Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

হজ অফিসের দুর্নীতি ফাঁস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সরকারি বিধি বহির্ভূতভাবে কোটি কোটি টাকার সম্পদ অর্জনের দায়ে দুদকের জালে আটকা পড়েছে আশকোনাস্থ হজ অফিসের অফিস সহকারী কাম টাইপিস্ট সুহিল মোহাম্মদ ফেরদৌস। দুর্নীতি দমন বিভাগে তার দুর্নীতি নিয়ে তদন্ত চলছে। এ নিয়ে খোদ ধর্ম মন্ত্রণালয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ধর্ম মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির ১৬৭ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদনে হজ অফিসের এই চাঞ্চল্যকর দুর্নীতির তথ্য বেরিয়ে এসেছে। ধর্ম মন্ত্রণালয় সুহিল (হজ অফিসের বহুল আলোচিত সোহেল) এর দুর্নীতির খতিয়ান প্রমাণিত হওয়ায় গত ২২ মে তাকে হজ অফিস থেকে সাময়িক প্রত্যাহার করে ধর্ম মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত করেছে। হজ অফিসের অফিস সহকারি কাম টাইপিস্ট ও অভিযুক্ত সুহিলের শ্যালক দীন মোহাম্মদ-এর বিরুদ্ধেও নানা অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

হজ অফিসকে দুর্নীতিমুক্ত করণের লক্ষ্যে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আনিছুর রহমানের নির্দেশে সিনিয়র সহকারী সচিব আরিফ আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ এক লিখিত নির্দেশনায় হজ অফিসের পরিচালক হজ সাইফুল ইসলামকে সুহিল মোহাম্মদ ফেরদৌসের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ব্যতিরেকে তার এবং তার স্ত্রী নাজমা বেগমের সম্পত্তি অর্জনের কারণে সরকারি কর্মচারি আচরণবিধি এবং সরকারি কর্মচারি (শৃংখলা ও আপীল) বিধি ১৯৮৫ মোতাবেক বিভাগীয় মামলা রুজু করার অনুরোধ জানান। জানা গেছে, তদন্ত কমিটি অভিযুক্ত সুহিল ও তার স্ত্রীর ব্যাংক একাউন্টে প্রায় পৌনে তিন কোটি টাকা জমা রাখার সন্ধান পেয়েছে।

হজ অফিসের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, অভিযুক্ত সুহিলের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রুজু করতে হলে বিধি অনুযায়ী তাকে তাৎক্ষণিক সাময়িক বরখাস্ত করার কথা এবং তদন্ত কমিটি গঠন করতে হবে। কিন্তু পরিচালক হজ সাইফুল ইসলাম ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনাকে উপেক্ষা করে সুহিলের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রুজুর দিকে অগ্রসর না হয়ে তাকে বাঁচানোর জন্য কালক্ষেপণ করছেন। সন্ধ্যায় এ ব্যাপারে মতামত নেয়ার জন্য পরিচালক হজ-এর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হজ

২২ আগস্ট, ২০১৯
১০ আগস্ট, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন