Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

সপ্তম জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্ততি নিচ্ছে বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ জুন, ২০১৯, ২:৩২ পিএম

দলের সপ্তম জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্ততি নিচ্ছে বিএনপি। শনিবার (২২ জুন) সকালে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবরে পুস্পমাল্য অর্পণের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একথা জানান। তিনি বলেন, ‘‘ দলের জাতীয় কাউন্সিলের আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি। ইতিমধ্যে আমাদের সাংগঠনিক কার্যক্রম, পুনর্গঠনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে জেলা ও অঙ্গসংগঠনগুলোতে। ২০১৬ সালের ১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়।

স্থায়ী কমিটিতে মনোনয়ন পাওয়া দুই সদস্য সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে নিয়ে বিএনপি মহাসচিব সকাল সাড়ে ১১টায় শেরে বাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে পুস্পমাল্য অর্পণ করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘‘ দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জাতীয় স্থায়ী কমিটিতে শূণ্যপদগুলোতে আমাদের দুই জন প্রবীন নেতা যারা ইতিমধ্যেই দলের মধ্যে দীর্ঘকাল ধরে তাদের অবদান রেখে্ছেন এবং তাদের নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করেছেন। জনগনের মধ্যে তাদের একটি অত্যন্ত ইতিবাচক ভাবমূর্তি রয়েছে, তাদেরকে স্থায়ী কমিটির সদস্য পদে নির্বাচিত করা হয়ে্ছে।”

‘‘ আমরা আজকে দলের পক্ষ থেকে এই দুইজন নবনির্বাচিত সদস্যসহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দকে সঙ্গে নিয়ে দলের প্রতিষ্ঠাতা স্বাধীনতার ঘোষক বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সাহেবের মাজার জিয়ারত, শ্রদ্ধা নিবেদন করতে এসেছিলাম। আমরা শ্রদ্ধা নিবেদন করেছি। আমরা শপথ গ্রহন করেছি যে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে যে অগণতান্ত্রিক ও বেআইনিভাবে আটক করে রাখা হয়েছে তার মুক্তি ও গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য আমাদের সংগ্রামকে আরো বেগমবান করা হবে এবং একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগনের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে হবে।”

স্থায়ী কমিটির যে তিনটি পদ শূণ্য আছে তা কবে নাগাদ পুরণ হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘‘ সেগুলো প্রয়োজনে যথাসময়ে সেগুলো সম্পর্কে ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

মির্জা ফখরুল জানান, সন্ধ্যা ৬টায় গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক হবে।

এ সময়ে স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সারোয়ার, শামা ওবায়েদ, বি্শেষ সম্পাদক শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় নেতা শিরিন সুলতানা, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, নাদিম মোস্তফা, সেলিম রেজা হাবিব, আমিরুল ইসলাম খান আলিম, মাহবুবু্ল হক নান্নু, সাইফুল আলম নিরব, মোরতাজুল করীম বাদরু, শফিউল বারী বাবু, হেলেন জেরিন খান, আহসানুল্লাহ হাসান, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদার প্রমূখ নেতৃবৃন্দ ছিলেন।

গত ১৯ জুন স্থায়ী কমিটিতে সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু মনোনয়ন পান।তারা দু‘জনই দলের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। তাদের মনোনয়নের পর ১৯ সদস্যের স্থায়ী কমিটিতে সদস্য সংখ্যা দাঁড়ালো ১৭।

নব নির্বাচিত স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান বলেন, ‘‘ আমরা জানি যে, আমাদের আজকে বড় চ্যালেঞ্জ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা। আমরা স্থায়ী কমিটিতে এমন কিছু কৌশল নির্ধারণ করবো যাতে করে আমাদের দলটা সুসংগঠিত থাকে, ঐক্যবদ্ধ থাকে এবং দেশনেত্রীকে অবিলম্বে মুক্ত করে আনতে পারি। দেশনেত্রীকে মুক্ত হলে গণতন্ত্র ফিরে আসবে, দেশে সুশাসন ফিরে আসবে, নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে দে্শে ফিরিয়ে আনতে পারবো।”

নব নির্বাচিত সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘‘ আমরা একটা ক্রান্তিকালে এই পদে এসেছি। আমাদের চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বিনা কারনে জে্লে, আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বিনাকারনে দেশের বাইরে। এই পরিস্থিতিতে আমরা চেষ্টা করবো আমাদের যে রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা আছে, সেই অভিজ্ঞতা দিয়ে দলকে নিয়ে জনগনকে সা্থে নিয়ে দেশনেত্রী বেগম জিয়ার মুক্তি ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য যেন আন্দোলন শুরু করতে পারে সেজনৗ চেষ্টা করবো।”



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ