Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১২ জুলাই ২০২০, ২৮ আষাঢ় ১৪২৭, ২০ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

কলাপাড়া থানায় মামলা, ৪টি ল্যাপটপ উদ্ধার, ১৪ জন শ্রমিক গ্রেফতার

দ্বিতীয় দিনের মতো পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে কার্যক্রম বন্ধ

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ জুন, ২০১৯, ৯:১৩ পিএম

দেশী বিদেশী দুই শ্রমিক নিহতের ঘটনায় দ্বিতীয় দিনের মতো পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রে সকল ধরনের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভেতরে বাইরে আজও বিপুল পরিমান পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। অপ্রিতীকর ঘটনা এড়াতে নিয়োজিত রয়েছে ৮ প্লাটুন বিজিবি।কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান,এ বিষয়ে তাপবিদুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের একটি মামলা কলাপাড়া থানায় ডায়েরীভুক্ত করা হয়েছে,ইতোমধ্যে ৪ টি ল্যাপটপ উদ্ধার সহ ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।মামলার বাদী ওয়াংলি পিং।
আজ বৃহস্পতিবার দুপূরে তাপ বিদুৎ কেন্দ্রের ভিতরে বাংলাদেশী শ্রমিক সেলিম মোবাইলে জানান,গতকাল সভায় সিদ্ধান্ত মত তাদের জানানো হয়েছিল আজকে থেকে কাজ শুরু হবে,কিন্তু আজও কাজ শুরু হয়নি। এ দিকে গতকাল দিনে ও রাতে তাপ বিদুৎ কেন্দ্রের পিছনের দিকের একটি অংশের দেয়াল টপকে আতকিংত শ্রমিকদের অনেকেই চলে গেছেন বলে তিনি জানান।বর্তমানে বাংলাদেশী শ্রমিদের চারহাজারের মধ্যে প্রায় ১ হাজার শ্রমিক ভিতরে অবস্থান করছেন।
এদিকে কেন্দ্রের সিনিয়র এসিটেন্ট ম্যানেজার শাহমনি জিকো জানান,গত মঙ্গলবারের ঘটনার পর থেকে উভয় দেশের শ্রমিকদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে ,তারা উভয় পক্ষকেই স্বাভাবিক কাজে ফিরে আনার পরিবেশ তৈরী করতে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে তিনি মনে করেন এখানে একটি স্বাার্থন্বেষী মহলের উস্কানীতে এ বিচ্ছৃংখল ঘটনা ঘটেছে। তাপ বিদুৎ কেন্দ্রের নিয়মিত কোন শ্রমিক এ ঘটনা ঘটাতে পারেনা বলে তিনি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন।
তিনি আরো বলেন মঙ্গলবারে রাতে বাহির থেকে হাজার লোক ভিতরে প্রবেশ করে চাইনিজদের উপর হামলা চালায় ,এ সময় তারা কেন্দ্রের ভিতর ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালায় । এসময় তারা অতিমূল্যবান এবং গুরুত্বপূর্ন আনুমানিক ১২ টি ল্যাপটপ ও১১ টি ডেস্কটপ সহ অনেক মূল্যবান ব্যবহার্য সামগ্রী লুটপাট করে নিয়ে যায়। এদিকে শাহমনি জিকো জানান,তিনি দুপূরে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে নিয়ে বাংলাদেশী শ্রমিকদের সাথে একটি সভা করেছেন,সভায় নিহত শ্রমিকের পরিবারকে ক্ষতিপূরন সহ প্রয়োজনীয় সহায়তা করার আ্শ্বাস প্রদান করেছেন।
জেলা প্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানিয়েছেন প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্টেটকে আহবায়ক করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এর বাইরে পুলিশের পক্ষ থেকে একটি এবং পায়রা তাপবিদুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ আরো একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। গঠিত তদন্ত কমিটিকে আগামী সাত কর্ম দিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট পেশ করতে বলা হয়েছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান জানান,তাঁকে সভাপতি করে তিন সদস্য বিশিষ্ট পুলিশের তদন্ত কমিটি গতকাল থেকে তাদের তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছে। ইতিমধ্যে তদন্তে অনেক তথ্য পাওয়া গেছে বলে দাবী করে তিনি বলেন ৫ কর্মদিবসের মধ্যে তারা রিপোর্ট প্রদান করবেন।



 

Show all comments
  • Heron ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১১:০৪ এএম says : 0
    এখানে আপনি আপনার মন্তব্য করতে পারেন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ