Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

লোহাগাড়ায় টার্মিনাল সঙ্কটে যানজট

লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) থেকে তাজ উদ্দীন | প্রকাশের সময় : ১ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং এর ফলে সৌন্দর্য হারাচ্ছে লোহাগাড়া সদরের বটতলী স্টেশন। জনপ্রতিনিধিদের প্রতিশ্রুতি ও দীর্ঘদিনের জনদাবি স্বত্বেও লোহাগাড়ায় আজো নির্মিত হয়নি কোন বাস টার্মিনাল। স্থায়ী বাস টার্মিনাল না থাকায় দিনদিন যানজট বাড়ছে। মহাসড়কে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকা পড়ছেন যাত্রীরা। যানজটের ফলে কক্সবাজারগামী পর্যটকদের ভোগান্তি বাড়লেও সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষেও উদ্যোগ নেই বলে জানান সচেতনমহল।

সড়কের পাশেই রয়েছে সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মাহিন্দ্র ও চাঁদের গাড়িসহ বিভিন্ন যানবাহনের অবৈধ স্টেশন। এছাড়াও অবৈধভাবে মহাসড়কের দু’পাশের ফুটপাত দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে অস্থায়ী দোকানপাঁ। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এসব কারণেও বটতলী মোটর স্টেশনে যানজট সমস্যা দিনদিন প্রকট হচ্ছে।

সরেজমিন দেখা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকে পর্যটন নগরী কক্সবাজারগামী ও কক্সবাজার থেকে ফেরার পথে দূরপালার গাড়িগুলো বটতলী মোটর স্টেশনে যাত্রা বিরতি দেয়। প্রতিটি গাড়ি ১৫-২০ মিনিট এ স্টেশনে অবস্থান করে। অথচ দুঃখজনক হলেও সত্যি যে, স্বাধীনতার এতো বছর পরেও গাড়ি পার্কি এর জন্য এখানে কোনো টার্মিনাল তৈরি করা হয়নি। দূরপাল্লার গাড়িগুলো সড়কের দুই পাশে রেখে বিরতি দেয়। এর ফলে লোহাগাড়ার সদর বটতলী মোটর স্টেশনে যানজট বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং নষ্ট হচ্ছে পুরো এলাকার সৌন্দর্য।

লোহাগাড়া শহর পরিচালনা কমিটির সদস্য মিছবাহ উদ্দিন রাজিব জানান, ‘দক্ষিণ চট্টগ্রামের অন্যতম প্রধান বাণিজ্যিক এলাকা লোহাগাড়ার সদরের বটতলী মোটর স্টেশন। লোহাগাড়া সদরে যানজট কমাতে ও স্টেশনের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে এখানে একটি বাস টার্মিনাল খুবই প্রয়োজন।’
বাজার-সদাইসহ নানা প্রয়োজনে বিভিন্ন এলাকার লোকজন এ উপশহরে আসেন। ক্রমবর্ধমান আধুনিকায়নে এর প্রসারও ঘটছে দিন দিন। কিন্তু একটি বাস টার্মিনালের অভাবে পুরো এলাকাটির সৌন্দর্যহানির পাশাপাশি যানজট সমস্যা প্রকট হয়ে উঠছে। এতে জীবনযাত্রার গতি থমকে যাচ্ছে ও ক্রমে দূষিত হচ্ছে এলাকার পরিবেশ।

এ দিকে যানজট নিরসনে ২০০৩ সালে শহরের উপকণ্ঠে পুরাতন বিওসি এলাকায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের বিশাল পরিত্যক্ত জমিতে বাস টার্মিনাল নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা জানিয়ে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি দেয় লোহাগাড়া শহর উন্নয়ন কমিটি। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। অভিযোগ রয়েছে চিঠিটি দেয়ার পর পরই সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তারা তড়িঘড়ি করে ভ‚মিদস্যুদের নামে মৎস্য চাষের জন্য জায়গাটি ইজারা দেন। এরপর ভ‚মিদস্যুরা মৎস্য প্রকল্পের নাম দিয়ে এ জায়গায় বাসাভাড়া, দোকানপাঁ, দালান নির্মাণ করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

লোহাগাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুল বলেন, লোহাগাড়া সদর স্টেশনকে আধুনিক উপশহর হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে প্রধান বাধা যানজট। যানজট কমাতে পাশের কোনো স্থানে বাস টার্মিনাল তৈরি করা জরুরি হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে শীঘ্রই কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মহাসড়ক

২২ আগস্ট, ২০১৯
২০ আগস্ট, ২০১৯
৮ জুলাই, ২০১৯
২৩ জুন, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন