Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ০৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

কলাপাড়ায় ১১ বছরের কন্যা শিশুকে ধর্ষণ

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৮ জুন, ২০১৯, ৬:৪৮ পিএম

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ১১ বছরের এক কন্যা শিশুকে ধর্ষণ অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণের এ ঘটনায় রক্ত ক্ষরণে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পরলে স্বজনরা শিশুটিকে উদ্ধার করে বুধবার রাতে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রাতেই দ্রুত পটুয়াখালী সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। বর্তমানে শিশুটি পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বুধবার শেষ বিকালে উপজেলার ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল ধর্ষণের বিষয়টি ধামাচাপা দিতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন স্বজনরা।
ধর্ষিতা ওই শিশু জানায়, বুধবার শেষ বিকেলে স্থানীয় বাজারে একটি মোবাইল মেরামতের দোকান থেকে তার মায়ের মোবাইল নিয়ে বাড়ি ফিরছিল। এসময় পথিমধ্যে একই এলাকার আনোয়ার সরদারের ছেলে শাহীন সরদার (২৩) তার মুখ চেপে ধরে পার্শ্বের একটি জঙ্গলে নিয়ে জোড় পূর্বক ধর্ষণ করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় বাড়িতে পৌঁছান।
ডাবলুগঞ্জ ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ রাকিবুল ইসলাম জানান, মেয়েটি প্রথমে লোক লজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু না বলতে চাইলে রক্ত ক্ষরণের বিষয়টি জানতে চাইলে তার মায়ের কাছে জানান, শাহীন তাকে ধর্ষণ করেছে। ঘটনার দিন রাতে া মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করি।
কলাপাড়া হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. কামরুজ্জামান জানান, শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল এবং ইনজুরি ছিল। তিনি প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দ্রুত পটুয়াখালী সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
মহিপুর থানার ওসি সাইদুল ইসলাম জানান, ঘটনা স্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল, লিখিত ভাবে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ