Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

পীরগাছায় আন্ত:জেলা অজ্ঞান পার্টির ৪ সদস্য আটক

পীরগাছা (রংপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৮ জুলাই, ২০১৯, ৪:১০ পিএম

চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে চুরির ঘটনায় আন্ত:জেলা অজ্ঞান পার্টির ৪ সদস্যকে আটক করেছে পীরগাছা থানা পুলিশ। ওই চক্রটি রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলায় চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগের মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে নি:স্ব করে আসছে। গতকাল সোমাবার দুপুরে পীরগাছা থানার ওসি রেজাউল করিম থানা ভবনে সাংবাদিকদের এক প্রেস ব্রিফিং এ অভিযান নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন।
তিনি জানান, গত ১০ মার্চ উপজেলার কামদেব এলাকায় চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলামের বাড়ি থেকে ৪ লাখ ১০ হাজার টাকা মূল্যেমানের নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার চুরি করা হয়। এঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়। উক্ত মামলা তদন্তকালে প্রাপ্ততথ্যের ভিত্তিতে গত রবিবার কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ি উপজেলার পূর্ব চন্দ্র খানা গ্রামের কফুর মাস্টারের ছেলে শাহানুর রহমানকে(৪৫) গ্রেফতার করা হয়। তাকে আদালতে সোপর্দ করলে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। শাহানুরের বিরুদ্ধে কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাট জেলায় ডাকাতির প্রস্তুতিসহ ৩টি মামলা রয়েছে।
শাহানুরের তথ্যের ভিত্তিতে রবিবার রাতে রংপুরের মাহিগঞ্জের নাচনীয়ার বস্তি থেকে আজহার আলীর ছেলে মাজেদুল ইসলাম শাহিন ও তার স্ত্রী সাহিদা বেগমকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে শাহিন এ চুরির ঘটনায় সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন এবং তার স্ত্রী চোরাই স্বর্ণালংকার রংপুর স্বর্ণালংকার পট্রিতে বিক্রির কথা জানান।
শাহিনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন জেলায় ১১টি মামলা রয়েছে। শাহিন ও তার স্ত্রীকে আটকের সময় তাদের কাছে চেতনা নাশক সাদা রঙের ওষুধ, তরল ওষুধ, ভারতীয় ঘুমের ওষুধ এবং দরজা ও গ্রীল ভাঙার যন্ত্রপাতি উদ্ধার করা হয়। শাহিন ও শাহানুরের চোরাই কাজে যে অটো রিক্সা ব্যবহার করা হতো ওই অটোওয়ালা সোলায়মান আলীকে সোমবার গভীর রাতে উপজেলার কামদেব গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়।
তিনি আরো জানান, ওই চক্রটি স্থানীয় সহযোগীদের মাধ্যমে যেকোন বাড়ি তার্গেট করেন। পরে খাবার সাথে, পানির ট্যাংকি ও টিউবয়েলের পানিতে চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার চুরি করে নিয়ে যায়। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
অভিযানে অংশ নেয়া পীরগাছা থানার উপ-পরিদর্শক প্রলয় বর্মা জানান, চক্রটি অনেক বড়। রংপুর বিভাগ জুড়ে তাদের নেটওয়ার্ক রয়েছে। আমরা পুরো চক্রটিকে ধরার জন্য অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ