Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

সউদীকে অস্ত্র বিক্রির বিরুদ্ধে ভোট দিল মার্কিন সিনেট

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ জুন, ২০১৯, ১২:০৮ এএম

কংগ্রেসকে এড়িয়ে সউদী আরব ও অন্যান্য আরব মিত্র দেশগুলোর কাছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন অস্ত্র বিক্রির যে বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিল সিনেট তা রুখে দিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সিনেটে ভোটাভুটিতে গিয়ে তা আটকে যায়। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের সিদ্ধান্ত ছিল সউদী ও তার আরব মিত্রদের কাছে ৮ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র বিক্রি করার। কিন্তু সিনেটের এই ভোটে তা আটকে গেল।
গত অক্টোবরে সউদী সাংবাদিক খাসোগিকে হত্যার ব্যাপারে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানকে শাস্তি দেয়ার ক্ষেত্রে কংগ্রেসের অব্যাহত চাপ সত্তে¡ও সিনেটকে পাস কাটিয়ে জরুরি সিদ্ধান্ত গ্রহণে ট্রাম্প প্রশাসনের ক্রমাগত আগ্রহের বিরুদ্ধে ডেমোক্রেটদের সাথে যোগ দেয় অনেক রিপাবলিকানও। এর আগে চলতি মাসে আরেক দফা ট্রাম্প প্রশাসনের বিদেশ নীতির বিরুদ্ধে নিজ দলীয় সিনেটররাও বিরোধী ডেমোক্রেটদের সাথে যোগ দিয়ে বিপক্ষে ভোট দেয়।
যুক্তরাজ্য আদালতের বাধা
এদিকে উপসাগরীয় দেশগুলোতে সামরিক সরঞ্জাম রফতানি বেআইনি বলে উল্লেখ করেছেন যুক্তরাজ্যের আদালত। এতে বলা হয়, পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে, এ অস্ত্র ব্যবহারের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মানবিক আইন মারাত্মক লঙ্ঘন হচ্ছে। বিচারক বলেন, লাইসেন্স পর্যালোচনায় রয়েছে, কিন্তু তবে খুব দ্রæতই বাতিল করা হবে না।
আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সচিব লিয়াম ফক্স বলেন, আদালতের রায়ের কারণে সরকার সউদী আরব ও তার জোটকে অস্ত্র রফতানির জন্য নতুন কোনো লাইসেন্সের অনুমতি দেবে না।
যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মের মুখপাত্র বলেন, সরকার এ বিষয়ে হতাশ। এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে। যুক্তরাজ্যের রফতানি নীতি অনুযায়ী, যদি পরিষ্কার ঝুঁকি থাকে অস্ত্র ব্যবহারের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক মানবিক আইনের মারাত্মক লঙ্ঘন হয় তাহলে সামরিক সরঞ্জামের লাইসেন্স অনুমতি দেয়া হয় না। ফক্স বলেন, সরকার ভবিষ্যতের যে কোনো ঝুঁকির বিষয়ে পুনর্বিবেচনা করবে। সরকার সবসময় রফতানির বিষয় খুব গুরুত্বসহকারে দেখে।
ওদিকে অস্ত্র বিক্রির নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সউদী পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যুক্তরাজ্যের অস্ত্র রফতানির বাধার মুখে ইরানই একমাত্র লাভবান হবে। সূত্র : নিউ ইয়র্ক টাইমস ও বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন