Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

আসামিরা ১১ দিনেও অধরা

শিশু ধর্ষণ

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৯ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

১১ বছরের শিশুকে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত শাহীনকে পুলিশ আজও গ্রেফতার করতে পারেনি। এ ঘটনায় মহিপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে। বর্তমানে দরিদ্র এ পরিবারে সকল ধরনের সহায়তা দেয়া প্রয়োজন বলে চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম শিকদার জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, ২৭ জুন সন্ধ্যায় শিশুটি তেগাছিয়া বাজার থেকে ডালবুগঞ্জ ইউনিয়নের নিজ বাড়ি রমজানপুরে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে তাকে ধর্ষণ করা হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে কলাপাড়া হাসপাতালে পরে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অপরদিকে, পশ্চিম চাপলী গ্রামে স্বামী সিদ্দিককে মারধর করে বেধে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামি শাহ আলম মাঝিসহ শাহীন, শাকিল ও রশিদকে আদালত জেল হাজতে পাঠিয়েছে। ১৫ এপ্রিল রাতে ওই গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করা হয়।

মামলায় বলা হয়েছে, ১৫ এপ্রিল রাতে স্ত্রীকে নিয়ে খালা হাসিনা বেগমের বাড়িতে বেড়াতে যায় সিদ্দিক হাওলাদার। এ সময় আসামিরা ঘরের দরজা ভেঙে ঢুকে সিদ্দিক হাওলাদারকে মারধর করে বেধে প্রথম দফায় এবং দ্বিতীয় দফায় পাশর্^বর্তী মাছের ঘেরে নিয়ে গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে অসুস্থ অবস্থায় পাশের এলাকার মেম্বার আনোয়ার ফকিরের বাড়িতে রেখে যায়।
মহিপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব হোসেন জানান, আসামিকে ধরতে তারা এলাকা ছাড়াও পাশের উপজেলায় পর্যন্ত অভিযান করেছেন। এ মামলায় দুই আসামি রবিউল ও মামুনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ