Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ০৫ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৬ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

ড. কামাল ইস্যুতে সংসদে বোমা ফাটালেন নাসিম

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ জুন, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

অবশেষে বোমা ফাটালের আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিম। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইস্যুতে ড. কামাল হোসেনের ভূমিকা নিয়ে সংসদে তিনি বোমা ফাঁটানো তথ্য দেন। আওয়ামী লীগ নেতার এই বোমা ফাঁটানো তথ্য গতকাল ছিল টক অব দ্য কান্টি। সর্বত্রই এ নিয়ে চলেছে আলোচনা সমালোচনা ও বিতর্ক।

অবশ্য ২০ দলীয় জোটের নেতা এলডিপি সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ কয়েক মাস আগেই কামাল হোসেনের ঐক্যফ্রন্টের মাধ্যমে বিএনপির সঙ্গে নির্বাচনী জোটে আসা কিছু নেতা সরকারের কাছ থেকে টাকা খেয়েছেন বলে অভিযোগ তুলেছিলেন। নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে সুবিধা করে দিতে কোন নেতা কোন বাসায় টাকা নিয়েছেন সে তথ্যও জানেন বলে জানিয়েছিলেন তিনি। তবে মোহাম্মদ নাসিমের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছেন গণফোরামের তিন নেতা। আওয়ামী লীগের নেতা মোহাম্মদ নাসিম জাতীয় সংসদে ২৫ জুন বাজেটের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে বলেন, বিএনপির পদক্ষেপে প্রতি পাতায় পাতায় ভুল। নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগের পরিত্যক্ত (ড. কামাল হোসেন) নেতাকে ভাড়া করে বিএনপি সামনে দাঁড় করালো। সেই ড. কামাল হোসেন কী করলেন, বিএনপিকে দিয়ে নির্বাচনের মাঝ পথে মাঠ ফাঁকা করে দিলেন। আমরা (আওয়ামী লীগ) ফাঁকা মাঠে গোল দিয়ে দিলাম। বিএনপির ভাড়া করা লোক কাজ করল আমাদের পক্ষে! এই ভুলের রাজনীতি থেকে বিএনপি কবে বের হবে? আসলে বিএনপি হচ্ছে খুনির দল, খুনিদের লালন-পালনকারীদের দল। বিএনপি এখন পাপের ফল ভোগ করছে। বিএনপি আমাদের কাছে বার বার হেরে গেছে, নির্বাচনে মাঠ ছেড়ে পালিয়ে গেছে। শেখ হাসিনার কৌশলের কাছে তারা বার বার পরাজিত হয়েছে। আন্দোলন করারও ক্ষমতা তাদের নেই।
মোহাম্মদ নাসিমের এই বক্তব্যের পর দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে এ নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠেছে। নির্বাচনের আগে ড. কামাল হোসেনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। কেউ বলছেন, কেন ভোটের দিন দুপুরেও ড. কামাল হোসেন নির্বাচন থেকে সরে না যাওয়ার নেপথ্যের রহস্য খুঁজতে শুরু করেছেন।

এদিকে গতকাল গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনকে নিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের বক্তব্যের প্রতিবাদ করেছেন দলটির কয়েকজন নেতা। তারা এই বক্তব্যকে শিষ্টাচারবিরোধী মিথ্যাচার বলে মন্তব্য করেন। গণফোরামের বিবৃতিতে নাসিমের এ বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান দলের নির্বাহী সভাপতি আবু সাইয়িদ, সুব্রত চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক ড. রেজা কিবরিয়া। তারা বলেন, সংসদে মোহাম্মদ নাসিম, গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন সম্পর্কে যে কুরুচিপূর্ণ উদ্দেশ্যমূলক শিষ্টাচারবিরোধী মিথ্যাচার করেছেন তার প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ভোটারবিহীন ও আগের রাতে ব্যালটবাক্স ভর্তি করা জনগণের প্রত্যাখ্যাত বর্তমান পার্লামেন্টের সরকার দলীয় নেতা মোহাম্মদ নাসিমের কাছে এর থেকে বেশি ভদ্রতা আশা করা যায় না। সরকার হীন রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করার কুমতলবে এ ধরনের প্রলাপ বকছে। তবে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোচনা হচ্ছে যে, একাদশ নির্বাচনে বিএনপির ভূমিকার নেপথ্যের থলের বিড়াল বেড়িয়ে এসেছে। কেউ কেউ দিল্লির এজেন্ডা বাস্তবায়নে ড. কামাল হোসেন নির্বাচনের আগে এমন ভূমিকা পালন করেছেন বলেও মন্তব্য করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ