Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

গুমকে সরকারি কর্মসূচিতে পরিণত করা হয়েছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ জুন, ২০১৯, ১২:১০ এএম

গণতন্ত্র ও সংবিধানকে কেড়ে নিয়ে নিজের দখলে রাখার জন্য গুমকে সরকারি কর্মসূচিতে পরিণত করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতার প্রতি নিবিড় নিবিষ্ট ধ্যানে নিমগ্ন থাকার জন্যই বাংলাদেশ আজ গুম-খুনের লীলাভ‚মিতে পরিণত হয়েছে। কারণ সুষ্ঠু নির্বাচন, জবাবদিহিতা ও মানুষের মানবিক মর্যাদার বিরুদ্ধে তিনি নিয়ন্ত্রিত আগ্রাসন চালিয়ে যাচ্ছেন কোন কিছুকে তোয়াক্কা না করে। একারণে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা গুমের চেতনায় আত্মপ্রকাশ ঘটেছে। গতকাল (বুধবার) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

দেশ এখন মগ দস্যু ও ঠগীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে অভিযোগ করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, মানুষের জীবন-যাপন ও বেঁচে থাকা নির্ভর করছে ঠগীদের ওপর। যেকোন মূহুর্তে যেকোন মানুষ অথবা যেকোন পরিবারের যেকোন সদস্য গুম হয়ে যেতে পারে ক্ষমতাসংশ্লিষ্ট কোন ব্যক্তির সাথে যদি তার ন্যূনতম মনোমালিন্য হয়। দেশে এখন কন্ট্রাক্ট গুম চলছে। প্রভাবশালীরা তাদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীতে যারা গুমের দায়িত্বে আছে তাদের সাথে কন্ট্রাক্ট করে প্রতিপক্ষকে অদৃশ্য করাচ্ছে। বর্তমান সরকারেরই সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী’র ভাগ্নে ও মুক্তিযুদ্ধকালীন প্রবাসী সরকারের প্রধানমন্ত্রীর নাতির গুম হয়ে যাওয়ার ঘটনা গোটা জাতিকে আতঙ্কিত ও শিহরিত করে তুলেছে।

খালেদা জিয়াকে যে অভিযোগে মামলা করা হয়েছে তা সম্পূর্ণরুপে অসত্য এবং মামলারই যোগ্য নয় দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আদালত জামিন দিলে সেক্ষেত্রে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। কিছুদিন আগে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্য আর ওবায়দুল কাদেরের এই কথায় বুঝা যায়, জামিনযোগ্য হলেও সরকারের কারণেই খালেদা জিয়ার জামিন হচ্ছে না। তাই কালবিলম্ব না করে সামনে আর দুইটি বানোয়াট মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন নিশ্চিত হলে উচ্চতর আদালতের ওপর মানুষের আস্থা আরও বৃদ্ধি পাবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

গত মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত পঞ্চম ও শেষ ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও আওয়ামী সংস্কৃতির ধারাবাহিকতায় পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের ক্যাডাররা ন্যাক্কারজনক ভুমিকা পালন করেছে বলে অভিযোগ করেছেন রিজভী। তিনি বলেন, ২০টি উপজেলার প্রায় সবখানে পুলিশের ভ‚মিকা ছিল দলীয় ক্যাডারের মতো। নৌকা প্রার্থী ছাড়া অন্যরা যারা প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেছেন তাদের ঠেকানোর জন্য মাঠে সক্রিয় ছিল পুলিশ ও আওয়ামী লীগ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ