Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১০ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

আর্জেন্টিনাকে কাঁদিয়ে ফাইনালে ব্রাজিল

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

জাতীয় দলের জার্সিতে আবারও আশাহত হয়েছেন লিওনেল মেসি। কোপা আমেরিকার গত দুই আসরের ফাইনালে হতাশ হওয়ার পর এবার চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী ব্রাজিলের কাছে হেরে শেষ চার থেকেই বিদায় নিয়েছে তার নেতৃত্বাধীন আর্জেন্টিনা। তবে দলের খেলায় খুশি পাঁচবারের বর্ষসেরা জানিয়েছেন, জাতীয় দলের হয়ে লড়াই চালিয়ে যাবেন তিনি। বোলে হরিজন্তের মিনেইরো স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় গতকাল সকালে আসরের প্রথম সেমি-ফাইনালে লিওনেল স্কালোনির দলকে ২-০ গোলে হারায় স্বাগতিকরা। এক যুগ পর প্রতিযোগিতার ফাইনালে উঠলো আট বারের চ্যাম্পিয়নরা। ২০০৫ সালের পর আর্জেন্টিনার বিপক্ষে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে অপরাজিত রইল সেলেসাওরা।

প্রথমার্ধে গোছানো আক্রমণে রবার্তো ফিরমিনোর বাড়ানো বলে দলকে এগিয়ে নেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। দ্বিতীয়ার্ধে ঠিক বিপরীত ভূমিকায় ব্যবধানে দ্বিগুণ করেন এই জুটি। প্রথমার্ধে সার্জিও আগুয়েরোকে গোলবঞ্চিত করে ক্রসবার, দ্বিতীয়ার্ধে মেসির শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়।
শুরু থেকেই গতির ফুটবল খেলতে থাকে দুই দল। তবে মিডফিল্ডে কোনো দল আধিপত্য করতে পারেনি। দ্বিতীয়ার্ধে তুলনামূলক ভালো খেলেও জালের দেখা পায়নি ১৪বারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। দু’দলের খেলোয়াড়দের মাঝে কখনও কখনও ছড়িয়ে পড়ে শারীরিক উত্তেজনা।
শেষ আটে খেলা ভেনিজুয়েলা ম্যাচের একাদশের উপর আস্থা রাখেন আর্জেন্টিনা কোচ। তিতের দলে ছিল দুটি পরিবর্তন। অ্যালানের পরিবর্তে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মিডফিল্ডে ফেরেন কাসিমিরো। লেফট ব্যাকে ফিলিপে লুইসের জায়গা নেন অ্যালেক্স সান্দ্রো। দ্বিতীয়ার্ধে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া ও পাওলো দিবালাকে নামিয়েও ভাগ্য বদল করতে পারেননি স্কালোনি।

জাতীয় দলের হয়ে আবারও আশাহত হলেও এখনই হাল ছাড়ছেন না মেসি, ‘দল যদি আমার সাহায্য চায়, আমি যে কোনো মূল্যে সাহায্য করতে রাজি আছি। এই দলের সঙ্গে খেলে আমার অনেক ভালো লেগেছে। ম্যাচের ফল আমাদের পক্ষে যায়নি, কিন্তু আজ আমরা দেখিয়েছি, আমরা দরকার হলে অনেক ভালো খেলতে পারি।’

ম্যাচে তুলনামূলক ভালো খেলেছে আর্জেন্টিনাই। শুধু গোল পাওয়া হয়নি। ইকুয়েডরের রেফারি রডি জামব্রানোর বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্তে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন আর্জেন্টাইন কোচ ও খেলোয়াড়রা। স্কালোনি বলেন, ‘আমি রেফারিং মোটেই পছন্দ করিনি। সাধারণত আমি এই বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করতে পছন্দ করি না। কিন্তু বলতে বাধ্য হচ্ছি এই ধরনের ম্যাচে রেফারিং করার মত যোগ্যতা তার নেই।’

একই সুরে কথা বলেছেন মেসিও। শান্ত স্বভাবের জন্য পরিচিত মেসি সাংবাদিকদের সামনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ভিএআরের ব্যবহার না দেখে, ‘এই কোপা আমেরিকাতে রেফারিরা অনেক ফালতু ফাউলের সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন কিন্তু আজ একবারের জন্যেও ভিএআরের সাহায্য নেওয়া হলো না।’ ‘এটা খতিয়ে দেখা উচিত এবং আমি আশা করি, একটা দলের পক্ষ নিয়ে মাঠের ভারসাম্য নষ্ট করা এই রেফারিদেরকে কিছু করবে কনমেবল।’

ক্ষুব্ধ দলের ম্যানচেস্টার সিটি ফরোয়ার্ড আগুয়েরোও, ‘তারা আমাদের বলেছিল ভিএআর হবে পঞ্চম রেফারির মতো কিন্তু যখন বিষয়গুলো এভাবে পাল্টে যায়, তখন আমি বলব এটা ছিলই না।’ ‘আমি ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলাম এবং আলভেস পা চালিয়ে আমাকে থামিয়ে দিল। এটা পরিষ্কার ফাউল ছিল। এতটাই পরিষ্কার ফাউল ছিল যে সে দাঁড়িয়ে পড়েছিল এবং অপেক্ষা করছিল ফাউল দেওয়া হবে।’

মিডফিল্ডে এদিনও ভুগতে দেখা গেছে আর্জেন্টিনাকে। অবশ্য ব্রাজিলও এদিন মাঝমাঠে আধিপত্য বিস্তার করতে পারেনি। তবে সার্বিক বিবেচনায় দলের ভালো ভবিষ্যৎ দেখছেন আর্জেন্টিনা কোচ। স্কালোনি বলেন, ‘নিঃসন্দেহে আজ একটি কথা অন্তত বলা যায় জাতীয় দলের জার্সি গায়ে এই খেলোয়াড়দের মধ্যে যে প্রতিশ্রুতি আছে তা অন্যদের মধ্যে ছিল না। আমি এই দলটি মধ্যে ভবিষ্যত দেখতে পাচ্ছি।’

বৃহস্পতিবার একই সময়ে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চিলির প্রতিপক্ষ পেরু। বিজয়ী দল খেলবে রোববার রিও ডি জেনেইরোর মারাকানা স্টেডিয়ামে হতে যাওয়া ফাইনালে ব্রাজিলের বিপক্ষে। আর পরাজিত দল রোববার আর্জেন্টিনার বিপক্ষে খেলবে তৃতীয় স্থান নির্ধারনী ম্যাচে।
আর্জেন্টিনা ০ : ২ ব্রাজিল



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফাইনালে ব্রাজিল
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ