Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

চাল আমদানিতে দিতে হবে ২৫ শতাংশ শুল্ক

প্রকাশের সময় : ৩ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ঃ চাল আমদানির ওপর শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। জাতীয় সংসদে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাব পেশকালে এ কথা জানান অর্থমন্ত্রী। প্রস্তাবিত বাজেটে দেশের খাদ্য উৎপাদনকে উৎসাহিত করতে কয়েকটি পণ্যের আমদানিতে শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, আমরা বর্তমানে খাদ্যশস্য উৎপাদনে একটি উদ্বৃত্ত দেশ। সেই বিবেচনায় চাল আমদানির ওপর বর্তমান ১০ শতাংশ শুল্কের স্থলে ২৫ শতাংশ শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করছি। একইভাবে দেশীয় উৎপাদনের স্বার্থে রেপসিড কেক, সয়াকেকের আমদানি শুল্ক ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ, দুগ্ধজাত পণ্য উৎপাদনের উপকরণ স্ট্যাবিলাইজার ফর মিল্কের সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশে ধার্য করার প্রস্তাব করেন।
দেশে পুষ্টির প্রধান উৎস হাঁস-মুরগি খাতের ক্রমাগত ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে আমদানি করা খাদ্যসামগ্রীর ওপর কতিপয় নতুন পণ্যসহ বিদ্যমান শুল্ক ও কর রেয়াত আগামী অর্থবছরেও প্রদানের প্রস্তাব করেছেন তিনি। এ ছাড়া কৃষিপণ্যের উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষ্যে দেশীয় যন্ত্রপাতির আধুনিকায়ন ও উৎপাদন বাড়ানোকে উৎসাহিত করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
মুহিত বলেন, এখন কৃষি খাতে ব্যবহার্য অধিকাংশ যন্ত্রপাতি শুল্ক ও কর হতে অব্যাহতিপ্রাপ্ত অথবা রেয়াতি হারে আমদানি করা হয়। এসব যন্ত্রপাতি এখন দেশেও তৈরি হচ্ছে। সে কারণে কতিপয় শর্তসাপেক্ষে এসব যন্ত্রাংশের আমদানি শুল্ক হ্রাস করে ১ শতাংশে ধার্যের প্রস্তাব করছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চাল আমদানিতে দিতে হবে ২৫ শতাংশ শুল্ক
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ