Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে দরকার হলে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিয়ানমারে যাবেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ জুলাই, ২০১৯, ১১:২৭ এএম

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে চীন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেইজিং সফরের দ্বিতীয় দিন গতকাল বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিক বৈঠকে চীনের প্রধানমন্ত্রী লি খোয়াছিয়াং এ আশ্বাস দেন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা একটি সমাধানে পৌঁছতে দরকার হলে আমরা আবারও আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে মিয়ানমার পাঠাব।

বৈঠকের পর চীনের প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ‘চীন চেষ্টা করবে যাতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার আলোচনার মধ্যেই একটি সমাধান খুঁজে পায়। চীন মিয়ানমারকে এ ব্যাপারে বোঝাবে, বলছে এবং বলবে।’

পররাষ্ট্রসচিব বলেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীন তার পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে দুই দফায় মিয়ানমার পাঠিয়েছে বলেও বৈঠকে চীনের প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেছেন। লি খোয়াছিয়াং বলেছেন, ‘একটি সমাধানে পৌঁছতে প্রয়োজনে আমরা আবারও আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে মিয়ানমার পাঠাব।’

উল্লেখ্য, দালিয়ানে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের সম্মেলনের পর বেইজিংয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দ্বিপক্ষীয় সফরে রোহিঙ্গা ইস্যুই সবচেয়ে গুরুত্ব পাচ্ছে। বেইজিং মিশনের দ্বিতীয় দিন গতকাল চীনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর আজ শুক্রবার তিনি বৈঠক করবেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিংয়ের সঙ্গে। সেখানেও বিশেষ গুরুত্ব পাবে রোহিঙ্গা সংকট। কেবল বৈঠক নয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্মানে নৈশভোজেরও আয়োজন করেছেন চীনের রাষ্ট্রপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল বেইজিংয়ের গ্রেট হল অব পিপলে পৌঁছলে তাঁকে লাল গালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। এরপর চীনের প্রধানমন্ত্রী লি খোয়াছিয়াংয়ের সঙ্গে শেখ হাসিনার আনুষ্ঠানিক বৈঠকের পর দুই দেশের মধ্যে ৯টি চুক্তি, সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) ও ‘লেটার অব এক্সচেঞ্জ’ (বিনিময়পত্র) সই হয়। পররাষ্ট্রসচিবকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা বাসস জানায়, ‘লেটার অব এক্সচেঞ্জের’ আওতায় মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের জন্য চীন বাংলাদেশে আড়াই হাজার মেট্রিক টন চাল সরবরাহ করবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রোহিঙ্গা


আরও
আরও পড়ুন