Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

মাহমুদউল্লাহর পর ফিরলেন সাব্বির

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জুন, ২০১৯, ১১:৪৩ পিএম | আপডেট : ১২:২২ এএম, ২১ জুন, ২০১৯

মাহমুদউল্লাহর বিদায়ের পরের বলেই সাব্বিরকে (০) বোল্ড করে ফিরিয়ে দিলেন নাইল। মুশফিক ৮৪ রানে মিরাজ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৬ ওভারে সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩০৪ রান।

তিনশ পার করে ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ

 

মাহমুদউল্লাহর বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে তিনশ পেরিয়েছে বাংলাদেশ। মাত্র ৪৫ ওভারেই তিনশ পেরুল টাইগাররা। কিন্তু ৫০ বলে ৬৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে আউট হন তিনি। মুশফিক ৮৩ রানে অপরাজিত আছেন।

 

দলীয় সংগ্রহ ৪৫.৩ ওভারে ৫ উইকেটে ৩০২ রান।

 

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর শতরানের জুটি

মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহের শতরানের জুটিতে এগুচ্ছে বাংলাদেশ। মুশফিক ৮১ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ৫৮ রানে অপরাজিত আছেন। মাত্র ৪১ বলে ব্যক্তিগত অর্ধশত পূর্ণ করেন মাহমুদউল্লাহ।

৪৪ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৮৯ রান।

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে বাংলাদেশের আড়াইশ

মুশফিক-মহিমুদউল্লাহর ব্যাটে আড়াইশ রান পেরিয়েছে বাংলাদেশ। লিটন আউট হওয়ার পর এই দুই ব্যাটসম্যানে এগুচ্ছে দলের রান। মুশফিক ৭ চার ও ১ ছয়ে ৭৬ রানে ও ৩ চারে ৩২ রান করে অপরাজিত আছেন মাহমুদউল্লাহ। বাংলাদেশ দল ৩০ থেকে এখন অবধি কোন উইকেট হারায়নি। এই দুই ব্যাটসম্যান তাদের জুটিতে ৭৪ রান যোগ করেছেন।

দলীয় সংগ্রহ ৪১.২ ওভারে ৪ উইকেটে ২৫০ রান।

মুশফিকের ব্যাটে বাংলাদেশের দুইশ

মুশফিকের ব্যাটে দলীয় দুইশ পেরিয়েছে বাংলাদেশ। এরমাঝে ব্যক্তিগত ৩৫তম অর্ধশত রানের দেখাও পেয়েছেন এই ব্যাটসম্যান। মুশফিক ৫২ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ১৫ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ৩৫ ওভারে ৪ উইকেটে ২০৭ রান।

রিভিউ নিয়েও লিটনের বিদায়

অজি লেগ স্পিনার জাম্পার করা একটি বল লিটনের প্যাডে লাগলে জোড়ালো আবেদন করে অস্ট্রেলিয়া। তাতে আম্পায়ারের সাড়াও মেলে। কিন্তু তারপর রিভিউ নিয়েও দেখা যায় বলটি স্ট্যাম্পের অল্পকিছু অংশ ছুঁয়ে যেত। আম্পায়ার কলের সুবিধায় আউটের সিদ্ধান্ত বহাল থাকলেও রিভিউটি ফেরত পেয়েছে বাংলাদেশ। লিটন ২০ রানে ফেরেন। মুশফিক ৩৫ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৩০ ওভার শেষে সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১৭৭ রান।

দলকে বিপদে ফেললেন তামিম

স্টার্কের অফ স্ট্যাম্পের একটু বাউরের একটা বলে খোঁচা দিতে গিয়ে ইনসাইড এজে বোল্ড হয়ে ফিরলেন তামিম। নিজের দ্বিতীয় স্পেলের প্রথম বলেই তামিমকে ফেরালেন এই পেসার। তামিম ৬২ রানে আউট হন। তামিমের আউটে ভয়ঙ্কর বিপদে পড়ল দল। মুশফিক ৩২ রানে ও লিটন ৪ রানে অপরাজিত আছেন। ইনিংসের ২৭তম ওভারেই দলীয় দেড়শ পেরিয়ে যান বাংলাদেশ।

এছাড়া এই উইকেট শিকার করে এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীর তালিকায় প্রথমে গেলেন স্টার্ক। তার উইকেট এখন ১৪টি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা আমিরের উইকেট সংখ্যা ১৩।

২৭ ওভারে সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৫৭ রান।

অর্ধশত রানে তামিম

ব্যক্তিগত ৪৭তম ফিফটি পূর্ণ করলেন তামিম। একুশতম ওভারের চতুর্থ বলে ১ রান নিয়ে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন এই বাহাতি। তামিম ৫৩ রানে ও মুশফিক ১৮ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ২২ ওভারে ২ উইকেটে ১২৯ রান।

সাকিবের বিদায়ে চাপে বাংলাদেশ

তামিম ও সাকিবের ভালোভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু স্টোইনিসের অফ কাটার ঠিকমতো বুঝতে না পেরে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ফেরার আগে ৪১ রান করেন সাকিব। তামিম ৪৫ ও মুশফিক ২ রানে অপরাজিত আছেন। এর আগে ১৮তম ওভারে দলীয় শতরান পূর্ণ করে বাংলাদেশ।

দলীয় সংগ্রহ ১৯ ওভারে ২ উইকেটে ১০৫ রান।

সাকিব-তামিমের পঞ্চাশ রানের জুটি

সৌম্যর রান আউটের পর দলকে এগিয়ে নিচ্ছেন সাকিব-তামিম জুটি। অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান ইতিমধ্যে দলীয় সংগ্রহে পঞ্চাশ রান যোগ করেছেন। ইতিপূর্বে ম্যাচের দশম ওভারে দলীয় পঞ্চাশ পেরোয় বাংলাদেশ। তামিম ২৭ রানে ও সাকিব ৩১ রানে অপরাজিত আছেন।

১৩ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ৭৫ রান।

রিভিউ হারাল অস্ট্রেলিয়া

সাকিব ৩ রানে ব্যাট করছেন। ইনিংসের অষ্টম ওভারের চতুর্থ বলে নাইল লেগ বিফোরের আবেদন করলে আম্পায়ার তাতে সাড়া দেননি। অস্ট্রেলিয়া রিভিউ নিলে তাতে দেখা যায়, বলটি লে স্ট্যাম্পের বাইরে পিচ করেছে। ফলে ম্যাচের একমাত্র রিভিউটি হারায় অজিরা।

শুরুতেই রান আউটে ফিরলেন সৌম্য

৮ বল থেকে ১০ রান করে তামিমের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে ফিরে যা সৌম্য। মিড-অনে ফিল্ডিংয়ে থাকা ফিঞ্চের সরাসরি থ্রোতে স্ট্যাম্প ভেঙে গেলে উল্লাসে মাতে অস্ট্রেলিয়া। এর আগের ওভারে স্টার্ককে দুটি চার মারেন সৌম্য। তামিম ৮ রানে ও সাকিব ০ রানে অপরাজিত আছেন।

৪ ওভারে দলীয় সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৩ রান।

বাংলাদেশকে বড় লক্ষ্য দিলো অস্ট্রেলিয়া

ডেভিড ওয়ার্নারের ১৬৬ রানে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৮১ রান করেছে অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া খাজা ও ফিঞ্চ দুজনেই অর্ধশত রান পূর্ণ করেন। বাংলাদেশের হয়ে তিনটি উইকেট পেয়েছেন সৌম্য। বাংলাদেশী ক্রিকেটারদের বাজে বোলিং ও ফিল্ডিংয়ের খেসারতসরূপ অজিরা এই বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে। জয়ের জন্য বাংলাদেশকে করতে হবে ৩৮২ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৩৮১/৫ (৫০ ওভার) (ওয়ার্নার ১৬৬, ফিঞ্চ ৫৩, খাজা ৮৯, ম্যাক্সওয়েল ৩২, স্টোইনিস ১৭*, স্মিথ ১, ক্যারি ১১*; মাশরাফি ৫৬/০, মুস্তাফিজ ৬৯/১, সাকিব ৫০/০, রুবলে ৮৩/০, মিরাজ ৫৯/০, সৌম্য ৫৮/৩)

ম্যাচে বৃষ্টির হানা

বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা আগেই জানিয়ে দেয়া হয়েছিলো। সেই সময়ের আশেপাশেই বৃষ্টির দেখা মিলল। বৃষ্টির আগে ক্যারি ৯ রানে ও স্টোইনিস ৬ রানে ব্যাটে ছিলেন।

৪৯ ওভারে সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৬৮ রান।

মুস্তাফিজের শিকার স্মিথ

ব্যক্তিগত ৮ম ওভারে নিজের প্রথম উইকেটের দেখা পেলেন মুস্তাফিজ। স্মিথকে (১) ওভারের প্রথম বলেই এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন এই পেসার। রিভিউ নিয়েও কোন কাজ হয়নি। ক্যারি ও স্টোইনিস ৩ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৮ ওভারে সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৫৯ রান।

সৌম্যর এক ওভারে দুই উইকেট

সৌম্যর প্রথম বলে ছক্কা মারার পর দ্বিতীয় বলে পরাস্ত হয়ে লেগ শর্ট ফাইন লেগে বল যায়। মাত্র ৯ বলে ৩২ রান করা ম্যাক্সওয়েলকে সরাসরি থ্রোতে রান আউট করে ফেরান রুবেল।  সেখানেই বিদায় হন ম্যাক্সওয়েল। ওভারের পঞ্চম বলে খাজাকেও মুশফিকের গ্লাভসে আটকে দেন এই পার্টটাইম বোলার। আজকের ম্যাচে এটি সৌম্যর তৃতীয় উইকেট। স্টোইনিস ও স্মিথ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৭ ওভারে দলীয় সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৩৫৪ রান।

সৌম্যর দ্বিতীয় শিকার দেড়শ পেরুনো ওয়ার্নার

পার্টটাইম বোলার সৌম্যর দ্বিতীয় শিকার ওয়ার্নার (১৬৬)। প্রথমে ফিঞ্চকে ফেরানোর পর এবার ওয়ার্নারকেও ফেরালেন তিনি। খাজা ৮৪ রানে ও ম্যাক্সওয়েল ৭ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৫ ওভার শেষে সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩২১ রান।

ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে ওয়ার্নার-খাজা জুটি

ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে ওয়ার্নার-খাজা জুটি। অধিনায়ক ফিঞ্চের বিদায়ের পর ১৬০ রান যোগ করেছেন দুই ব্যাটসম্যান। ওয়ার্নার ১৫১ রানে ও খাজা ৮২ রানে অপরাজিত আছেন। ক্যারিয়ারে এই নিয়ে ছয়বার দেড়শ রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন ওয়ার্নার।

৪৩ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৯৬ রান।

ওয়ার্নারের সেঞ্চুরিতে বড় সংগ্রহের পথে অস্ট্রেলিয়া

মাত্র ১০ রানেই ফেরানোর সুযোগ হাতছাড়া হওয়া পর সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন ওয়ার্নার। এই ওপেনারের শতকে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা। খাজাকে নিয়ে ম্যাচের ৩৫তম ওভারেই দলীয় দুইশ পেরিয়েছে ফিঞ্চের দল। ওয়ার্নার ১০৮ রানে ও খাজা ৪০ রানে অপরাজিত আছেন।

৩৫ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ২০৮ রান।

বিধ্বংসী ফিঞ্চকে ফেরালেন সৌম্য

আক্রমনাত্বক ব্যাটিং করে যাওয়া ফিঞ্চকে ফেরালেন সৌম্য সরকার। ব্যক্তিগত প্রথম ওভারেই শর্ট থার্ড ম্যান এরিয়াতে ক্যাচ আউট করেন অজি দলপতিকে। ফিঞ্চ ৫৩ রানে আউট হন। ওয়ার্নার ৬২ রানে ও খাজা ০ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ২১ ওভারে ১ উইকেটে ১২১ রান।

ফিঞ্চ-ওয়ার্নারের জোড়া হাফ-সেঞ্চুরিতে চাপে বাংলাদেশ

দুর্দান্ত ব্যাট করছে অস্ট্রেলিয়া। দুই ওপেনার ব্যাটসম্যনই ক্রিজে থিতু হয়ে গেছেন। হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন দুজনই। ওয়ার্নার ৫৯ রানে ও ফিঞ্চ ৫২ রানে অপরাজিত আছেন। ইনিংসের ১৭ ওভারেই দলীয় শতরান পেরিয়েছে অজিরা। এই দুই ব্যাটসম্যানের ক্রিজে টিকে থাকায় চাপ বাড়ছে বাংলাদেশের।

দলীয় সংগ্রহ ২০ ওভারে বিনা উইকেটে ১১৭ রান।

বাজে ফিল্ডিংয়ের খেসারত দিচ্ছে বাংলাদেশ

শুরুতেই ব্যাটে-বলে হচ্ছিলো না ওয়ার্নারের। তাকে জীবন দেয়ার পর দুর্দান্ত খেলছেন তিনি। এছাড়া ফিল্ডিংয়ে বেশকিছু মিস ভোগাচ্ছে বাংলাদেশকে। তাই ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া। ওয়ার্নার ৩৩ রানে ও ফিঞ্চ ৩১ রানে অপরাজিত আছেন। বাজে ফিল্ডিয়ের খেসারত হিসেবে ওয়ার্নার-ফিঞ্চকে একটি রেকর্ড তুলে দিয়েছে বাংলাদেশ। এবারের বিশ্বকাপে এই জুটিতে পাঁচটি অর্ধশত রানের ইনিংস খেলেছে। যা এবারের আসরের অন্যকোন দলের ওপেনার জুটির নেই। 

 ১২ ওভার শেষে দলীয় সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৬৭ রান।

জীবন পেলেন ওয়ার্নার

মাশরাফির বলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে খেলতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন ওয়ার্নার। কিন্তু এই বিধ্বংসী ওপেনারকে শুরুতেই ক্যাচ মিস করে জীবন দেন সাব্বির রহমান। ফিরিয়ে দেয়া যেত ১০ রানে কিন্তু জীবন পাওয়া ওয়ার্নার এখন ব্যাট করছেন ১২ রানে। ফিঞ্চ অপরাজিত আছেন ১৩ রানে।

৫ ওভারে দলীয় সংগ্রহ কোন উইকেট না হারিয়ে ২৭ রান।

টস হেরে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

টস জিতে বাংলাদেশকে বোলিংয়ে পাঠিয়েছেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি জানিয়েছেন টসে জিতলে তিনি প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিতেন।

বাংলাদেশ দল দুটি পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামবে। বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো খেলছেন রুবেল হোসেন ও সাব্বির রহমান। মোসাদ্দেক ও সাইফউদ্দিন আজ মূল একাদশে নেই। অস্ট্রেলিয়া দলেও আছে তিনটি পরিবর্তন। মার্কাস স্টোইনিস ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরেছেন। নাথান কোল্টার নাইল, অ্যাডাম জাম্পাও ফিরেছেন দলে। শন মার্শ, বেহানড্রফ ও রিচার্ডসন আজ একাদশের বাইরে আছেন। 

অস্ট্রেলিয়া দল: অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, উসমান খাজা, স্টিভেন স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টোইনিস, অ্যালেক্স ক্যারি (উইকেটরক্ষক), নাথান কোল্টার নাইল, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, অ্যাডাম জাম্পা।

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদি হাসান মিরাজ, মাশরাফি মুর্তজা (অধিনায়ক), রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান।

আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশের সামনে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া

বিশ্বকাপের ২৬তম ম্যাচে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশের মুখোমুখি শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশ সময় আজ দুপুর সাড়ে তিনটায় ট্রেন্ট ব্রিজে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে রেকর্ড রান তাড়া করে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর টাইগাররা। অন্যদিকে নিজেদের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া। তাই আজকের ম্যাচটি অন্যরকম রোমাঞ্চ ছড়াবে, এই আশা করাই যায়।

পরিসংখ্যান:

২০০৫ সালে কার্ডিফে অস্ট্রেরিয়ার বিপক্ষে একমাত্র জয়ই বাংলাদেশের সম্বল। কিন্তু টাইগাররা ক্রিকেটে বদলে গেছে অন্যরকমভাবে। তাই আজ ভিন্ন ফল আশা করছেন বাংলাদেশী ক্রিকেট সমর্থকরা।

ওয়ানডেতে:

ম্যাচ: ২০

অস্ট্রেলিয়া জয়ী: ১৮

বাংলাদেশ জয়ী: ১

পরিত্যক্ত: ১

বিশ্বকাপে:

ম্যাচ: ৩

অস্ট্রেলিয়া জয়ী: ২

বাংলাদেশ জয়ী: ০

পরিত্যক্ত: ১

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর শতরানের জুটি

মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহের শতরানের জুটিতে এগুচ্ছে বাংলাদেশ। মুশফিক ৮১ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ৫৮ রানে অপরাজিত আছেন। মাত্র ৪১ বলে ব্যক্তিগত অর্ধশত পূর্ণ করেন মাহমুদউল্লাহ।

৪৪ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৮৯ রান।

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে বাংলাদেশের আড়াইশ

মুশফিক-মহিমুদউল্লাহর ব্যাটে আড়াইশ রান পেরিয়েছে বাংলাদেশ। লিটন আউট হওয়ার পর এই দুই ব্যাটসম্যানে এগুচ্ছে দলের রান। মুশফিক ৭ চার ও ১ ছয়ে ৭৬ রানে ও ৩ চারে ৩২ রান করে অপরাজিত আছেন মাহমুদউল্লাহ। বাংলাদেশ দল ৩০ থেকে এখন অবধি কোন উইকেট হারায়নি। এই দুই ব্যাটসম্যান তাদের জুটিতে ৭৪ রান যোগ করেছেন।

দলীয় সংগ্রহ ৪১.২ ওভারে ৪ উইকেটে ২৫০ রান।

মুশফিকের ব্যাটে বাংলাদেশের দুইশ

মুশফিকের ব্যাটে দলীয় দুইশ পেরিয়েছে বাংলাদেশ। এরমাঝে ব্যক্তিগত ৩৫তম অর্ধশত রানের দেখাও পেয়েছেন এই ব্যাটসম্যান। মুশফিক ৫২ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ১৫ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ৩৫ ওভারে ৪ উইকেটে ২০৭ রান।

রিভিউ নিয়েও লিটনের বিদায়

অজি লেগ স্পিনার জাম্পার করা একটি বল লিটনের প্যাডে লাগলে জোড়ালো আবেদন করে অস্ট্রেলিয়া। তাতে আম্পায়ারের সাড়াও মেলে। কিন্তু তারপর রিভিউ নিয়েও দেখা যায় বলটি স্ট্যাম্পের অল্পকিছু অংশ ছুঁয়ে যেত। আম্পায়ার কলের সুবিধায় আউটের সিদ্ধান্ত বহাল থাকলেও রিভিউটি ফেরত পেয়েছে বাংলাদেশ। লিটন ২০ রানে ফেরেন। মুশফিক ৩৫ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৩০ ওভার শেষে সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১৭৭ রান।

দলকে বিপদে ফেললেন তামিম

স্টার্কের অফ স্ট্যাম্পের একটু বাউরের একটা বলে খোঁচা দিতে গিয়ে ইনসাইড এজে বোল্ড হয়ে ফিরলেন তামিম। নিজের দ্বিতীয় স্পেলের প্রথম বলেই তামিমকে ফেরালেন এই পেসার। তামিম ৬২ রানে আউট হন। তামিমের আউটে ভয়ঙ্কর বিপদে পড়ল দল। মুশফিক ৩২ রানে ও লিটন ৪ রানে অপরাজিত আছেন। ইনিংসের ২৭তম ওভারেই দলীয় দেড়শ পেরিয়ে যান বাংলাদেশ।

এছাড়া এই উইকেট শিকার করে এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীর তালিকায় প্রথমে গেলেন স্টার্ক। তার উইকেট এখন ১৪টি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা আমিরের উইকেট সংখ্যা ১৩।

২৭ ওভারে সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৫৭ রান।

অর্ধশত রানে তামিম

ব্যক্তিগত ৪৭তম ফিফটি পূর্ণ করলেন তামিম। একুশতম ওভারের চতুর্থ বলে ১ রান নিয়ে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন এই বাহাতি। তামিম ৫৩ রানে ও মুশফিক ১৮ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ২২ ওভারে ২ উইকেটে ১২৯ রান।

সাকিবের বিদায়ে চাপে বাংলাদেশ

তামিম ও সাকিবের ভালোভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু স্টোইনিসের অফ কাটার ঠিকমতো বুঝতে না পেরে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ফেরার আগে ৪১ রান করেন সাকিব। তামিম ৪৫ ও মুশফিক ২ রানে অপরাজিত আছেন। এর আগে ১৮তম ওভারে দলীয় শতরান পূর্ণ করে বাংলাদেশ।

দলীয় সংগ্রহ ১৯ ওভারে ২ উইকেটে ১০৫ রান।

সাকিব-তামিমের পঞ্চাশ রানের জুটি

সৌম্যর রান আউটের পর দলকে এগিয়ে নিচ্ছেন সাকিব-তামিম জুটি। অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান ইতিমধ্যে দলীয় সংগ্রহে পঞ্চাশ রান যোগ করেছেন। ইতিপূর্বে ম্যাচের দশম ওভারে দলীয় পঞ্চাশ পেরোয় বাংলাদেশ। তামিম ২৭ রানে ও সাকিব ৩১ রানে অপরাজিত আছেন।

১৩ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ৭৫ রান।

রিভিউ হারাল অস্ট্রেলিয়া

সাকিব ৩ রানে ব্যাট করছেন। ইনিংসের অষ্টম ওভারের চতুর্থ বলে নাইল লেগ বিফোরের আবেদন করলে আম্পায়ার তাতে সাড়া দেননি। অস্ট্রেলিয়া রিভিউ নিলে তাতে দেখা যায়, বলটি লে স্ট্যাম্পের বাইরে পিচ করেছে। ফলে ম্যাচের একমাত্র রিভিউটি হারায় অজিরা।

শুরুতেই রান আউটে ফিরলেন সৌম্য

৮ বল থেকে ১০ রান করে তামিমের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে ফিরে যা সৌম্য। মিড-অনে ফিল্ডিংয়ে থাকা ফিঞ্চের সরাসরি থ্রোতে স্ট্যাম্প ভেঙে গেলে উল্লাসে মাতে অস্ট্রেলিয়া। এর আগের ওভারে স্টার্ককে দুটি চার মারেন সৌম্য। তামিম ৮ রানে ও সাকিব ০ রানে অপরাজিত আছেন।

৪ ওভারে দলীয় সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৩ রান।

বাংলাদেশকে বড় লক্ষ্য দিলো অস্ট্রেলিয়া

ডেভিড ওয়ার্নারের ১৬৬ রানে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৮১ রান করেছে অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া খাজা ও ফিঞ্চ দুজনেই অর্ধশত রান পূর্ণ করেন। বাংলাদেশের হয়ে তিনটি উইকেট পেয়েছেন সৌম্য। বাংলাদেশী ক্রিকেটারদের বাজে বোলিং ও ফিল্ডিংয়ের খেসারতসরূপ অজিরা এই বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে। জয়ের জন্য বাংলাদেশকে করতে হবে ৩৮২ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৩৮১/৫ (৫০ ওভার) (ওয়ার্নার ১৬৬, ফিঞ্চ ৫৩, খাজা ৮৯, ম্যাক্সওয়েল ৩২, স্টোইনিস ১৭*, স্মিথ ১, ক্যারি ১১*; মাশরাফি ৫৬/০, মুস্তাফিজ ৬৯/১, সাকিব ৫০/০, রুবলে ৮৩/০, মিরাজ ৫৯/০, সৌম্য ৫৮/৩)

ম্যাচে বৃষ্টির হানা

বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা আগেই জানিয়ে দেয়া হয়েছিলো। সেই সময়ের আশেপাশেই বৃষ্টির দেখা মিলল। বৃষ্টির আগে ক্যারি ৯ রানে ও স্টোইনিস ৬ রানে ব্যাটে ছিলেন।

৪৯ ওভারে সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৬৮ রান।

মুস্তাফিজের শিকার স্মিথ

ব্যক্তিগত ৮ম ওভারে নিজের প্রথম উইকেটের দেখা পেলেন মুস্তাফিজ। স্মিথকে (১) ওভারের প্রথম বলেই এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন এই পেসার। রিভিউ নিয়েও কোন কাজ হয়নি। ক্যারি ও স্টোইনিস ৩ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৮ ওভারে সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৫৯ রান।

সৌম্যর এক ওভারে দুই উইকেট

সৌম্যর প্রথম বলে ছক্কা মারার পর দ্বিতীয় বলে পরাস্ত হয়ে লেগ শর্ট ফাইন লেগে বল যায়। মাত্র ৯ বলে ৩২ রান করা ম্যাক্সওয়েলকে সরাসরি থ্রোতে রান আউট করে ফেরান রুবেল।  সেখানেই বিদায় হন ম্যাক্সওয়েল। ওভারের পঞ্চম বলে খাজাকেও মুশফিকের গ্লাভসে আটকে দেন এই পার্টটাইম বোলার। আজকের ম্যাচে এটি সৌম্যর তৃতীয় উইকেট। স্টোইনিস ও স্মিথ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৭ ওভারে দলীয় সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৩৫৪ রান।

সৌম্যর দ্বিতীয় শিকার দেড়শ পেরুনো ওয়ার্নার

পার্টটাইম বোলার সৌম্যর দ্বিতীয় শিকার ওয়ার্নার (১৬৬)। প্রথমে ফিঞ্চকে ফেরানোর পর এবার ওয়ার্নারকেও ফেরালেন তিনি। খাজা ৮৪ রানে ও ম্যাক্সওয়েল ৭ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৫ ওভার শেষে সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩২১ রান।

ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে ওয়ার্নার-খাজা জুটি

ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে ওয়ার্নার-খাজা জুটি। অধিনায়ক ফিঞ্চের বিদায়ের পর ১৬০ রান যোগ করেছেন দুই ব্যাটসম্যান। ওয়ার্নার ১৫১ রানে ও খাজা ৮২ রানে অপরাজিত আছেন। ক্যারিয়ারে এই নিয়ে ছয়বার দেড়শ রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন ওয়ার্নার।

৪৩ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৯৬ রান।

ওয়ার্নারের সেঞ্চুরিতে বড় সংগ্রহের পথে অস্ট্রেলিয়া

মাত্র ১০ রানেই ফেরানোর সুযোগ হাতছাড়া হওয়া পর সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন ওয়ার্নার। এই ওপেনারের শতকে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা। খাজাকে নিয়ে ম্যাচের ৩৫তম ওভারেই দলীয় দুইশ পেরিয়েছে ফিঞ্চের দল। ওয়ার্নার ১০৮ রানে ও খাজা ৪০ রানে অপরাজিত আছেন।

৩৫ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ২০৮ রান।

বিধ্বংসী ফিঞ্চকে ফেরালেন সৌম্য

আক্রমনাত্বক ব্যাটিং করে যাওয়া ফিঞ্চকে ফেরালেন সৌম্য সরকার। ব্যক্তিগত প্রথম ওভারেই শর্ট থার্ড ম্যান এরিয়াতে ক্যাচ আউট করেন অজি দলপতিকে। ফিঞ্চ ৫৩ রানে আউট হন। ওয়ার্নার ৬২ রানে ও খাজা ০ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ২১ ওভারে ১ উইকেটে ১২১ রান।

ফিঞ্চ-ওয়ার্নারের জোড়া হাফ-সেঞ্চুরিতে চাপে বাংলাদেশ

দুর্দান্ত ব্যাট করছে অস্ট্রেলিয়া। দুই ওপেনার ব্যাটসম্যনই ক্রিজে থিতু হয়ে গেছেন। হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন দুজনই। ওয়ার্নার ৫৯ রানে ও ফিঞ্চ ৫২ রানে অপরাজিত আছেন। ইনিংসের ১৭ ওভারেই দলীয় শতরান পেরিয়েছে অজিরা। এই দুই ব্যাটসম্যানের ক্রিজে টিকে থাকায় চাপ বাড়ছে বাংলাদেশের।

দলীয় সংগ্রহ ২০ ওভারে বিনা উইকেটে ১১৭ রান।

বাজে ফিল্ডিংয়ের খেসারত দিচ্ছে বাংলাদেশ

শুরুতেই ব্যাটে-বলে হচ্ছিলো না ওয়ার্নারের। তাকে জীবন দেয়ার পর দুর্দান্ত খেলছেন তিনি। এছাড়া ফিল্ডিংয়ে বেশকিছু মিস ভোগাচ্ছে বাংলাদেশকে। তাই ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া। ওয়ার্নার ৩৩ রানে ও ফিঞ্চ ৩১ রানে অপরাজিত আছেন। বাজে ফিল্ডিয়ের খেসারত হিসেবে ওয়ার্নার-ফিঞ্চকে একটি রেকর্ড তুলে দিয়েছে বাংলাদেশ। এবারের বিশ্বকাপে এই জুটিতে পাঁচটি অর্ধশত রানের ইনিংস খেলেছে। যা এবারের আসরের অন্যকোন দলের ওপেনার জুটির নেই। 

 ১২ ওভার শেষে দলীয় সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৬৭ রান।

জীবন পেলেন ওয়ার্নার

মাশরাফির বলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে খেলতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন ওয়ার্নার। কিন্তু এই বিধ্বংসী ওপেনারকে শুরুতেই ক্যাচ মিস করে জীবন দেন সাব্বির রহমান। ফিরিয়ে দেয়া যেত ১০ রানে কিন্তু জীবন পাওয়া ওয়ার্নার এখন ব্যাট করছেন ১২ রানে। ফিঞ্চ অপরাজিত আছেন ১৩ রানে।

৫ ওভারে দলীয় সংগ্রহ কোন উইকেট না হারিয়ে ২৭ রান।

টস হেরে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

টস জিতে বাংলাদেশকে বোলিংয়ে পাঠিয়েছেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি জানিয়েছেন টসে জিতলে তিনি প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিতেন।

বাংলাদেশ দল দুটি পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামবে। বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো খেলছেন রুবেল হোসেন ও সাব্বির রহমান। মোসাদ্দেক ও সাইফউদ্দিন আজ মূল একাদশে নেই। অস্ট্রেলিয়া দলেও আছে তিনটি পরিবর্তন। মার্কাস স্টোইনিস ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরেছেন। নাথান কোল্টার নাইল, অ্যাডাম জাম্পাও ফিরেছেন দলে। শন মার্শ, বেহানড্রফ ও রিচার্ডসন আজ একাদশের বাইরে আছেন। 

অস্ট্রেলিয়া দল: অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, উসমান খাজা, স্টিভেন স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টোইনিস, অ্যালেক্স ক্যারি (উইকেটরক্ষক), নাথান কোল্টার নাইল, প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, অ্যাডাম জাম্পা।

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদি হাসান মিরাজ, মাশরাফি মুর্তজা (অধিনায়ক), রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান।

আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশের সামনে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া

বিশ্বকাপের ২৬তম ম্যাচে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশের মুখোমুখি শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশ সময় আজ দুপুর সাড়ে তিনটায় ট্রেন্ট ব্রিজে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে রেকর্ড রান তাড়া করে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর টাইগাররা। অন্যদিকে নিজেদের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছে শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়া। তাই আজকের ম্যাচটি অন্যরকম রোমাঞ্চ ছড়াবে, এই আশা করাই যায়।

পরিসংখ্যান:

২০০৫ সালে কার্ডিফে অস্ট্রেরিয়ার বিপক্ষে একমাত্র জয়ই বাংলাদেশের সম্বল। কিন্তু টাইগাররা ক্রিকেটে বদলে গেছে অন্যরকমভাবে। তাই আজ ভিন্ন ফল আশা করছেন বাংলাদেশী ক্রিকেট সমর্থকরা।

ওয়ানডেতে:

ম্যাচ: ২০

অস্ট্রেলিয়া জয়ী: ১৮

বাংলাদেশ জয়ী: ১

পরিত্যক্ত: ১

বিশ্বকাপে:

ম্যাচ: ৩

অস্ট্রেলিয়া জয়ী: ২

বাংলাদেশ জয়ী: ০

পরিত্যক্ত: ১

মাহমুদউল্লাহর পর ফিরলেন সাব্বির

মাহমুদউল্লাহর বিদায়ের পরের বলেই সাব্বিরকে (০) বোল্ড করে ফিরিয়ে দিলেন নাইল। মুশফিক ৮৪ রানে মিরাজ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৬ ওভারে সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩০৪ রান।

তিনশ পার করে ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ

 

মাহমুদউল্লাহর বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে তিনশ পেরিয়েছে বাংলাদেশ। মাত্র ৪৫ ওভারেই তিনশ পেরুল টাইগাররা। কিন্তু ৫০ বলে ৬৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে আউট হন তিনি। মুশফিক ৮৩ রানে অপরাজিত আছেন।

 

দলীয় সংগ্রহ ৪৫.৩ ওভারে ৫ উইকেটে ৩০২ রান।

 

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর শতরানের জুটি

মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহের শতরানের জুটিতে এগুচ্ছে বাংলাদেশ। মুশফিক ৮১ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ৫৮ রানে অপরাজিত আছেন। মাত্র ৪১ বলে ব্যক্তিগত অর্ধশত পূর্ণ করেন মাহমুদউল্লাহ।

৪৪ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৮৯ রান।

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে বাংলাদেশের আড়াইশ

মুশফিক-মহিমুদউল্লাহর ব্যাটে আড়াইশ রান পেরিয়েছে বাংলাদেশ। লিটন আউট হওয়ার পর এই দুই ব্যাটসম্যানে এগুচ্ছে দলের রান। মুশফিক ৭ চার ও ১ ছয়ে ৭৬ রানে ও ৩ চারে ৩২ রান করে অপরাজিত আছেন মাহমুদউল্লাহ। বাংলাদেশ দল ৩০ থেকে এখন অবধি কোন উইকেট হারায়নি। এই দুই ব্যাটসম্যান তাদের জুটিতে ৭৪ রান যোগ করেছেন।

দলীয় সংগ্রহ ৪১.২ ওভারে ৪ উইকেটে ২৫০ রান।

মুশফিকের ব্যাটে বাংলাদেশের দুইশ

মুশফিকের ব্যাটে দলীয় দুইশ পেরিয়েছে বাংলাদেশ। এরমাঝে ব্যক্তিগত ৩৫তম অর্ধশত রানের দেখাও পেয়েছেন এই ব্যাটসম্যান। মুশফিক ৫২ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ১৫ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ৩৫ ওভারে ৪ উইকেটে ২০৭ রান।

রিভিউ নিয়েও লিটনের বিদায়

অজি লেগ স্পিনার জাম্পার করা একটি বল লিটনের প্যাডে লাগলে জোড়ালো আবেদন করে অস্ট্রেলিয়া। তাতে আম্পায়ারের সাড়াও মেলে। কিন্তু তারপর রিভিউ নিয়েও দেখা যায় বলটি স্ট্যাম্পের অল্পকিছু অংশ ছুঁয়ে যেত। আম্পায়ার কলের সুবিধায় আউটের সিদ্ধান্ত বহাল থাকলেও রিভিউটি ফেরত পেয়েছে বাংলাদেশ। লিটন ২০ রানে ফেরেন। মুশফিক ৩৫ রানে ও মাহমুদউল্লাহ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৩০ ওভার শেষে সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১৭৭ রান।

দলকে বিপদে ফেললেন তামিম

স্টার্কের অফ স্ট্যাম্পের একটু বাউরের একটা বলে খোঁচা দিতে গিয়ে ইনসাইড এজে বোল্ড হয়ে ফিরলেন তামিম। নিজের দ্বিতীয় স্পেলের প্রথম বলেই তামিমকে ফেরালেন এই পেসার। তামিম ৬২ রানে আউট হন। তামিমের আউটে ভয়ঙ্কর বিপদে পড়ল দল। মুশফিক ৩২ রানে ও লিটন ৪ রানে অপরাজিত আছেন। ইনিংসের ২৭তম ওভারেই দলীয় দেড়শ পেরিয়ে যান বাংলাদেশ।

এছাড়া এই উইকেট শিকার করে এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীর তালিকায় প্রথমে গেলেন স্টার্ক। তার উইকেট এখন ১৪টি। দ্বিতীয় স্থানে থাকা আমিরের উইকেট সংখ্যা ১৩।

২৭ ওভারে সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৫৭ রান।

অর্ধশত রানে তামিম

ব্যক্তিগত ৪৭তম ফিফটি পূর্ণ করলেন তামিম। একুশতম ওভারের চতুর্থ বলে ১ রান নিয়ে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন এই বাহাতি। তামিম ৫৩ রানে ও মুশফিক ১৮ রানে অপরাজিত আছেন।

দলীয় সংগ্রহ ২২ ওভারে ২ উইকেটে ১২৯ রান।

সাকিবের বিদায়ে চাপে বাংলাদেশ

তামিম ও সাকিবের ভালোভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু স্টোইনিসের অফ কাটার ঠিকমতো বুঝতে না পেরে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ফেরার আগে ৪১ রান করেন সাকিব। তামিম ৪৫ ও মুশফিক ২ রানে অপরাজিত আছেন। এর আগে ১৮তম ওভারে দলীয় শতরান পূর্ণ করে বাংলাদেশ।

দলীয় সংগ্রহ ১৯ ওভারে ২ উইকেটে ১০৫ রান।

সাকিব-তামিমের পঞ্চাশ রানের জুটি

সৌম্যর রান আউটের পর দলকে এগিয়ে নিচ্ছেন সাকিব-তামিম জুটি। অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান ইতিমধ্যে দলীয় সংগ্রহে পঞ্চাশ রান যোগ করেছেন। ইতিপূর্বে ম্যাচের দশম ওভারে দলীয় পঞ্চাশ পেরোয় বাংলাদেশ। তামিম ২৭ রানে ও সাকিব ৩১ রানে অপরাজিত আছেন।

১৩ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ৭৫ রান।

রিভিউ হারাল অস্ট্রেলিয়া

সাকিব ৩ রানে ব্যাট করছেন। ইনিংসের অষ্টম ওভারের চতুর্থ বলে নাইল লেগ বিফোরের আবেদন করলে আম্পায়ার তাতে সাড়া দেননি। অস্ট্রেলিয়া রিভিউ নিলে তাতে দেখা যায়, বলটি লে স্ট্যাম্পের বাইরে পিচ করেছে। ফলে ম্যাচের একমাত্র রিভিউটি হারায় অজিরা।

শুরুতেই রান আউটে ফিরলেন সৌম্য

৮ বল থেকে ১০ রান করে তামিমের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে ফিরে যা সৌম্য। মিড-অনে ফিল্ডিংয়ে থাকা ফিঞ্চের সরাসরি থ্রোতে স্ট্যাম্প ভেঙে গেলে উল্লাসে মাতে অস্ট্রেলিয়া। এর আগের ওভারে স্টার্ককে দুটি চার মারেন সৌম্য। তামিম ৮ রানে ও সাকিব ০ রানে অপরাজিত আছেন।

৪ ওভারে দলীয় সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৩ রান।

বাংলাদেশকে বড় লক্ষ্য দিলো অস্ট্রেলিয়া

ডেভিড ওয়ার্নারের ১৬৬ রানে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৮১ রান করেছে অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া খাজা ও ফিঞ্চ দুজনেই অর্ধশত রান পূর্ণ করেন। বাংলাদেশের হয়ে তিনটি উইকেট পেয়েছেন সৌম্য। বাংলাদেশী ক্রিকেটারদের বাজে বোলিং ও ফিল্ডিংয়ের খেসারতসরূপ অজিরা এই বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে। জয়ের জন্য বাংলাদেশকে করতে হবে ৩৮২ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৩৮১/৫ (৫০ ওভার) (ওয়ার্নার ১৬৬, ফিঞ্চ ৫৩, খাজা ৮৯, ম্যাক্সওয়েল ৩২, স্টোইনিস ১৭*, স্মিথ ১, ক্যারি ১১*; মাশরাফি ৫৬/০, মুস্তাফিজ ৬৯/১, সাকিব ৫০/০, রুবলে ৮৩/০, মিরাজ ৫৯/০, সৌম্য ৫৮/৩)

ম্যাচে বৃষ্টির হানা

বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা আগেই জানিয়ে দেয়া হয়েছিলো। সেই সময়ের আশেপাশেই বৃষ্টির দেখা মিলল। বৃষ্টির আগে ক্যারি ৯ রানে ও স্টোইনিস ৬ রানে ব্যাটে ছিলেন।

৪৯ ওভারে সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৬৮ রান।

মুস্তাফিজের শিকার স্মিথ

ব্যক্তিগত ৮ম ওভারে নিজের প্রথম উইকেটের দেখা পেলেন মুস্তাফিজ। স্মিথকে (১) ওভারের প্রথম বলেই এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন এই পেসার। রিভিউ নিয়েও কোন কাজ হয়নি। ক্যারি ও স্টোইনিস ৩ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৮ ওভারে সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৩৫৯ রান।

সৌম্যর এক ওভারে দুই উইকেট

সৌম্যর প্রথম বলে ছক্কা মারার পর দ্বিতীয় বলে পরাস্ত হয়ে লেগ শর্ট ফাইন লেগে বল যায়। মাত্র ৯ বলে ৩২ রান করা ম্যাক্সওয়েলকে সরাসরি থ্রোতে রান আউট করে ফেরান রুবেল।  সেখানেই বিদায় হন ম্যাক্সওয়েল। ওভারের পঞ্চম বলে খাজাকেও মুশফিকের গ্লাভসে আটকে দেন এই পার্টটাইম বোলার। আজকের ম্যাচে এটি সৌম্যর তৃতীয় উইকেট। স্টোইনিস ও স্মিথ ১ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৭ ওভারে দলীয় সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৩৫৪ রান।

সৌম্যর দ্বিতীয় শিকার দেড়শ পেরুনো ওয়ার্নার

পার্টটাইম বোলার সৌম্যর দ্বিতীয় শিকার ওয়ার্নার (১৬৬)। প্রথমে ফিঞ্চকে ফেরানোর পর এবার ওয়ার্নারকেও ফেরালেন তিনি। খাজা ৮৪ রানে ও ম্যাক্সওয়েল ৭ রানে অপরাজিত আছেন।

৪৫ ওভার শেষে সংগ্রহ ২ উইকেটে ৩২১ রান।

ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে ওয়ার্নার-খাজা জুটি

ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে ওয়ার্নার-খাজা জুটি। অধিনায়ক ফিঞ্চের বিদায়ের পর ১৬০ রান যোগ করেছেন দুই ব্যাটসম্যান। ওয়ার্নার ১৫১ রানে ও খাজা ৮২ রানে অপরাজিত আছেন। ক্যারিয়ারে এই নিয়ে ছয়বার দেড়শ রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন ওয়ার্নার।

৪৩ ওভারে সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৯৬ রান।

ওয়ার্নারের সেঞ্চুরিতে বড় সংগ্রহের পথে অস্ট্রেলিয়া

মাত্র ১০ রানেই ফেরানোর সুযোগ হাতছাড়া হওয়া পর সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন ওয়ার্নার। এই ওপেনারের শতকে বড় সংগ্রহের দিকে এগি&l



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯

১৫ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন