Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

‘রাজশাহী উন্নয়নের শ্রোতধারায় বদলে যাওয়া নগরী’

রাজশাহী ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

রাজশাহীকে উন্নত পরিচ্ছন্ন শান্তি ও স্বস্তির আবাসভ‚মি হিসাবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়ে গতকাল রোববার দুপুরে ঘোষিত হলো রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের বাজেট।

নগরভবনে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ২০১৯-২০ অর্থ বছরের আয় ব্যয় সমান ধরে ৫৪৭ কোটি ১৮ লাখ ১২ হাজার টাকার প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করেন। সাথে সাথে ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের সংশোধিত বাজেট ঘোষণা করেন। ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭৫২ কোটি ৩৭ লাখ ৮১ হাজার টাকা। সংশোধীত আকারে দাঁড়ায় ৩২৪ কোটি ৮৯ লাখ ৯৯ হাজার টাকা। মেয়র বলেন, সংশোধিত বাজেটের দিকে লক্ষ্য রেখেই বাস্তব সম্মতভাবে এবারের প্রস্তাবিত বাজেট।

মেয়র লিটন বাজেট বক্তব্যে নগরীর বর্তমানের পাশপাশি আগামী পঞ্চাশ বছরের মহানগরীর চাহিদা ও উন্নয়নের কথা মাথায় রেখে রাজশাহীকে মেগাসিটি হিসাবে গড়ে তোলার জন্য পরিকল্পনাসহ মাস্টার প্ল্যান তৈরীর কাজ চলছে। সরকারের নিকট তিন হাজার কোটি টাকার প্রকল্প প্রস্তাব প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়াও চীন, ভারত, কানাডা, নরওয়ে, ইন্দোনেশিয়া সরকারের আর্থিক সহযোগিতায় যোগাযোগ, নদী খনন, শিক্ষা, সংস্কৃতি, নগরায়ন, কৃষিপণ্যের প্রক্রিয়াজাত করণ ইত্যাদির উন্নয়ন সাধনের জন্য এসব ক্ষেত্রে দশ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন সম্ভব হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মেয়র লিটন বলেন, এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে সুনির্দিষ্ট আটটি কর্ম কৌশল সামনে রেখে প্রণয়ন করা হয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে পরিকল্পিত নগর অবকাঠামো নির্মান, উন্নত বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, জলাবদ্ধতা নিরসন, সবুজায়ন, পরিবেশ বান্ধব অবকাঠামো উন্নয়ন, প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা ব্যবস্থাপনা ও কর্ম ক্ষমতার উন্নয়ন, রাজস্ব ব্যবস্থাপনার আধুনিক করনের মাধ্যমে আর্থিক সম্ভাবনা বাড়ানো, কর্ম সম্পাদনে গতিশীলতা আনা ও সেবার মান বৃদ্ধি, দাপ্তরিক কর্মকাÐে স্বচ্ছতা বৃদ্ধি ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করণ, আর্থিক ও সম্পদ ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন।

সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা শাওগাতুল আলমের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র-১ সরিফুল ইসলাম বাবু, কাউন্সিলর জনাব আলী, তাহেরা খাতুন মিলি, অর্থ ও সংস্থাপন স্থায়ী কমিটির সদস্য ও কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ সরকার, অর্থ ও সংস্থাপন স্থায়ী কমিটির সদস্য কাউন্সিলর নিযাম উল আযিম, অর্থ ও সংস্থাপন স্থায়ী কমিটির সদস্য ও কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান, অর্থ ও সংস্থাপন স্থায়ী কমিটির সদস্য ও কাউন্সিলর নজরুল ইসলামসহ অন্যান্য সকল কাউন্সিলরবৃন্দ, সচিব রেজাউল করিম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা শাহানা আকতার জাহান, প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এফএএম আঞ্জুমান আরা, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ মো. মামুন, মেয়রের একান্ত সচিব আলমগীর কবির, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সমর কুমার পাল, বাজেট কাম হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম খান, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা নিজামুল হোদাসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাজশাহী


আরও
আরও পড়ুন