Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

মাস্টার্সে প্রথম স্থান অর্জন করা চাঁদের কণা অনশনে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০১৯, ৫:৪০ পিএম

সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার প্রত্যন্ত বিয়াড়া গ্রামের আব্দুল কাদেরের মেয়ে চাঁদের কণা (৩১)। শিশুকাল থেকেই তিনি শারীরিক প্রতিবন্ধী। কিন্তু হাতের ওপর ভর দিয়ে হেঁটেই ২০১৩ সালে ঢাকার ইডেন কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। যোগ্যতা অনুযায়ী একটি সরকারি চাকরির জন্য ছুটে বেরিয়েছেন এ দুয়ার থেকে ও দুয়ার। নিরূপায় হয়ে বুধবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আমরণ অনশনে বসেছেন চাঁদের কণা। চাকরি না হওয়া পর্যন্ত তিনি অনশনেই থাকবেন বলে জানিয়েছেন।

তার স্বজন ও প্রতিবেশীদের কাছ থেকে জানা যায়, মাত্র নয় মাস বয়সে পোলিওতে আক্রান্ত হয়ে দুই পায়ের কার্যক্ষমতা হারান চাঁদের কণা। তবুও বাবা-মায়ের সচেতনতা আর তার প্রতিবন্ধিতা জয়ের অদম্য প্রচেষ্টায় চলতে থাকে হাতে হেঁটে পড়ালেখা। তিনি যখন অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্রী তার স্কুলশিক্ষক মা হাসনা হেনা বেগম মারা যান। এর কয়েক বছর পর তার বাবা ব্রেইন স্ট্রোক করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে এবং বাবার অসুস্থতাজনিত কারণে তার জীবনে প্রতিবন্ধিতার সঙ্গে নেমে আসে চরম দরিদ্রতা। অবশেষে পড়ালেখার খরচ জোগাতে একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সামান্য বেতনে চাকরি নেন তিনি। শত কষ্টের মাঝেও গার্হস্থ্য অর্থনীতিতে সফলতার সঙ্গে অর্জন করেন উচ্চতর ডিগ্রি।


চাঁদের কণা জানান, সব প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে তিনি মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন। অর্জন করেছেন প্রথম বিভাগ। শুধু তাই নয়, পড়ালেখার পাশাপাশি বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে নিজেকে দক্ষ করে গড়ে তুলেছেন। ভারোত্তোলন থেকে শুরু করে টিভি-রেডিও’তে সংবাদ পাঠ; টিভি প্রোগ্রাম গ্রন্থনা, উপস্থাপনা ও পরিচালনা; নাটক, গল্প ও কবিতা লেখা; অভিনয় করা ও কবিতা আবৃতি করা; গল্প বলা; ছবি আঁকা এবং কম্পিউটারে সব কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করেন তিনি।

তিনি আরও জানান, রাজশাহী মাদার বক্স গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজে তিনি অনার্স পড়েছেন। পঞ্চম তলায় তার ক্লাস হতো। অন্যসব ছাত্র-ছাত্রীরা কলেজে আসতেন ৯টার দিকে। অথচ তিনি কলেজে যেতেন সকাল ৭টার দিকে। কারণ হাতে ভর দিয়ে পঞ্চম তলায় উঠতে তার দের ঘণ্টার মতো সময় লেগে যেত।

চাঁদের কণা বলেন, স্কুলজীবন থেকে শুরু করে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন পর্যন্ত এমন লক্ষ্য-কোটি বাধা পেরিয়ে প্রতিবন্ধিতাকে জয় করেছি একজন সরকারি কর্মকর্তা হওয়ার স্বপ্ন পূরণের জন্য। যোগ্যতা অনুযায়ী সরকারি চাকরির জন্য বহু চেষ্টা করেছি। এ বছরই আমার সরকারি চাকরির বয়স শেষ। তাই বাধ্য হয়ে আমরণ অনশনে বসেছি।

অনশনে বসা চাঁদের কণার হুইলচেয়ার ঘিরে রয়েছে বিভিন্ন বার্তা লেখা ২০টির মতো প্ল্যাকার্ড। গলায় ঝুলছে, ‘আমি আমার মা প্রধানমন্ত্রীর ভালোবাসা চাই। তার সাথে দেখা করতে চাই।’



 

Show all comments
  • MAHMUD ২৬ জুন, ২০১৯, ৬:৩৫ পিএম says : 0
    CHADER KONA is now high educated, passed her time by very struggled and achieve Master first class, ultimately she is brilliant. Her mother also passes way. Now she wants a job from GOVT, hope honourable prime minister/GOVT will do something for her.
    Total Reply(0) Reply
  • MD.Rafiqul islam ২৬ জুন, ২০১৯, ৭:৫৯ পিএম says : 0
    Take ekta chakri dewa hok
    Total Reply(0) Reply
  • Nijamoddin ২৭ জুন, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
    মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টি আকাঙ্ক্ষিত করছি চাদের মেয়ের প্রতিবন্ধকতার দিকে নজর না দিয়ে তার যুগৎতার পূর্ন মযাদা দেখা হুক pless.......pless........pless.............
    Total Reply(0) Reply
  • আবদুর রহমান মিন্টু ২৭ জুন, ২০১৯, ৩:২৫ এএম says : 0
    প্রতিবন্দিী হিসাবে নয় তার যোগ্যতার মূল্যায়ন করা উচিৎ রাষ্ট্রের। মাননীয় প্রধান মন্এীর সুদৃষ্টি কামনা করছি।
    Total Reply(0) Reply
  • Reza ২৭ জুন, ২০১৯, ৩:০৪ এএম says : 0
    She is a merit person our prime minister you should take a step. As soon as possible
    Total Reply(1) Reply
    • Golam Mohammed ২৯ জুন, ২০১৯, ৪:২৪ এএম says : 0
      Please write in english. Your english is called Banglish.!
  • মারজান ২৭ জুন, ২০১৯, ৩:৫৪ এএম says : 0
    দয়া করে একটি চাকরি দিন ওকে আল্লাহ আপনার ভালো করবেন ওর পতি সহায় হন
    Total Reply(0) Reply
  • Maksud Ahmed ২৭ জুন, ২০১৯, ৭:০৫ এএম says : 0
    অবিলম্বে চাঁদের কণার সম্মানজনক চাকুরির ব্যবস্থা করা হ্উক । জোর দাবী জানাচ্ছি ।
    Total Reply(0) Reply
  • মোতাসিম বিল্লাহ ২৭ জুন, ২০১৯, ৭:১২ এএম says : 0
    এ দেশে উচ্চ শিক্ষার কোন মর্যাদা নেই । আছে শুধু ঘুষ দিয়ে চাকরি নেওয়ার প্রতিযোগিতা ।
    Total Reply(0) Reply
  • MD. Shahidul islam ২৭ জুন, ২০১৯, ৭:৩৪ এএম says : 1
    আমার প্রানের নেত্রী,দেশরত্ন,সর্বকালের শ্রেষ্ঠ মানব বঙ্গবন্ধুর মানসকন্যার কাছে আমার আকুল আবেদন। চাদের কণার প্রতিবন্ধকতাকে নয় বরং তার বিভিন্ন পেশার দক্ষতাকে মূল্যায়ন করুন।
    Total Reply(0) Reply
  • সফি ২৭ জুন, ২০১৯, ৭:৫৯ এএম says : 0
    তাকে একটা চাকরি দেয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • সিনথিয়া টেলিকম ২৭ জুন, ২০১৯, ১১:৩৭ এএম says : 0
    তার চাকরিটা হলে হয়তো তার সব কস্ট কমে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • কনার জন্য সুভ কামনা,সরকারের প্রতিও।
    Total Reply(0) Reply
  • None ২৭ জুন, ২০১৯, ২:২৮ পিএম says : 1
    She has the qualifiacations for getting a high class's job.So.....the decision is logically right which she is taken.
    Total Reply(0) Reply
  • ইরফান ২৮ জুন, ২০১৯, ৫:০৮ পিএম says : 0
    তাকে একটা চাকুরি দেওয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • Rashed ২৮ জুন, ২০১৯, ১০:০২ পিএম says : 0
    সে অসহায়,তাকে একটা চাকুরী দেওয়া হোক,তার ছবিটার দিকে তাকিয়ে চোখ ছলছল করছে,আল্লাহ তুমি তার প্রতি সদয় হও...
    Total Reply(0) Reply
  • Miah Muhammad Adel ২৯ জুন, ২০১৯, ৬:২০ এএম says : 0
    Prime minister is liberal hearted. She arranged for marriage of two orphan girls several years ago. This alumnus of Mader Box College will get a job without delay. She is a model among the handicapped. Anytime soon, we can hear the news of Prime minister giving Chader Kana a dignified job.
    Total Reply(0) Reply
  • Aziz ২৯ জুন, ২০১৯, ১২:০৮ পিএম says : 0
    she is perfect for job.
    Total Reply(0) Reply
  • Alamin ozed ৩০ জুন, ২০১৯, ১১:০৫ এএম says : 0
    Please give her a job.
    Total Reply(0) Reply
  • shamim ২ জুলাই, ২০১৯, ১১:১৭ এএম says : 0
    prati ghore 1 jan kare sakori pabe r 10 taka saouler(rice) kg habe no tension???????
    Total Reply(0) Reply
  • Rabindranath Karmaker Robi ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫:০৫ পিএম says : 0
    আমিও বোনটির জন্য অনুরোধ জানাই।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অনশন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ