Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ২২ আষাঢ় ১৪২৭, ১৪ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

মহাসড়কের পাশে ময়লার ভাগাড় দূষিত হচ্ছে পরিবেশ

মো. ওমর ফারুক, ফেনী থেকে : | প্রকাশের সময় : ৮ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

লাইফ লাইন খ্যাত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীতে সড়কের পাশে ফেলা হচ্ছে ময়লা আবর্জনা। দূষিত হচ্ছে চারপাশের পরিবেশ ও নষ্ট হচ্ছে সড়ক। দেখার কেউ নেই।

সরেজমিনে দেখা যায়, ফেনীর মহিপাল ফ্লাইওভারের দক্ষিণে পৌরসভার ১৪ নং ওয়ার্ড রামপুরে ঢাকা-চট্টগাম মহাসড়কের পশ্চিম পাশে প্রায় ৫০০ মিটার সড়কের একপাশ জুড়ে ময়লা ফেলা হচ্ছে। এর ফলে সড়কের পাশে ময়লার বিশাল ভাগাড় তৈরি হয়ে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে।
এদিকে মহাসড়কের পিচের অংশে প্রায় ৮ থেকে ১০ ফুট ময়লায় ডেকে গেছে। এ কারণে সড়কে বৃষ্টির পানি ও ময়লার পানি জমে একদিকে সড়কের যেমন ক্ষতি হচ্ছে অন্যদিকে সৌন্দর্য হারাচ্ছে মহাসড়ক। সড়কের পাশে দিন দিন ময়লার সারি দীর্ঘ হচ্ছে। প্রতিদিন এই মহাসড়ক দিয়ে হাজার হাজার গাড়ি চলাচল করে। যেভাবে ময়লার উচ্ছিষ্টাংশ সড়ক ডেকে যাচ্ছে যে কোন মুহূর্তে সড়কে চলাচলকারী গাড়িগুলি ময়লার উপর উঠে গিয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

স্থানীয় ব্যবসায়ী নাছির উদ্দিন, হুমায়ন কবির, জামশেদ ও দ্বীন মোহাম্মদ জানান, আমরা এই এলাকায় ব্যবসা করি কিন্তু সড়কের পাশে ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধে এখানে বসে ব্যবসা করার উপায় নেই। প্রতিদিন পৌরসভার গাড়ি ট্টাক্টর, পিকআপ, ভ্যান এসে সকাল-বিকাল সড়কের পাশে ময়লা ফেলে যাচ্ছে। আমরা কয়েকবার তাদের নিষেধ করার পরও তারা এখানে ময়লা ফেলছেন। শাহিন একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণীর ছাত্র ইমতিয়াজ, ফাহিম ও রিয়াদ জানান, প্রতিদিন আমরা এই সড়ক দিয়ে স্কুলে আসা যাওয়া করি। এখানকার ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধে আমাদের নি:শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। সেখানে কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দা ক্ষোভের সাথে জানান, গত এক বছর ধরে ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধে বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। আমরা ঠিকমত ঘুমাতে পারিনা। নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। নাক দিয়ে যখন ময়লা পোড়ার দুর্গন্ধ ডুকে তখন সাথে সাথে পেট ফুলে যায়।

এত বিষাক্ত হয়ে উঠেছে ময়লার দুর্গন্ধে পরিবেশ যে এ এলাকায় বসবাস করা কঠিন হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে বিগত ১ বছরে পৌর ও সড়ক কর্তৃপক্ষকে এগিয়ে আসতে দেখি নাই। ফেনী শহর ও মহিপালসহ আশপাশের কয়েকটি ওয়ার্ডের ময়লাগুলি এখানে এনে ফেলছে পৌরসভার ময়লা বহণকারী গাড়িগুলি। ওই এলাকায় সড়কের পাশে র‌্যাব-৭ ফেনী ক্যাম্পের দপ্তর, পাশে অনেকগুলি দোকান, বাসা বাড়ি, কয়েকটি মিল ফ্যাক্টরী, স্কুল-কলেজ
রয়েছে। ময়লার দুর্গন্ধে মহাসড়কে গাড়িতে থাকা যাত্রিসহ স্থানীয় জনসাধারণের চলাচলে নানা দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত।
ফেনী পৌরসভার ১৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনির আহম্মেদ বাচ্চু জানান, তিনি এ বিষয়ে পৌর মেয়রকে জানিয়েছেন। মেয়র জানিয়েছেন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে ময়লা ফেলার জন্য ফেনী পৌরসভার পক্ষ থেকে কোন অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবে কেবা কারা এবং কোন গাড়ি ময়লা ফেলছেন খোঁজ নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন মেয়র।

ফেনী সড়ক ও জনপদ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. গাউছুল হাছান মারুফ জানান, মহাসড়কের পাশে ময়লা আবর্জনা ফেলা এটা আসলে খুবই দু:খজনক বিষয়। এতে করে সড়কের ক্ষতির পাশাপাশি ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
এ বিষয়ে পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজীকে অনেক বার বলেছেন। তিনি এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিবেন বলে জানান। জেলা উন্নয়ন সমন্বয় সভায়ও এ বিষয়ে একাধিকবার আলোচনা হয়েছে। কিন্তু এখনো পযন্ত কোন সমাধান হয়নি। নির্বাহী প্রকৌশলী বিষয়টি সমাধানের জন্য পৌরসভা কর্তৃপক্ষের সাথে বসবেন বলে জানান।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মহাসড়ক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ