Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ১৫ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ফের বাড়ছে মোবাইল ফোন গ্রাহকের ব্যয়

প্রকাশের সময় : ৩ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার ঃ ফের বেড়ে যাচ্ছে মোবাইল ফোন গ্রাহকদের ব্যয়। এখন ১০০ টাকার কথা বলার জন্য গ্রাহকদের খরচ করতে হয় ১১৯ টাকা ৪৫ পয়সা, নতুন বাজেটে এই খরচ বেড়ে দাঁড়াবে ১২১ টাকা ৭৫ পয়সা। মোবাইল ফোনের সিম বা রিম ব্যবহার করে কথা বলা, ইন্টারনেট ব্যবহারসহ সব ধরনের সেবার উপর এই ব্যয় বাড়ছে গ্রাহকদের। সিম বা রিম কার্ডের মাধ্যমে সেবার উপর বিদ্যমান তিন শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বাড়িয়ে ৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর ফলে নতুন করে মোবাইল ফোন গ্রাহকদের ব্যয় বাড়বে। গতকাল (বৃহস্পতিবার) জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপনায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত মুঠোফোন সিমভিত্তিক সেবার ওপর এ সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধির প্রস্তাব করেন। অর্থমন্ত্রীর প্রস্তাবে বলা হয়েছে, গত অর্থবছরের বাজেটে আমরা মোবাইলের সিম কর ব্যাপক হারে কমিয়েছি। এ কারণে সিম বা রিম কার্ডের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার ওপর বিদ্যমান ৩ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক বৃদ্ধি করে ৫ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করছি।’ এ সিদ্ধান্তের ফলে বর্তমান মুঠোফোন সিম সেবার ওপর ১৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর (মূসক), ১ শতাংশ সারচার্জের সঙ্গে নতুন ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক যোগ হবে। তবে মুঠোফোনের সিমকার্ডের কর গত অর্থবছরের মতোই ১০০ টাকা রাখা হয়েছে। তবে মোবাইল সেবার উপর কর বাড়ানোর প্রস্তাবকে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার ও এ খাতে সার্বিক অগ্রযাত্রার অন্তরায় হিসেবে দেখছে মোবাইল ফোন অপারেটররা। একটি বেসরকারি অপারেটরের কর্মকর্তা বলেন, এখন তিন শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ও এক শতাংশ সারচার্জসহ ১০০ টাকায় খরচ হয় ১১৯ টাকা ৪৫ পয়সা, এই খরচ ১২১ টাকা ৭৫ পয়সা হয়ে যাবে। ফলে মোবাইল ফোননির্ভর (কথা বলা কিংবা ডেটা স্থানান্তর) সব ধরনের খরচ বাড়বে। অপারেটরদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অফ মোবাইল টেলিকম অপারেটর অব বাংলাদেশ (অ্যামটব) মহাসচিব টি আই এম নুরুল কবির বলেন, এই প্রস্তাব বাস্তবায়িত হলে এই সেক্টরের অগ্রগতিতে বাধা পড়বে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে টেলিকম খাতে শুল্ক নির্ধারণসহ অন্যান্য বিষয়ে সরকারের সহযোগিতা চান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।