Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ০১ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

উল্লাপাড়ায় বৃদ্ধ মা ও ছেলেকে গলা কেটে হত্যা

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৮ জুন, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

বাড়ির জমির উপর মসজিদ নির্মাণের জেরে উল্লাপাড়ায় মা ও ছেলেকে জবাই করে হত্যা করেছে দুবৃত্তরা।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে র্দুগানগর ইউনিয়নের মহেষপুর গ্রাম থেকে মা ও ছেলের জবাই করা লাশ উদ্ধার করেছে উল্লাপাড়া থানা পুলিশ। নিহতরা হলেন, এই গ্রামের বাসিন্দা রিজিয়া খাতুন (৭৫) ও তার ছেলে আলতাফ হোসেন বকুল (৫৫)। বকুল সেনাবাহিনীতে চাকরি করতেন। ১০/১২ বছর আগে তিনি অবসরে যান। উল্লাপাড়া মডেল থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বেগম শেখ ফজিলাতুনচ্ছো হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

নিহত আলতাফ হোসেনের মেয়ে রুখসানা হোসেন হিজল জানান, ভোরবেলা তাদের বাড়ির কাজের মেয়ে সুমনা বাড়িতে ঢোকার সময় বাইরে থেকে গেট বন্ধ পান। পরে তিনি বাড়িতে প্রবেশ করে দেখেন ঘরের দরজা খোলা। বারান্দায় রক্তের দাগ। ঘরে প্রবেশ করে সুমনা দেখতে পান বকুল ও রিজিয়ার রক্তাক্ত লাশ। পরে তিনি চিৎকার শুরু করলে পাশ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে আসেন। এরপর পুলিশকে খবর দেয়া হয়। ইতোমধ্যেই সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইউসুফ আলী, উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুজ্জামান, উল্লাপাড়া পুলিশ সার্কেলের এএসপি গোলাম রহমান ও উল্লাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেওয়ান কউশিক আহমেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

উল্লাপাড়া থানার ওসি দেওয়ান কউশিক আহমেদ জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছেন। নিহত বকুলের মেয়ে হিজল, শিমুল ও কেয়া অভিযোগ করেন, তাদের বাবা ব্যক্তিগত অর্থে বাড়ির জমির উপর একটি মসজিদ নির্মাণ করেছেন। এই মসজিদ নিয়ে গ্রামের লোকজনের সঙ্গে কিছুদিন ধরেই তার বিরোধ চলছিল। এই বিরোধের জের ধরেই তাদের বাবা ও দাদীকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। তারা এই হত্যাকান্ডের উপযুক্ত বিচার দাবি করেন। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গলা কেটে হত্যা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ