Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

দুর্নীতিবাজ ক্যান্সার বাদ দিন দুদকের উদ্দেশে হাইকোর্ট

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৮ জুন, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) থেকে দুর্নীতির ক্যান্সার বাদ দিতে বলেছেন হাইকোর্ট। গতকাল বৃহস্পতিবার বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান এবং বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের ডিভিশন বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

ব্যাংকের অর্থ আতœসাৎ মামলার ভুল আসামি জাহালমের কারাবাসের ঘটনায় দুদকের অভ্যন্তরীণ তদন্ত প্রতিবেদন চেয়ে এ মন্তব্য করেন আদালত। আদালত বলেন, ‘দুদক থেকে দুর্নীতিবাজের ক্যান্সার বাদ দিন। প্রতিষ্ঠানটিতে আমরা স্বচ্ছতা দেখতে চাই। এ প্রতিষ্ঠান দুর্নীতিবাজদের জায়গা নয়। আমরা চাই এ সংস্থা আরো শক্তিশালী হোক।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘মাদক সন্ত্রাস, দুর্নীতিবাজরা জাতীয় শত্রæ। যারা ভালো কাজ করবে, তাদের পুরষ্কৃত করুন।’ আদালত প্রধানমন্ত্রীর ওই মন্তব্য বলার পর দুদকের কৌঁসুলি খুরশিদ আলম খান, জাহালম, তার আইনজীবী অমিত দাশ গুপ্ত উপস্থিত ছিলেন।

নিরীহ জাহালমের কারাবাসের ঘটনায় দুদকের অভ্যন্তরীণ তদন্ত প্রতিবেদন আগামি ১১ জুলাই আদালতে দাখিল করতে বলা হয়। এর আগে গত ১৩ মে জাহালমের বিরুদ্ধে ব্যাংকঋণ জালিয়াতির ৩৩ মামলার এফআইআর, চার্জশিট, সম্পূরক চার্জশিট এবং ব্যাংকের এ সংক্রান্ত নথিপত্র দাখিল করতে দুদককে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।
সোনালী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় টাঙ্গাইলের পাটকল শ্রমিক জাহালমকে আবু সালেক হিসেবে চিহ্নিত করে মামলা করে দুদক। পরে ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রæয়ারি জাহালমকে গ্রেফতার করে আদালতে হাজির করে। আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন। অন্যের অপরাধে বিনা কারণে ৩ বছর কারাবাস করায় জাহালমকে নিয়ে গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করে। বিষয়টি হাইকোর্টের দৃষ্টিতে আনা হলে চলতি বছর ৩ ফেব্রæয়ারি সব মামলায় অব্যাহতি দিয়ে জাহালমকে মুক্তির নির্দেশ দেয়া হয়।

ওই আদেশের কয়েক ঘণ্টা পরই গাজীপুর কাশিমপুর কারাগার থেকে মুক্তি পান জাহালম। এরপর গত ৬ মার্চ জাহালমকে ৩৬ মামলায় ভুল আসামি করে অভিযোগপত্র দাখিলের যাবতীয় নথি তলব করেন হাইকোর্ট।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হাইকোর্ট


আরও
আরও পড়ুন