Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

দেশে ১ লাখ চিকিৎসক ৮ লাখ স্বাস্থ্য সহকারী প্রয়োজন- প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্লাত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০১৯, ৮:০৬ পিএম

বাংলাদেশে বিদ্যমান জনসংখ্যার সচিকিৎসা নিশ্চিত করতে হলে আরও এক লাখ চিকিৎসক এবং ৮ লাখ বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্য সহকারী প্রয়োজন। জনবল বাড়ানোর পাশপাশি স্বাস্থ্য খাতে বাজেটও বাড়াতে হবে। অন্যথায় দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করে এসডিজি বাস্তবায়নে কাঙ্খিত লক্ষমাত্রা অর্জণ সম্ভব হবে না।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) রাজধানীর মহাখালীর বিএমআরসি ভাবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন ইন্টার পার্লামেন্টরি ইউনিয়ন এর স্বাস্থ্য বিষয়ক গ্রুপের উপদেষ্ঠা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্ল­াত।

‘এসডিজি বাস্তবায়নে কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিভার্সাল হেলথ কাভারেজ বিষয়ক সংলাপ’ শীর্ষক এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা ট্রাস্ট।

ট্রাস্টের সভাপতি অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলীর সভাপতিত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ট্রাস্টের সদস্য ও বিএফইউজের মহাসচিব সাবান মাহমুদ, ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) ড. মো. ইউনুস আলী প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্লাত বলেন, অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে চিকিৎসা ক্ষেত্রে রোগীদের আউট অব পকেট ব্যয় অনেক বেশি। প্রতিবছর দেশের প্রায় ৫৫ লাখ মানুষ চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে গিয়ে দারিদ্রের শিকার হন। অথচ স্বাস্থ্য খাতে জাতীয় বাজেটের বরাদ্ধ মাত্র শুণ্য দশমিক ৬৯ ভাগ। তিনি বলেন, স্বাস্থ্যখাতে কাঙ্খিত লক্ষমাত্রা অর্জনে প্রতিবছর কমপক্ষে এক শতাংশ হারে বাজেটে বরাদ্ধ বাড়াতে হবে।

ট্রাস্টের সভাপতি প্রফেসর ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী বলেন, প্রান্তিক জনগোষ্টির স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে আরও প্রায় ১২ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক হেলথ কেয়ার প্রভাইডার নিয়োগ দেয়া হবে। যথেষ্ট সচ্ছতার সঙ্গে নিয়োগ সম্পন্ন করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক হেলথ কেয়ার প্রভাইডার’ বা সিএইচসিপিদের চাকরি ট্রাস্টের আওতায় আনা হয়েছে। এতে করে সরকারী চাকরিজীবীদের মতো তারাও চাকরি স্থায়ীকরণ, বেতন বৃদ্ধি, পদোন্নতির সুযোগ, গ্রাচুইটি ও অবসর ভাতা সুবিধা পাবেন।

এ সময় জানানো হয়, সারাদেশে ১৪ হাজার ৮৯০টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। এ পর্যন্ত ক্লিনিকগুলো থেকে সেবা গ্রহণকারীর সংখ্যা ৬২ কোটি ৫৭ লাখ। বর্তমানে ১৩ হাজার ৮৬১টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে। আরও এক হাজার ২৯টি বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনা রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্বাস্থ্য


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ