Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ০১ রজব ১৪৪১ হিজরী

নয়ন বন্ডকে কারা সন্ত্রাসী বানিয়েছে বের করব

সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৬ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যার প্রধান সন্দেহভাজন নয়ন বন্ডকে কারা আস্কারা দিয়ে ‘সন্ত্রাসী’ বানিয়েছে, সেটা খুঁজে বের করা হবে। বর্তমান সরকার বিচারবহির্ভূত হত্যা সমর্থন করে না। গতকাল শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে এক ক্রীড়া অনুষ্ঠান শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, নয়ন বন্ডের পেছনে কোন কোন শক্তি কাজ করেছে, সে বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। ঘুষ লেনদেনের ঘটনায় আলোচিত দুদক পরিচালক এনামুল বাছিরের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরাও একমত, বিচারবহির্ভূত হত্যা আমরাও পছন্দ করি না। যেটা হচ্ছে, আমাদের একজন ম্যাজিস্ট্রেট, ফার্স্ট ক্লাস ম্যাজিস্ট্রেট এগুলো তদন্ত করে থাকেন এবং তারপর এটার ফাইনাল ডিসিশন নেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দুদকের যে কর্মকর্তার কথা জিজ্ঞাসা করলেন, এটা তদন্তের পর তার যথাযথ ব্যবস্থা নিশ্চিত হবে। ডিআইজি মিজানের ব্যাপারেও আপনারা দেখেছেন, ডিআইজি মিজানের থেকেও তদন্তসহ সব ফর্মালিটি শেষ করে তাকে আমরা আইনের আওতায় নিয়ে গিয়েছি। দুদকের এখানেও ফর্মালিটি শেষ করে আইনের আওতায় তিনি সম্মুখীন হবেন এবং আপনারা সেটা দেখতে পাবেন। আমরা সব সময় আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। দেশের মানুষও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা দেখতে চায়। সে লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।
গত ২৬ জুন বরগুনায় রিফাতকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার পর প্রধান সন্দেহভাজন নয়ন বন্ডের অতীতের নানা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিষয়টি গণমাধ্যমে আসে। সন্ত্রাসের একাধিক মামলার আসামি নয়ন বিচার না হওয়ায় বেপরোয়া হয়েছে বলেই স্থানীয়রা বলেছেন গণমাধ্যমকে। তবে গত মঙ্গলবার পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তার অধ্যায়ের সমাপ্তি হয়। নিহত হন তিনি।
গত বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে এই মামলার অগ্রগতি নিয়ে শুনানিতে নয়ন বন্ডের বেপরোয়া হয়ে উঠা নিয়ে কথা বলেন বিচারকরা। মন্তব্য আসে, একদিনে এই নয়ন বন্ডরা তৈরি হয় না। কেউ না কেউ তাদের পৃষ্ঠপোষকতা করে থাকে। কেউ না কেউ লালন-পালন করে ক্রিমিনাল বানায়। রিফাত হত্যা নিয়ে শুনানিতে হাইকোর্টের বিচারপতি কামরুল কাদের বলেন, আমরা এক্সট্রা জুডিশিয়াল কিলিং (বিচারবহির্ভূূত হত্যা) পছন্দ করি না।
দুদক কর্মকর্তা বাছিরের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থ



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন