদালতে উপস্থিত হতে পারেননি। এই জন্য তার আইনজীবি এ্যাডভোকেট মাসুদ রানার নেতৃত্বে অন্যান্য আইনজীবিরা মহামান্য আদালতের কাছে সময়ের আবেদন করলে উভয় পক্ষের আইনজীবিদের শুনানী শেষে বিজ্ঞ আদালত মামলার পরবর্তী শুনানীর তারিখ আগামী ১৫জুলাই ধার্য্য করেন। এই মামলার বিচারক ছিলেন বিচারপতি আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন। এই মামলায় মোট আসামী ছিল ২৪জন। ইতিমধ্যে ৭জন আসামী মৃত্যু বরন করেছে। বাকী ১৬জন আসামী জামিনে আছেন। শুধু বেগম খালেদা জিয়া জেল হাজতে রয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খালেদা জিয়া


আরও
আরও পড়ুন